বাড়ি > ঘরে বাইরে > প্রিয়াঙ্কার রামস্তুতিতে ক্ষুব্ধ শরিক মুসলিম লিগ, বিতর্ক উস্কে দিলেন বিজয়ন
প্রিয়াঙ্কা গান্ধী 
প্রিয়াঙ্কা গান্ধী 

প্রিয়াঙ্কার রামস্তুতিতে ক্ষুব্ধ শরিক মুসলিম লিগ, বিতর্ক উস্কে দিলেন বিজয়ন

হিন্দি বলয়ের রাজনীতির বাধ্যবাধকতার ফলে কেরালায় বিপাকে কংগ্রেস

উত্তরপ্রদেশ রাজনীতির বাধ্যবাধ্যকতার কথা মাথায় রেখে প্রিয়াঙ্কা গান্ধীর রাম মন্দিরকে নিয়ে দেওয়া বিবৃতি। তার জেরে কেরালায় টলমল কংগ্রেস নেতৃত্বাধীন ইউডিএফ। সুযোগ পেয়ে কংগ্রেসকে ধর্মনিরপেক্ষতার পাঠ দিতে ভুললেন না কেরালার শাসক সিপিআইএমের মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়ন। 

প্রসঙ্গত অনেক কংগ্রেস নেতাই রাম মন্দিরের ভূমিপুজোকে স্বাগত জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন। কিন্তু যেহেতু প্রিয়াঙ্কা গান্ধী কংগ্রেসের প্রথম পরিবারের সদস্য, তাঁর কথার বিশেষ গুরুত্ব আছে। তিনি টুইটারে বলেন ভূমিপুজো জাতীয় ঐক্য, সংস্কৃতির আখড়া ও সম্প্রীতির নিদর্শন হোক, তিনি চান। রাহুল গান্ধীর টুইটে যদিও সরাসরি ভূমিপুজোর কথা ছিল না। 

প্রিয়াঙ্কার বার্তায় বেজায় খচেছে মুসলিম লিগ। জরুরি বৈঠকের শেষে তারা একটি বিবৃতিতে জানিয়েছে প্রিয়াঙ্কা গান্ধীর মন্তব্য অনভিপ্রেত। কংগ্রেসকে ধর্মনিরপেক্ষতার পথ থেকে না সরতে পরামর্শ দেয় শরিক মুসলিম লিগ। প্রিয়াঙ্কার টুইটের পরেই আপত্তি জানান মুসলিম লিগের সাংসদ মহম্মদ বসির। 

কংগ্রেস অবশ্য ড্যামেজ কন্ট্রোলে নেমেছে। প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী উমেন চান্ডি বলেন যে ইউডিএফ-এর বিশ্বাসযোগ্য শরিক আইইউএমএল। তাদের সঙ্গে কংগ্রেসের বিভেদ সৃষ্টির চেষ্টা করে লাভ নেই। অন্যদিকে কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক কেসি বেনুগোপাল লিগের নেতাদের ফোন করে কোনও ঝটতি সিদ্ধান্ত না নিতে আর্জি জানান। 

প্রসঙ্গত প্রায় ৪০ বছর কংগ্রেস নেতৃত্বাধীন ইউডিএফ-এর অংশ তারা। এর আগে যদিও তারা বামপন্থীদের সঙ্গে ছিল। কিন্তু সামনেই ভোট। তাই তাদের ফের কাছে টানার চেষ্টা করছে এলডিএফ। এখনই বেশ কিছু প্রাক্তন লিগ সদস্য বামপন্থী ফ্রন্টের সদস্য। 

লিগকে রাজনৈতিক ভাবে চাপে ফেলার জন্য বুধবার কংগ্রেসকে এই ইস্যুতে আক্রমণ করেন কেরালার মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়ন। তিনি বলেন যে কংগ্রেস নরম হিন্দুত্ব কার্ড খেলছে। কংগ্রেসের জন্য এই বিপত্তি বলে তিনি অভিযোগ করেন। বিজয়ন বলেন যে কে মন্দিরের দরজা খুলেছিল, করসেবা করতে কে দিয়েছিল। কংগ্রেস সর্বদাই এই হিন্দুত্বের কার্ড খেলে বলে অভিযোগ করে বিজয়ন বলেন তিনি প্রিয়াঙ্কা গান্ধীর কথায় আশ্চর্য হননি। 

তবে মুললিম লিগের অবস্থান তাঁর কাছে হাস্যকর লাগছে বলে জানান কেরালার মুখ্যমন্ত্রী। ছোটবড় বামপন্থী নেতারা এই নিয়ে কটাক্ষ করবেন, যাতে মুসলিম লিগের ওপর চাপ বাড়ে কংগ্রেস নেতৃত্বাধীন জোট ছেড়ে দেওয়ার জন্য। প্রসঙ্গত শশী থারুর বুধবার টুইটারে বিস্তারিত ভাবে বলেছেন যে কংগ্রেস আদৌ বিজেপিকে অনুসরন করছে না। রাম মন্দিরের বিরোধিতা কংগ্রেস কখনো করেনি, কিন্তু আলোচনার মাধ্যমে সেটি তৈরী হোক, এটা তারা চেয়েছিল বলে জানান কেরালার লোকসভার সাংসদ। 

 

বন্ধ করুন