বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > Morbi Bridge Tragedy: মৌরবি সেতু মেরামতির চুক্তিতে বিরাট গলদ, রিপোর্ট চাইল আদালত

Morbi Bridge Tragedy: মৌরবি সেতু মেরামতির চুক্তিতে বিরাট গলদ, রিপোর্ট চাইল আদালত

মৌরবিতে ব্রিজে ভেঙে অন্তত ১৩৫জনের মৃত্যু হয়েছিল(HT Photo) (HT_PRINT)

অ্যাডভোকেট জেনারেল কমল ত্রিবেদী জানিয়েছেন, মৌরবি পুরসভা ও অজন্তার প্রমোটারদের মধ্যে একটা চুক্তি হয়েছিল। ব্রিজটির সংস্কার সংক্রান্ত এই চুক্তি। কিন্তু বোর্ডের সেটা অনুমোদন হওয়া বাকি ছিল। এমনকী ব্রিজটি চালু করার আগে কী ধরনের সংস্কার কাজ হয়েছিল তা নিয়ে কোনও আগাম তথ্য তারা পুরসভাকে জানায়নি।

মৌলিক পাঠক

গুজরাটের সেই মৌরবির ব্রিজকে দেখভাল, মেরামতির জন্য একটি বেসরকারি সংস্থার সঙ্গে চুক্তি করা হয়েছিল। সেই চুক্তিকে ঘিরে এবার প্রশ্ন তুলেছে গুজরাট হাইকোর্ট। গত ৩০ অক্টোবর এই ব্রিজ ভেঙেই ১৩৫জনের মৃত্যু হয়েছিল। সূত্রের খবর. অজন্তা-ওরেভা গ্রুপকে এই ব্রিজের দেখভালের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল।

ওরেভা গ্রুপ আর মৌরবি পুরসভার মধ্য়ে দেড় পাতার একটি চুক্তি হয়েছিল। তারপরই ব্রিজটির দায়িত্ব তাদের হাতে তুলে দেওয়া হয়। সেই চুক্তির ধরণ নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে আদালত।

প্রধান বিচারপতি অরবিন্দ কুমার গুজরাটের মুখ্য়সচিবকে প্রশ্ন করেন, গুজরাট মিউনিপ্যালিটি অ্যাক্টের বিশেষ ধারা কি চুক্তি হয়েছিল? দু সপ্তাহের মধ্যে জবাব তলব করেছে আদালত।

এদিকে আদালত জানিয়েছে ২০১৭ সালে ৯ বছরের চুক্তি শেষ হয়ে গিয়েছে। তারপরেও কেন আরও দুবছর তাকে ব্রিজের থেকে টোল আদায়ের জন্য ছাড়পত্র দেওয়া হয়েছিল।

পাশাপাশি আদালতের পর্যবেক্ষণ, মৌরবির জেলাশাসককে নানাভাবে ভুল বুঝিয়ে একটি চিঠি লেখা হয়েছিল, যে তাদের সঙ্গে দীর্ঘকালীন চুক্তি না করলে তাঁরা যথাযথ সংস্কার করতে পারবে না।

অ্যাডভোকেট জেনারেল কমল ত্রিবেদী জানিয়েছেন, মৌরবি পুরসভা ও অজন্তার প্রমোটারদের মধ্যে একটা চুক্তি হয়েছিল। ব্রিজটির সংস্কার সংক্রান্ত এই চুক্তি। কিন্তু বোর্ডের সেটা অনুমোদন হওয়া বাকি ছিল। এমনকী ব্রিজটি চালু করার আগে কী ধরনের সংস্কার কাজ হয়েছিল তা নিয়ে কোনও আগাম তথ্য তারা পুরসভাকে জানায়নি। এদিকে মৌরবির ঘটনার জেরে সংস্থার বিরুদ্ধে কোনও ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে নাকি তা জানতে চেয়েছে কোর্ট।

 

বন্ধ করুন