বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > 'ব্রা ছাড়া NEET দিয়েছি', অভিযোগ আরও ছাত্রীর, গ্রেফতার পরীক্ষার পর্যবেক্ষকও
NEET Bra Controversy: কেরলে ব্রা খুলে নিট পরীক্ষা দিতে বাধ্য করার বিষয়টি নিয়ে বিতর্ক ক্রমশ বাড়ছে। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্যে এএনআই)

'ব্রা ছাড়া NEET দিয়েছি', অভিযোগ আরও ছাত্রীর, গ্রেফতার পরীক্ষার পর্যবেক্ষকও

  • NEET Bra Controversy: ছাত্রীদের দাবি, সুরক্ষা সংক্রান্ত অজুহাত দেখিয়ে পরীক্ষাকেন্দ্রের বাইরে তাঁদের ব্রা খুলতে বাধ্য করা হয়। পুলিশ জানিয়েছে, দক্ষিণ কেরলের কোল্লাম জেলার আয়ুরে মারথুমা কলেজের সহ-অধ্যক্ষ প্রিজি কুরিয়ান আইজ্যাক এবং পরীক্ষা পর্যবেক্ষক এম শাম্নাদকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

কেরলে ব্রা খুলে নিট পরীক্ষা দিতে বাধ্য করার বিষয়টি নিয়ে বিতর্ক ক্রমশ বাড়ছে। একই অভিযোগ তুললেন আরও কয়েকজন পড়ুয়া। তাঁদের দাবি, সুরক্ষা সংক্রান্ত অজুহাত দেখিয়ে পরীক্ষাকেন্দ্রের বাইরে তাঁদের ব্রা খুলতে বাধ্য করা হয়। তারইমধ্যে সেই ঘটনায় আরও দু'জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

পুলিশ জানিয়েছে, দক্ষিণ কেরলের কোল্লাম জেলার আয়ুরে মারথুমা কলেজের সহ-অধ্যক্ষ প্রিজি কুরিয়ান আইজ্যাক এবং পরীক্ষা পর্যবেক্ষক এম শাম্নাদকে গ্রেফতার করা হয়েছে। যে ঘটনায় ইতিমধ্যে পাঁচ মহিলাকে গ্রেফতার করা হয়েছিল। তারপর অভিযোগ উঠেছিল যে শুধুমাত্র নীচুতলার কর্মী এবং আংশিক সময়ের নিরাপত্তারক্ষীদের বলির পাঁঠা করা হচ্ছে।

আরও পড়ুন: কেন NEET পরীক্ষার্থীদের ব্রা খুলতে বলা হয়েছিল? ৫ মহিলা কর্মীকে আটক করল পুলিশ

গত রবিবার দেশজুড়ে মেডিক্যাল প্রবেশিকা পরীক্ষা হয়েছে। কোল্লামের ওই কলেজের বিরুদ্ধে ছাত্রীদের ব্রা খুলে পরীক্ষা নিতে বাধ্য করার অভিযোগ ওঠে। প্রাথমিকভাবে এক ছাত্রীর বাবা এবং মা সেই অভিযোগ করেন। পরে আরও অনেক ছাত্রী মুখ খোলেন। তাঁরা দাবি করেন, নিয়মমাফিক সিকিউরিটি চেকের সময় মেটাল ডিটেকশন মেশিনে ‘বিপ’ আওয়াজ হয়। ধাতব হুক থাকায় ব্রা খুলে পরীক্ষা দিতে বাধ্য করা হয় ছাত্রীদের। একটি টেবিলে ব্রা জড়ো করে রাখা হয়। পোশাক পরিবর্তনেরও কোনও সুযোগ ছিল না বলে দাবি করেছেন ছাত্রীরা।

আরও পড়ুন: NEET Exam Bra Row: ‘ভয়ানক’, ব্রা ছাড়া ছেলেদের মাঝে বসে NEET পরীক্ষা দেওয়ার অভিজ্ঞতা জানালেন যুবতী

বিষয়টি সামনে আসতেই দেশজুড়ে বিতর্ক শুরু হয়। একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে নিটের আয়োজক সংস্থা ন্যাশনাল টেস্টিং এজেন্সি (এনটিএ)। চার সপ্তাহের মধ্যে রিপোর্ট জমা দিতে বলা হয়েছে। সেই ঘটনায় পুলিশের থেকে রিপোর্ট তলব করেছে জাতীয় মহিলা কমিশন এবং রাজ্য মানবাধিকার কমিশন।

বন্ধ করুন