বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > জনগণকে খুশি করতে বা ভোট ব্যাংকের জন্য নয়, জনগণের জন্য কাজ করেন মোদী: অমিত শাহ
কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ (ছবি সৌজন্যে পিটিআই) (PTI)
কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ (ছবি সৌজন্যে পিটিআই) (PTI)

জনগণকে খুশি করতে বা ভোট ব্যাংকের জন্য নয়, জনগণের জন্য কাজ করেন মোদী: অমিত শাহ

  • সুশাসন দিবস উপলক্ষে নয়াদিল্লিতে একটি অনুষ্ঠানে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ বক্তব্য রাখেন শনিবার।

জনগণের চাপে নয়, জনগণের জন্য কাজ করে মোদী সরকার। রাজধানীতে এক অনুষ্ঠানে এমনই দাবি করলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ।  সুশাসন দিবস উপলক্ষে নয়াদিল্লিতে অনুষ্ঠানে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ শনিবার বলেন, ‘গত ২১টি সরকার তাদের ভোট ব্যাংকের কথা মাথায় রেখে সিদ্ধান্ত নিয়েছে। নরেন্দ্র মোদী সরকার কখনই এমন সিদ্ধান্ত নেয়নি যা জনগণের কাছে 'ভালো দেখায়', তিনি সর্বদা এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন যা জনগণের 'ভালো' করেছে।’ 

এদিন শাহ বলেন, ‘নরেন্দ্র মোদী ও তাঁর সরকার কখনওই জনগণ যা চায় তার উপর ভিত্তি করে সিদ্ধান্ত নেয়নি। তবে এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে যা জনগণের জন্য ভালো। এমনকি প্রতিবাদ এবং রাজনৈতিক ক্ষতির সম্ভাবনার কথা জেনেও কঠোর পদক্ষেপ নিতে পিছ পা হয়নি কেন্দ্রীয় সরকার।’

তিনি বলেন, ‘মোদি ভিন্ন পথ অসুরণ করছেন। কিছু তিক্ততা, প্রতিবাদ এবং রাজনৈতিক ক্ষতির মুখে দলকে পড়তে হলেও মোদী অটল। প্রতিবাদের মুখোমুখি হতে, এবং সেই কারণে রাজনৈতিক ক্ষতি সহ্য করেও জনগণের মঙ্গলের জন্য সিদ্ধান্ত নেন মোদী। এটি কেবল সুশাসনের প্রতি গভীর প্রতিশ্রুতিবদ্ধ ব্যক্তিই করতে পারেন। যাঁরা এই ধরনের সুশাসনের ফলাফল সম্পর্কে নিশ্চিত। মোদী এটা করেছেন। সে কারণেই তিনি জনগণের আস্থা অর্জন করেছেন।’

শাহ সুশাসনের দিকে সরকারের দৃষ্টিভঙ্গির প্রমাণ দিতে বেশ কিছু উদাহরণ তুলে ধরেন। দরিদ্রদের বিনামূল্যে আবাসন, টয়লেট, গ্যাস সিলিন্ডার, পানীয় জল এবং চিকিৎসা বীমা দেওয়ার প্রকল্পগুলির উল্লেখ করে মোদী সরকারের প্রশংসা করেন শাহ। কোভিড মহামারী চলাকালীন দেশের ৮০ কোটি মানুষ কীভাবে সরকারের কাছ থেকে বিনামূল্যে রেশন পেয়েছিলেন তাও মনে করিয়ে দেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

কৃষকদের কল্যাণের কথা বলতে গিয়ে শাহ বলেন, ‘গড়ে একজন ক্ষুদ্র কৃষকের প্রতি বছর ছয় থেকে আট হাজার টাকার মধ্যে কৃষি ঋণের প্রয়োজন হয়। তাই সরকার প্রধানমন্ত্রী কিষাণ নিধি প্রকল্পের মাধ্যমে কৃষকদের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে বছরে ছয় হাজার টাকা সরাসরি পাঠিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।’

বন্ধ করুন