বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > আধার কার্ড : এবার বাড়ির দোরগোড়ায় গিয়ে মোবাইল নম্বর আপডেট করানো হবে!
এবার নিজের বাড়িতে বসেই আধার কার্ডের মোবাইল নম্বর সংশোধন বা আপডেট করতে পারবেন। (ছবি সৌজন্য হিন্দুস্তান টাইমস)
এবার নিজের বাড়িতে বসেই আধার কার্ডের মোবাইল নম্বর সংশোধন বা আপডেট করতে পারবেন। (ছবি সৌজন্য হিন্দুস্তান টাইমস)

আধার কার্ড : এবার বাড়ির দোরগোড়ায় গিয়ে মোবাইল নম্বর আপডেট করানো হবে!

  • এবার নিজের বাড়িতে বসেই আধার কার্ডের মোবাইল নম্বর সংশোধন বা আপডেট করতে পারবেন।

এবার নিজের বাড়িতে বসেই আধার কার্ডের মোবাইল নম্বর সংশোধন বা আপডেট করতে পারবেন। উপভোক্তার বাড়িতে পৌঁছে যাবেন পোস্টম্যান। এমনই সুযোগ করে দিল কেন্দ্রীয় যোগাযোগ মন্ত্রক। 

গত মঙ্গলবার কেন্দ্রীয় যোগাযোগ মন্ত্রকের তরফে টুইটারে বলা হয়েছে, ‘এখন থেকে মানুষ আধার কার্ডের মোবাইল নম্বর বাড়িতে বসেই ঠিক করতে পারবেন। সেজন্য বাড়ির দোরগোড়ায় পৌঁছে যাবেন ডাক বিভাগের কর্মী বা পোস্টম্যানরা। আধার কার্ডে মোবাইল নম্বর আপডেটের জন্য ইউনিক আইডেন্টিটি অথরিটি অব ইন্ডিয়ার (ইউআইডিএআই) রেজিস্ট্রার হিসেবে ইন্ডিয়া পোস্ট পেমেন্টস ব্যাঙ্ক (@IPPBOnline) আজ একটি পরিষেবা চালু করেছে।’

কেন্দ্রের তরফে বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, ইন্ডিয়া পোস্ট পেমেন্টস ব্যাঙ্কের ৬৫০ টি শাখা এবং ১৪৬,০০০ জন পোস্টম্যান ও গ্রামীণ ডাক সেবক সেই পরিষেবা দেওয়ার কাজ করবেন। স্মার্টফোন এবং বায়োমেট্রিক ডিভাইসের মাধ্যমে তাঁরা বিভিন্ন রকমের ব্যাঙ্কিং পরিষেবা প্রদান করবেন। আপাতত শুধুমাত্র আধার কার্ডের মোবাইল নম্বর সংশোধন বা আপডেটের পরিষেবা দিচ্ছে ইন্ডিয়া পোস্ট পেমেন্টস ব্যাঙ্ক। শীঘ্রই নিজস্ব নেটওয়ার্কের মাধ্যমে শিশুদের নথিভুক্তকরণের কাজও শুরু করা হবে বলে জানানো হয়েছে।

এমনিতে ‘এমআধার’ অ্যাপ বা mAadhaar অ্যাপের মাধ্যমে বাড়িতে বসেই পাবেন ৩৫ টি পরিষেবা মিলছে। ইউআইডিএআইয়ের তরফে জানানো হয়েছে, নিজের পকেটেই আধার কার্ড রাখার সুবিধা করে দেয় ‘এমআধার’ অ্যাপ। অর্থাৎ সেই অ্যাপের মাধ্যমে প্রয়োজনীয় কাজ করা হবে। সঙ্গে করে আধার কার্ডের হার্ডকপি রাখতে হবে না। একনজরে দেখে নিন ‘এমআধার’ অ্যাপের মাধ্যমে কী কী সুবিধা মিলবে?

১) ডাউনলোড করা যাবে আধার। পুনরায় আধার কার্ডের কপি করতে দেওয়া যাবে। হারিয়ে যাওয়া আধার কার্ডও ডাউনলোড করা যাবে।

২) অফলাইন মোডেও আধার দেখতে বা দেখাতে পারবেন। যা পরিচয়পত্র দেখানোর সময় কাজে লাগবে।

৩) নথি দিয়ে বা নথি ছাড়া আধারের ঠিকানা আপডেট করা।

৪) একটি মোবাইলের পরিবারের সদস্যদের (সর্বাধিক পাঁচজন) আধার রেখে দেওয়া বা নিয়ন্ত্রণ করা।

৫) বিভিন্ন পরিষেবা প্রদানকারী সংস্থাকে কাগজবিহীন ই-কেওয়াইসি বা কিআউ কোড দেওয়া।

৬) নিজের আধার বা বায়োমেট্রিক লক করে আধার কার্ড সুরক্ষিত রাখা।

৭) ভিআইডি জেনারেট করা বা পুনরুদ্ধার করা। যা আধার কার্ড সংক্রান্ত পরিষেবা পাওয়ার জন্য আধারের পরিবর্তে ব্যবহার করতে পারেন (যাঁরা নিজেদের আধারের তথ্য অন্যকে দিতে চান না বা যাঁরা নিজেদের আধার লক করে দিয়েছেন, তাঁদের জন্য)।

৮) অফলাইন মোডে আধার এসএমএস পরিষেবা ব্যবহার করা।

৯) আধারের জন্য নথিভুক্ত হওয়ার পর বা আধারের তথ্য আপডেটের পর সেই সংক্রান্ত তথ্য জানা যাবে।

১০) আধার সেবা কেন্দ্রে যাওয়ার জন্য সময় নির্ধারণ করা। অর্থাৎ অ্যাপয়েটমেন্ট নেওয়া।

১১) সফলভাবে আপডেট সম্পূর্ণ হলে নিজের আধার প্রোফাইলে সাম্প্রতিক তথ্য মিলবে।

১২) ইউআইডিএআই সাইট থেকে অনলাইনে আধার পরিষেবার জন্য এসএমএসের পরিবর্তে ওটিপি ব্যবহার করা যেতে পারে।

১৩) নিকটতম আধার নথিভুক্তির কেন্দ্র চিহ্নিত করা যাবে।

১৪) অ্যাপেই নিজেদের আধার কার্ড ডাউনলোড করে রাখতে পারবেন ‘এমআধার’ ব্যবহারকারীরা।

বন্ধ করুন