বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > নতুন সংসদ ভবন নির্মাণের খরচ ৯৭১ কোটি টাকা:‌ সাংসদ মালা রায়ের প্রশ্নে বলল কেন্দ্র
নতুন সংসদ ভবনের প্রস্তাবিত নকশা। ছবি : সংগৃহীত
নতুন সংসদ ভবনের প্রস্তাবিত নকশা। ছবি : সংগৃহীত

নতুন সংসদ ভবন নির্মাণের খরচ ৯৭১ কোটি টাকা:‌ সাংসদ মালা রায়ের প্রশ্নে বলল কেন্দ্র

  • মঙ্গলবার সংসদে কেন্দ্রীয় আবাসন ও নগর বিষয়ক মন্ত্রী হরদীপ পুরী জানালেন, নতুন সংসদ ভবন তৈরি করতে মোট খরচ পড়বে ৯৭১ কোটি টাকা।

অনিশা দত্ত

এবার কেন্দ্রের প্রাথমিক অনুমানের তুলনায় ৮২ কোটি টাকা বাড়ল নতুন সংসদ ভবন নির্মাণের খরচ। মঙ্গলবার সংসদে কেন্দ্রীয় আবাসন ও নগর বিষয়ক মন্ত্রী হরদীপ পুরী জানালেন, নতুন সংসদ ভবন তৈরি করতে মোট খরচ পড়বে ৯৭১ কোটি টাকা। তিনি আরও জানান, নতুন সংসদ ভবন নির্মাণের টেন্ডার যাচাই করা হচ্ছে, একইসময়ে ওই ভবনের অন্য স্থাপত্যগুলি পরিকল্পনার পর্যায়ে রয়েছে। এদিন লোকসভায় ‌তৃণমূল সাংসদ মালা রায়ের প্রশ্নের উত্তরে এ কথা জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় আবাসন মন্ত্রী হরদীপ পুরী।

তিনি জানান, নতুন সংসদ ভবন নির্মাণের জন্য আনুমানিক ৯৭১ কোটি টাকা ব্যয় হবে। পরিকল্পনা বাস্তবায়নের পর অন্যান্য ভবন তৈরির আনুমানিক খরচ এবং সেন্ট্রাল ভিস্তা অ্যাভিনিউয়ের উন্নয়ন এবং পুনর্নবীকরণের ব্যাপারে ভাবা হবে।

গত সপ্তাহে বুধবার সংসদ চত্বর নির্মাণের জন্য বিডিং প্রক্রিয়া শুরু হলে এর জন্য ৮৬১.৯০ কোটি দর হাঁকে টাটা প্রজেক্টস লিমিটেড। দুই দরদাতার মধ্যে টাটা গোষ্ঠীর দর কম থাকায় তাদেরই নতুন সংসদ নির্মাণের বরাত দেওয়া হয় বলে জানা গিয়েছে। তবে কেন্দ্রীয় পিডব্লিউডি দফতরের টেন্ডার অনুযায়ী, নতুন ভবন নির্মাণ করতে আনুমানিক ৮৮৯ কোটি টাকা খরচ হবে।

মঙ্গলবার তৃণমূল সাংসদ মালা রায় কেন্দ্রের কাছ থেকে এটাই জানতে চান যে, দেশের এই অর্থনৈতিক টালমাটাল পরিস্থিতিতে এই খরচসাপেক্ষ প্রকল্পের পেছনে যুক্তি কী?‌ তার উত্তরে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হরদীপ পুরী জানান, ৯৩ বছর পুরনো এই সংসদ ভবনে যা সুযোগ–সুবিধা রয়েছে তা বর্তমান সময়ের অনেক ধরনের চাহিদা মেটাতে অপারগ।

এর আগে সেন্ট্রাল ভিস্তার পুনর্নির্মাণ প্রকল্পের সিদ্ধান্ত বিভিন্ন মহল থেকে সমালোচিত হয়েছে। বিরোধীরা মহামারী পরিস্থিতিতে প্রায় ২০ হাজার কোটি টাকার এই প্রকল্প স্থগিত করার আহ্বান জানায়। কিছু সংরক্ষণবাদী যুক্তি দিয়েছেন, এই পরিবর্তন দিল্লির ঐতিহাসিক চরিত্রকেই বদলে দেবে। তবে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হরদীপ পুরীর বক্তব্য, বর্তমান অর্থনৈতিক পরিস্থিতিতে এই প্রকল্প প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে প্রচুর কর্মসংস্থান সৃষ্টি করবে। টেন্ডার অনুযায়ী, পূর্বনির্ধারিত সময়সীমা ২১ মাসের মধ্যে নতুন ভবন নির্মাণের কাজ সম্পন্ন করতে হবে।

বন্ধ করুন