বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > রাতভর টানা বৃষ্টিতে বেহাল মুম্বই, বন্ধ বাস–ট্রেন, নীচু এলাকায় বন্যা পরিস্থিতি
জলে ডুবে মু্ম্বইয়ের রাস্তা। বুধবার। ছবি সৌজন্য : রয়টার্স (REUTERS)
জলে ডুবে মু্ম্বইয়ের রাস্তা। বুধবার। ছবি সৌজন্য : রয়টার্স (REUTERS)

রাতভর টানা বৃষ্টিতে বেহাল মুম্বই, বন্ধ বাস–ট্রেন, নীচু এলাকায় বন্যা পরিস্থিতি

  • এই কয়েক ঘণ্টায় মুম্বইয়ের শহরতলিতে মোট বৃষ্টির পরিমাণ ২৮৬.‌৪ মিমি। এ পর্যন্ত এই মরশুমে হওয়া এটি সবচেয়ে ভারী বৃষ্টিপাত।

মঙ্গলবার সন্ধে থেকে বুধবার সকাল পর্যন্ত টানা বৃষ্টিতে ভাসছে বাণিজ্যনগরী মুম্বই। বিভিন্ন জায়গা রীতিমতো প্লাবিত। হাঁটু–সমান জল নিয়েই রাস্তায় বেরোতে হচ্ছে মুম্বইবাসীকে। সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত নীচু এলাকাগুলি। সেখানে বন্যা পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। ওই সব এলাকার বাসিন্দাদের স্থানান্তর করার কাজ শুরু করেছে প্রশাসন। পুরোপুরি থমকে গিয়েছে বাস, ট্রেন পরিষেবা।

এই কয়েক ঘণ্টায় মুম্বইয়ের শহরতলিতে মোট বৃষ্টির পরিমাণ ২৮৬.‌৪ মিমি। এ পর্যন্ত এই মরশুমে হওয়া এটি সবচেয়ে ভারী বৃষ্টিপাত। গত ২৬ বছরের (‌১৯৯৪–২০২০)‌ মধ্যে সেপ্টেম্বরে ২৪ ঘণ্টা ব্যাপী হওয়া বৃষ্টিপাতের নিরিখে এদিনের বৃষ্টিপাত সর্বোচ্চ। আর ১৯৭৪ সাল থেকে ২০২০–র মধ্যে এটি সেপ্টেম্বরে হওয়া চতুর্থ সর্বোচ্চ ২৪ ঘণ্টার বৃষ্টিপাত।

মঙ্গলবার রাত থেকে অবিরাম বৃষ্টিতে মুম্বই মেট্রোপলিটনের বহু এলাকা জলমগ্ন হয়ে গিয়েছে। মধ্যরাতের দিকে বৃষ্টির তীব্রতা কিছুটা কমলেও রাত সোয়া ৩টার পর থেকে তীব্র বৃষ্টিপাতের সঙ্গে বজ্রপাতও হয়। সান্টাক্রুজ আবহাওয়া দফতরের হিসেব অনুযায়ী, মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৮টা থেকে বুধবার সকাল সাড়ে ৮টা পর্যন্ত সংশ্লিষ্ট শহরতলিতে ২৮৬.৪ মিমি বৃষ্টিপাত হয়েছে। কোলাবা আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে, দক্ষিণ মুম্বইয়ে হওয়া বৃষ্টিপাতের পরিমাণ ১৪৭.‌৮ মিমি।

ভারতীয় আবহাওয়া দফতরের ডেপুটি ডিরেক্টর জেনারেল (‌পশ্চিমাঞ্চল)‌ কে এস হোসালিকর জানিয়েছেন, বিশেষ করে মুম্বইয়ের পশ্চিম দিকে কোলাবা থেকে ভাইন্দর পর্যন্ত ঘন মেঘের আওতায় থাকায় এখানেই সবচেয়ে ভারী বৃষ্টি হয়েছে। বৃষ্টিপাতের তেজ বেড়েছে বুধবার ভোর সাড়ে ৩টে থেকে সাড়ে ৫টা পর্যন্ত। আগামী ২৪ ঘণ্টায় বৃষ্টিপাতের পরিমাণ আরও বাড়বে বলে জানানো হয়েছে। পালঘর, মুম্বই, থানে এবং রায়গড়ে কমলা সতর্কতা জারি করা হয়েছে। এই এলাকাগুলিতে বৃষ্টির পাশাপাশি ঝোড়ো হাওয়াও বইবে।

বন্ধ করুন