বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > নার্সের হাত ফস্কে পড়ে সদ্যোজাতর মৃত্যু! দোষ ঢাকতে ঘৃণ্য 'মিথ্যাচার'-এর অভিযোগ হাসপাতালের বিরুদ্ধে
সদ্যোজাতর মৃত্যু ঘিরে তোলপাড় লখনউ  (ছবি-ইন্টারনেট)
সদ্যোজাতর মৃত্যু ঘিরে তোলপাড় লখনউ  (ছবি-ইন্টারনেট)

নার্সের হাত ফস্কে পড়ে সদ্যোজাতর মৃত্যু! দোষ ঢাকতে ঘৃণ্য 'মিথ্যাচার'-এর অভিযোগ হাসপাতালের বিরুদ্ধে

  • গোটা ঘটনাটি ঘটে যায় ১৯ এপ্রিল। এরপর তা এক সাংবাদিকের নজরে আসতেই খবরে উঠে আসে। জানা গিয়েছে, ১৯ এপ্রিলের রাতে সন্তানসম্ভবা ওই মহিলাকে প্রসব যন্ত্রণারত অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেই রাতে সন্তানের জন্ম হয়। অভিযোগকারী পরিবারের তরফে দাবি করা হয়, সন্তানের স্বাভাবিক জন্ম হয়েছে বলেও স্বামীকে জানিয়েছিলেন ওই মহি

সবেমাত্র জন্মেছিল ফুটফুটে সন্তান। আর সেই সন্তানই নার্সের হাত ফস্কে মাটিতে পড়ে। মুহূর্তে ছোট্ট শরীর সজোরে গিয়ে পড়ে হাসপাতালের মেঝেতে। এরপর নিমেষে মৃত্যু। শেষ হয় ছোট্ট প্রাণ। এই ঘটনা উত্তরপ্রদেশের লখনউয়ের চিনহাটের এক প্রাইভেট হাসপাতালের। ঘটনা এখানেই শেষ নয়। দোষ ঢাকতে হাসপাতাল এরপর যে ঘৃণ্য মিথ্যাচারটি করেছে বলে অভিযোগ, তা নিয়ে ক্রমেই ক্ষোভ বাড়ছে মৃতের পরিবারের মধ্যে।

শিশুর মৃত্যুর পর, তার মাকে হাসপাতাল জানায়, যে শিশুটি মৃত অবস্থাতেই জন্মেছিল। এমনই অভিযোগ হাসপাতালের বিরুদ্ধে। এদিকে, কান্নায় ভেঙে পড়া মা ও শিশুর পরিবার পরে গিয়ে জানতে পারে আসল সত্য। জানা গিয়েছে, সদ্যোজাতকে কোনও রকম টাওয়েল বা কাঁথায় না মুড়ে খালি হাতে নিয়ে হাসপাতালের মধ্য দিয়ে ওই নার্স যাচ্ছিলেন। আর সেই সময়ই ঘটে যায় বিপত্তি। গোটা ঘটনার সত্যতা ধরা পড়ে পোস্ট মর্টেম রিপোর্টে। সেখানে দেখা যায়, ওই ছোট্ট শিশুর মাথায় আঘাতের প্রমাণ রয়েছে। যা থেকে বলা যায়, যে শিশুটি কোথাও পড়ে গিয়েছিল। মাথায় আঘাত লেগেই সদ্যোজাতর মৃত্যু হয়েছে বলে জানায় পোস্ট মর্টেম রিপোর্ট। জানা গিয়েছে, হাসপাতালের নির্দেশেই ঘটনার তদন্ত করতে পোস্ট মর্টেম হয়। গোটা ঘটনা নিয়ে দায়ের হয়েছে পুলিশে অভিযোগ। হাসপাতালের বিরুদ্ধে চরম উদাসিনতার অভিযোগ এনেছে পরিবার। আরও পড়ুন-কম IQ সম্পন্ন ব্যক্তির মৃত্যুদণ্ড মাদকপাচার মামলায়! সরব ধনকুবের থেকে অভিনেতা

উল্লেখ্য, গোটা ঘটনাটি ঘটে যায় ১৯ এপ্রিল। এরপর তা এক সাংবাদিকের নজরে আসতেই খবরে উঠে আসে। জানা গিয়েছে, ১৯ এপ্রিলের রাতে সন্তানসম্ভবা ওই মহিলাকে প্রসব যন্ত্রণারত অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেই রাতে সন্তানের জন্ম হয়। অভিযোগকারী পরিবারের তরফে দাবি করা হয়, সন্তানের স্বাভাবিক জন্ম হয়েছে বলেও স্বামীকে জানিয়েছিলেন ওই মহিলা। তখনই তন্দ্রাচ্ছন্ন অবস্থায় তিনি দেখতে পান, কোনও টাওয়েল জড়ানো ছাড়াই একজন নার্স সদ্যোজাতকে হাতে নিয়ে যাচ্ছেন। তখনও তাঁর সন্তান জীবীত ছিল বলেই দাবি করেছেন সদ্যোজাতর মা। সেই সময়ই তিনি দেখতে পান যে, নার্সের হাত থেকে তাঁর সন্তান পড়ে যায়। মুহূর্তে বাকি স্টাফরা মহিলার কণ্ঠরোধ করতে উদ্যত হন। তাঁকে হুমকিও দেওয়া হয় বলে অভিযোগ।

বন্ধ করুন