বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > Modi on MiG29K Landing on INS Vikrant: 'আত্মনির্ভরতার প্রয়াস পুরোদমে চলছে', INS বিক্রান্ত,MiG29K-র 'মিলনে' আপ্লুত মোদী

Modi on MiG29K Landing on INS Vikrant: 'আত্মনির্ভরতার প্রয়াস পুরোদমে চলছে', INS বিক্রান্ত,MiG29K-র 'মিলনে' আপ্লুত মোদী

INS বিক্রান্ত ও তেজসের 'মিলনে' আপ্লুত মোদী (PTI)

প্রতিরক্ষা ক্ষেত্রে আত্মনির্ভরতার ক্ষেত্রে ঐতিহাসিক পদক্ষেপ করেছে ভারত। গতকাল দেশীয় এয়ারক্রাফট ক্যারিয়ার আইএনএস বিক্রান্তে অবতরণ করে ভারতে তৈরি ‘লাইট কমব্যাট এয়ারক্রাফট’ মিগ২৯কে।

প্রতিরক্ষা ক্ষেত্রে আত্মনির্ভরতার ক্ষেত্রে ঐতিহাসিক পদক্ষেপ করেছে ভারত। গতকাল দেশীয় এয়ারক্রাফট ক্যারিয়ার আইএনএস বিক্রান্তে অবতরণ করে ভারতে তৈরি ‘লাইট কমব্যাট এয়ারক্রাফট’ মিগ২৯কে। আর তা নিয়ে আপ্লুত প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এক টুইটে প্রধানমন্ত্রী লেখেন, 'চমৎকার! আত্মনির্ভরতার প্রয়াস পুরোদমে চলছে।' প্রসঙ্গত, গত বছর সেপ্টেম্বরে ভারতীয় নৌবাহিনীতে অন্তর্ভু্ক্ত হয়েছে আইএনএস বিক্রান্ত। প্রধানমন্ত্রী মোদী গতবছর সেপ্টেম্বরেই আইএনএস বিক্রান্তকে কমিশন করেন।

উল্লেখ্য, এই যুদ্ধ জাহাজ ২৬২ মিটার লম্বা ও ৬২ মিটার চওড়া। উচ্চতায় ৫৯ মিটার। আইএনএস বিক্রান্তে ব্যবহৃত ইস্পাত ভারতে তৈরি। আইএনএস বিক্রান্তে ব্যবহৃত তারগুলি কোচি থেকে কাশী পর্যন্ত প্রসারিত হতে পারে। আইএনএস বিক্রান্ত দুটি ফুটবল মাঠের মতো বড়। এটি যে বিদ্যুৎ উৎপাদন করতে পারে তা পাঁচ হাজার ঘরকে আলোকিত করতে পারে। এহেন আইএনএস বিক্রান্তে হালকা যুদ্ধবিমানের একটি প্রটোটাইপ অবতরণ করে। এই পরীক্ষা সফল হওয়ার বিষয়টি ভারতীয় নৌবাহিনীর জন্য নজিরবিহীন। এই সফল পরীক্ষণের পর এক বিবৃতিতে নৌসেনার তরফে জানানো হয়েছে, আত্মনির্ভর ভারতের লক্ষ্যে এক ঐতিহাসিক মাইলফলক অর্জন করল নৌসেনা।

মনে করা হচ্ছে, এই সফল পরীক্ষার ফলে শীঘ্রই ভারতীয় প্রযুক্তিতে তৈরি আইএনএস বিক্রান্তকে পুরোপুরিভাবে কাজে লাগানো যাবে। এরফলে নৌবাহিনীর ক্ষমতা ও যুদ্ধ প্রস্তুতি আরও বাড়বে। জানা গিয়েছে, আইএনএস বিক্রান্তের জন্য ২৬টি এরকম হালকা যুদ্ধবিমান কেনার পরিকল্পনা রয়েছে নৌসেনার। উল্লেখ্য, ভারতীয় প্রযুক্তিতে তৈরি রণতরী আইএনএস বিক্রান্তে ২ হাজার ৩০০টি কমপার্টমেন্ট আছে। ১ হাজার ৭০০ জন একসঙ্গে এই যুদ্ধ জাহাজে থাকতে পারবেন। মহিলা অফিসারদের জন্য বিশেষ কেবিনও রয়েছে এই রণতরীতে। ২০ হাজার কোটি টাকা খরচ করে তৈরি করা হয়েছে ৪৫ হাজার টনের এই যুদ্ধজাহাজ। এই রণতরী নির্মাণ করতে এক দশকেরও বেশি সময় লেগেছে। ৩০টি বিমান ওঠানামা করতে পারবে এই যুদ্ধবিমানে। মিগ-২৯কে-র মতো যুদ্ধবিমান ওঠানামা করতে পারবে বিক্রান্তে। 

প্রসঙ্গত, ১৯৭১ সালে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে যুদ্ধের সময় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছিল পুরোনো ‘আইএনএস বিক্রান্ত’। তবে সেটি অবসরে গিয়েছে। এর বদলে এখন নৌবাহিনর হাতে এসেছে ভারতে তৈরি নয়া ‘আইএনএস বিক্রান্ত’। এই আবহে আমেরিকা, ব্রিটেন, রাশিয়া, চিন, ফ্রান্সের মতো দেশের মতো এবার ভারতও নিজেদের প্রযুক্তিতে যুদ্ধবিমানবাহী রণতরী তৈরিতে নিজেদের নৈপুণ্য দেখাল। বিশেষজ্ঞদের মতে, পাকিস্তান ও চিনের বুকে এই রণতরী ভয় ধরানোর পক্ষে যথেষ্ট।

 

ঘরে বাইরে খবর

Latest News

'বাবারা হার্টথ্রব হয় না?' ৬০০-র মঞ্চে কেন বললেন 'সোহাগ চাঁদ'-র অভিষেক? অভিষেককে নিয়ে মিম বানাতেন 'সোহাগ', আঁতকে উঠলেন চাঁদ, তারপর বললেন.... ৮.৫ লাখ টাকা আয় হলেও কর ; পেনশনে ছাড়- আয়কর নিয়ে বাজেটে কী কী উপহার আসতে পারে? রাত পোহালেই বাজেট ২০২৪-২৫! নির্মলার ভাষণ থেকে কী কী আশা করছে দেশ? সচিনের সর্বোচ্চ টেস্ট রানের রেকর্ড ভেঙে দিতে পারেন রুট-বড় দাবি ইংরেজ প্রাক্তনীর দশম অ্যালবাম নিয়ে ফিরছে ‘চন্দ্রবিন্দু’, ১২ বছর পর কোন চমক দেখাবে অনিন্দ্য-উপলরা? শুভেন্দুর বিরুদ্ধে নালিশ শুনলেন না সুনীল বনসল, কার্যকর্তারা পড়লেন প্রশ্নের মুখে রেলের টিকিটে ছাড় থেকে কর ইস্যু,সিনিয়ার সিটিজেনদের মুখে হাসি ফোটাতে পারবেন FM? অভিষেকেই ৭ উইকেট, ODI-এ সর্বকালের রেকর্ড ভেঙে ইতিহাস স্কটল্যান্ডের অনামী পেসারের দরজায় কড়া নাড়লে পাশে থাকব, মমতার বাংলাদেশ নিয়ে মন্তব্যের রিপোর্ট তলব বোসের

Copyright © 2024 HT Digital Streams Limited. All RightsReserved.