সোমবার কুইন্স-এর মাউন্ট সিনাই হাসপাতালের সামনে দাঁড়িয়ে সপরিবারে হাততালি দিয়ে স্বাস্থ্যকর্মীদের অভিনন্দন। ছবি: এএফপি। (AFP)
সোমবার কুইন্স-এর মাউন্ট সিনাই হাসপাতালের সামনে দাঁড়িয়ে সপরিবারে হাততালি দিয়ে স্বাস্থ্যকর্মীদের অভিনন্দন। ছবি: এএফপি। (AFP)

কঠিনতম সময় পেরিয়ে এসেছি, ১০ হাজার মৃত্যুর পরে ঘোষণা নিউ ইয়র্কের গভর্নরের

গত ২৪ ঘণ্টায় নিউ ইয়র্কে ৬৭১ জন সংক্রমণে মারা গিয়েছেন। এর জেরে রাজ্যে মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১০,০৫৬।

করোনা সংক্রমণে মৃতের সংখ্যা ১০,০০০ অতিক্রম করলেও আমেরিকা ‘কঠিনতম সময় পেরিয়ে গিয়েছে’ বলে মনে করছেন নিউ ইয়র্কের গভর্নর অ্যান্ড্রু কুয়োমো। পাশাপাশি বেশ কিছু রাজ্যে বন্ধ ব্যবসা ও দোকান-পাট খুলতে উদ্যোগী হয়েছে প্রশাসন।

সোমবার কুয়োমো জানিয়েছেন, সম্প্রতি হাসপাতালে ভরতি করা এবং আইসিইউ পরিষেবার অধীনে থাকা রোগীর সংখ্যা বেশ কিছু কমেছে। তাঁর দাবি, বুদ্ধিদীপ্ত পদক্ষেপ বজায় রাখার কারণে Covid-19 সমস্যা থেকে অনেকটাই মুক্তির পথে আমেরিকা।

সংবাদমাধ্যমকে তিনি জানান, ‘সবচেয়ে খারাপ সময় আমরা পেরিয়ে এসেছি যদি আগামী পদক্ষেপও আমরা বিচক্ষণতার সঙ্গে করি। আমার বিশ্বাস, এবার স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে আসার প্রক্রিয়া শুরু করা দরকার।’

ডেমোক্র্যাট গভর্নর জানিয়েছেন, গত ২৪ ঘণ্টায় নিউ ইয়র্কে ৬৭১ জন সংক্রমণে মারা গিয়েছেন। এর জেরে রাজ্যে মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১০,০৫৬। গত ৫ এপ্রিলের পরে এ দিনই সবচেয়ে কম রোগীর মৃত্যু হয়েছে নিউ ইয়র্কে।

এ দিন বিকেলে প্রতিবেশী নিউ জার্সি, কানেক্টিকাট, পেনসিলভ্যানিয়া, জেলাওয়্যার ও রোড আইল্যান্ডের গভর্নরদের সঙ্গে বৈঠকে বসেন কুয়োমো। স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরতে তাঁরা একটি টাস্ক ফোর্স গঠনের ঘোষণা করেছেন।

অন্য দিকে, স্বাভাবিক বাণিজ্য প্রক্রিয়া চালু করার বিষয়ে যৌথ সিদ্ধান্তে পৌঁছেছেন আমেরিকার পশ্চিম উপকূলের রাজ্য ক্যালিফোর্নিয়া, ওরেগন ও ওয়াশিংটনের গভর্নররাও।

তার আগে আমেরিকার প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প টুইটারে ঘোষণা করেন, লকডাউন তুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত একমাত্র তিনিই নিতে পারেন, যদিও প্রতিটি রাজ্যে আলাদা ভাবে লকডাউন আরোপ করেছিলেন সংশ্লিষ্ট রাজ্যের গভর্নররাই।

এ দিন কুয়োমো আরও জানিয়েছেন যে, পূর্ব উপকূলের ৬টি রাজ্যের প্রতিটি থেকে তিন জন আধিকারিককে নিয়ে তৈরি টাস্ক ফোর্স স্কুল ও ব্যসায়িক প্রতিষ্ঠানগুলি পুনরায় চালু করার বিষয়ে কাজ করবেন।

বন্ধ করুন