বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > ‘প্রেমেও’ জালিয়াতি? ‘প্রেমিকাকে’ নাকি নকল হিরের আংটি উপহার চোকসির!
বারবারা জারাবিকা এবং মেহুল চোকসি। (ফাইল ছবি, সৌজন্য এএনআই এবং হিন্দুস্তান টাইমস)
বারবারা জারাবিকা এবং মেহুল চোকসি। (ফাইল ছবি, সৌজন্য এএনআই এবং হিন্দুস্তান টাইমস)

‘প্রেমেও’ জালিয়াতি? ‘প্রেমিকাকে’ নাকি নকল হিরের আংটি উপহার চোকসির!

  • বারবারার দাবি, নিজের প্রকৃত পরিচয় গোপন করেছিলেন মেহুল।

তিনি মোটেও মেহুল চোকসির প্রেমিকা নন। আর্থিক জালিয়াতিতে অভিযুক্তের ‘অপহরণেও’ তাঁর কোনও হাত নেই। এমনই দাবি করলেন বারবারা জারাবিকা। শুধু তাই নয়, বারবারার দাবি, তাঁর কাছে নিজের আসল পরিচয় গোপন করেছিলেন চোকসি। কয়েকটি নকল হিরের আংটি ও ব্রেসলেট উপহার দিয়েছিলেন।

গত মাসে চোকসির গ্রেফতারির পর থেকেই বারবারার নাম ভেসে আসছিল। একটি মহল থেকে দাবি করা হয়, তিনি নাকি চোকসির প্রেমিকা। চোকসির ‘অপহরণেও’ বারবারার হাত আছে। যদিও সেই অভিযোগ উড়িয়ে দিয়ে বারবারা জানান, কয়েক সপ্তাহ আগে পর্যন্ত চোকসির আসল নামও জানতেন না তিনি। ইন্ডিয়া টুডে'তে তিনি বলেন, ‘আমি চোকসির বন্ধু ছিলাম। চোকসি নিজের নাম জানিয়েছিলেন রাজ।' সংবাদসংস্থা এএনআইকে তো আরও একধাপ এগিয়ে বারবারা বলেন, ‘কেউ আমার সঙ্গে যোগাযোগ করেননি। অপহরণের কোনও নিদর্শন ছিল না। আমি অন্যান্য সাক্ষাৎকারেও বলেছি, যাঁরা জলি হারবার এলাকা চেনেন, তাঁরা ভালোভাবেই জানেন যে সেখান থেকে কাউকে অপহরণ করা অসম্ভব। ওটা সবথেকে সুরক্ষিত জায়গা।’

বারবারা জানান, গত বছর অগস্ট থেকে চোকসিকে চিনতেন। পরে ধীরে ধীরে ‘বন্ধুত্ব’ গাঢ় হয়। বারবারা বলেন, ‘ও আমার সঙ্গে বন্ধুত্ব গড়ে তোলে। পরে আমার সঙ্গে ফ্লার্টও শুরু করে। ও আমায় হিরের আংটি এবং ব্রেসলেট উপহার দেয়। কিন্তু সেগুলি নকল বলে বুঝতে পারি।’ সঙ্গে বারবারা যোগ করেন, ‘এপ্রিলে একটি হিরের ব্রেসলেট দেয় এবং জানায় যে আমায় খুব ভালো লাগে এবং আমি ওর নাকি আদর্শ জীবনসঙ্গী।’ সঙ্গে তিনি যোগ করেন, ‘আমি স্পষ্ট করে দিতে চাই যে আমি ওর (চোকসির) প্রেমিকা নই, ও আমার সুগার ড্যাডি নন। আমার নিজস্ব আয়ের পন্থা ও ব্যবসা আছে। আমার নগদ অর্থ বা সহায়তা, হোটেল বুকিং বা ভুয়ো গয়নার প্রয়োজন ছিল না।’

বন্ধ করুন