বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > শ্রীকৃষ্ণ জন্মভূমি মামলা: মথুরার ইদগাহ সরানোর মামলা গ্রহণ আদালতের
শ্রীকৃষ্ণ জন্মভূমি মামলা: মথুরার ইদগাহ সরানোর মামলা গ্রহণ আদালতের (ফাইল ছবি, সৌজন্য পিটিআই)
শ্রীকৃষ্ণ জন্মভূমি মামলা: মথুরার ইদগাহ সরানোর মামলা গ্রহণ আদালতের (ফাইল ছবি, সৌজন্য পিটিআই)

শ্রীকৃষ্ণ জন্মভূমি মামলা: মথুরার ইদগাহ সরানোর মামলা গ্রহণ আদালতের

  • গত ৩০ সেপ্টেম্বর সেই মামলা গ্রহণ করেনি মথুরার নগর আদালত।

শ্রীকৃষ্ণ জন্মভূমি জমি বিতর্ক মামলা গ্রহণ করল মথুরার জেলা আদালত। সেই মামলায় মথুরায় শ্রীকৃষ্ণ মন্দিরের অদূরে অবস্থিত শাহি ইদগাহ সরিয়ে নেওয়ার আর্জি জানানো হয়েছে।

গত ৩০ সেপ্টেম্বর সেই মামলা খারিজ করে দিয়েছিল মথুরার নগর আদালত। শ্রীকৃষ্ণ বিরাজমানের হয়ে মামলা করেছিলেন রঞ্জনা অগ্নিহোত্রী-সহ কয়েকজন। মন্দির চত্বরের ১৩.৩৭ একর জমি পুনরুদ্ধার এবং শাহি ইদগাহ মসজিদ সরানোর আর্জি জানানো হয়েছিল। তাঁদের দাবি, মথুরায় শ্রীকৃষ্ণ জন্মভূমিতে যে কৃষ্ণ মন্দির ছিল, তা ভেঙে শাহি ইদগাহ মসজিদ তৈরি করেছিলেন  মুঘল সম্রাট ঔরঙ্গজেব। কিন্তু সেই দেওয়ানি মামলা গ্রহণ করেননি বিচারক। 

সেই রায়ের বিরুদ্ধে মথুরার জেলা আদালতে আর্জি দাখিল করা হয়েছিল। মামলাকারীদের আইনজীবী হরিশংকর জৈন বলেন, 'গত ৩০ সেপ্টেম্বর মথুরার নগর আদালতের বিচারক আমাদের যে মামলা খারিজ করে দিয়েছিলেন, তার বিরুদ্ধে আর্জি জানানো হয়েছিল। তা গ্রহণ করেছেন জেলা জজ।' তিনি জানিয়েছেন, আগামী ১৮ নভেম্বর মামলা পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য করা হয়েছে। সেদিন আদালতে উপস্থিত থাকার জন্য সব পক্ষকে নোটিশ পাঠানো হয়েছে।  

উল্লেখ্য, উপাসনালয়ের আইন (বিশেষ নিয়ম) অনুযায়ী ১৯৪৭ সালের ১৫ অগস্টের সময় যে ধর্মীয় স্থানের চরিত্র যেমন ছিল, তেমনই থাকবে। একইসঙ্গে সেই আইনে জানানো স্পষ্টভাবে জানানো হয়েছে, ১৯৪৭ সালের ১৫ অগস্ট দেশের যে কোনও মামলা বা কর্তৃপক্ষের কাছে উপাসনালয়ের চরিত্র পরিবর্তনের যে মামলা, আর্জি আছে, আইন প্রণয়নের সঙ্গে সঙ্গে তা বাতিল হয়ে যাবে।

বন্ধ করুন