বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > NCPCR Report: গত ১৬ মাসে ১ লক্ষাধিক শিশু অনাথ অথবা একজন অভিভাবককে হারিয়েছে
কোভিড অতিমারিতে হাজার হাজার শিশু অনাথ হয়েছে। প্রতীকী ছবি : রয়টার্স  (HT_PRINT)
কোভিড অতিমারিতে হাজার হাজার শিশু অনাথ হয়েছে। প্রতীকী ছবি : রয়টার্স  (HT_PRINT)

NCPCR Report: গত ১৬ মাসে ১ লক্ষাধিক শিশু অনাথ অথবা একজন অভিভাবককে হারিয়েছে

  • গত ২৭শে জুলাই অনাথ হওয়া শিশুদের সম্পর্কে আদালতের কাছে পশ্চিমবঙ্গ থেকে যে তথ্য় জমা পড়েছিল তাতে আদালত একেবারে সন্তুষ্ট ছিল না।

কোভিড অতিমারি নিয়ে এবার শিউরে ওঠার মতোই পরিসংখ্যান হাজির করেছে National Commission for protection of Child Rights(NCPCR)। বুধবার সুপ্রিম কোর্টে জমা দেওয়া এই পরিসংখ্যান অনুসারে জানা গিয়েছে কোভিডের প্রথম ও দ্বিতীয় ঢেউতে ১ লক্ষেরও বেশি শিশু তাদের বাবা মা অথবা একজন অভিভাবককে হারিয়েছে। ২০২০ সালের ১লা এপ্রিল থেকে ২০২১ সালের ২৩শে অগস্ট। এই সময়কালের মধ্যে প্রায় ১ লক্ষ ১ হাজার ৩২জন শিশু কোভিডের জেরে অথবা অন্যান্য কারণে হয় পুরোপুরি অনাথ হয়ে গিয়েছে অথবা অভিভাবকদের মধ্যে একজনকে চারদিনের জন্য় হারিয়েছে। বাল স্বরাজ নামে একটি ওয়েবসাইট চালায় কমিশন। সেখানেই অনাথ শিশুদের সম্পর্কে তথ্য দেওয়া থাকে। কমিশনের তরফ থেকে এফিডেভিটে এই অনাথ শিশুদের সম্পর্কে তথ্য আদালতে জমা দেওয়া হয়েছে। 

অন্য একটি পরিসংখ্যানে কমিশন জানিয়েছে রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের মাধ্যমে যে তথ্য় ওয়েবসাইটে আপলোড করা হয়েছে সেটাতে দেখা যাচ্ছে কোভিড ছাড়াও অন্যান্য কারনেও তারা তাদের অভিভাবকদের হারিয়েছে। কোভিড অতিমারিতে অনাথ হয়ে যাওয়া শিশুদের খাদ্য, আশ্রয় ও শিক্ষার ব্যবস্থা সম্পর্কে জানতে একটি সুয়ো মোটো পিটিশনের পরিপ্রেক্ষিতেই অনাথ শিশুদের সম্পর্কে এই পরিসংখ্যান আদালতে হাজির করেছে কমিশন। 

এদিকে গত ২৭শে জুলাই কোভিড অতিমারিতে অনাথ হওয়া শিশুদের সম্পর্কে আদালতের কাছে পশ্চিমবঙ্গ থেকে যে তথ্য় জমা পড়েছিল তাতে আদালত একেবারে সন্তুষ্ট ছিল না। সেই সময় রাজ্যের দেওয়া পরিসংখ্যানে দেখা গিয়েছিল ২৭জন অনাথ রয়েছে. ৩জন পরিত্যক্ত শিশু রয়েছে ও ১ হাজার ২০জন শিশু রয়েছে যারা একজন অভিভাবককে হারিয়েছে। তবে আদালতের কাছে বিশ্বাসযোগ্য হয়নি এই তথ্য। এদিকে এবারের তথ্যে দেখা যাচ্ছে পশ্চিমবঙ্গে ২০২০ সালের এপ্রিল মাস থেতে এবছরের ২৩শে অগস্ট পর্যন্ত ৩০৮জন অনাথ, ৬২৭০জন শিশু একজন অভিভাবককে হারিয়েছে। ২জন শিশু পরিত্যক্ত অবস্থায় রয়েছে।

 

 

 

বন্ধ করুন