লকডাউনে গুরুগ্রাম থেকে হেঁটে বাড়ি পেরার পথে উত্তর প্রদেশের শ্রমিকরা। ছবি: এএফপি। (AFP)
লকডাউনে গুরুগ্রাম থেকে হেঁটে বাড়ি পেরার পথে উত্তর প্রদেশের শ্রমিকরা। ছবি: এএফপি। (AFP)

লকডাউনে বকেয়া বেতন, বাড়ি ফিরতে না পেরে আত্মঘাতী শ্রমিক

  • মৃত্যুর আগে আপলোড করা ফেসবুক ভিডিয়োতে তিনি কারখানা কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে বকেয়া বেতন না দেওয়ার অভিযোগ করেছেন।

লকডাউনে বাড়ি ফিরতে না পেরে হতাশায় আত্মঘাতী হলেন হরিয়ানার প্লাইউড কারখানার শ্রমিক ওডিশাবাসী এক তরুণ। গাছ থেকে গলায় দড়ির ফাঁস লাগিয়ে ঝুলে পড়ার আগে ফেসবুকে তিনি একটি ভিডিয়ো আপলোড করেন।

বুধবার সকালে হরিয়ানার যমুনা বিহার এলাকায় একটি গাছ থেকে উদ্ধার হয় ওডিশার কেন্দ্রপাড়া জেলার রাজকণিকা ব্লকের বাজাপুর গ্রামের বাসিন্দা গঙ্গাধর বিসোয়ালের ঝুলন্ত দেহ। মৃত্যুর আগে আপলোড করা ফেসবুক ভিডিয়োতে তিনি কারখানা কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে বকেয়া বেতন না দেওয়ার অভিযোগ করেছেন। 

ওই ভিডিয়োতে কারখানা কর্তৃপক্ষকে তাঁর বকেয়া বেতন মিটিয়ে দেওয়ার অনুরোধের পাশাপাশি ওডিশা সরকারের উদ্দেশে গঙ্গাধর তাঁকে ঘরে ফিরিয়ে নিয়ে যাওয়ার ব্যবস্থা করতে আবেদনও জানান। এমনকি তাঁর দাবি না মানা হলে আত্মহত্যার হুমকিও দেন ওই তরুণ। 

তাঁর রুমমেট আর এক শ্রমিক জানিয়েছেন, গত কয়েক দিন ধরে গঙ্গাধরের শরীর খারাপ ছিল। লকডাউনের জেরে কারখানা বন্ধ হয়ে যাওয়ায় বকেয়া বেতনও বন্ধ করে দেয় কারখানা কর্তৃপক্ষ। এ দিকে বাড়ি থেকে নিয়মিত অর্থ চেয়ে ফোন আসায় প্রচণ্ড মানসিক চাপে ভুগতে শুরু করেন ওডিশাবাসী শ্রমিক।

কেন্দ্রপাড়ার জেলাশাসক সমর্থ ভার্মা জানিয়েছেন, তিনি এর মধ্যে গুরুগ্রামের জেলাশাসকের সঙ্গে কথা বলেছেন। গঙ্গাধরের পরিবারকে ১০,০০০ টাকা দেওয়ার জন্য বিডিও-কে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। ঘটনার তদন্ত সম্পূর্ণ হলে আরও ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানিয়েছেন জেলাশাসক। 

 

বন্ধ করুন