বাড়ি > ঘরে বাইরে > ইচ্ছাকৃত ঋণখেলাপিদের থেকে উদ্ধার প্রায় ১৮,৩৩৩ কোটি টাকা, জানালেন সীতারামন
কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন (ফাইল ছবি, সৌজন্য পিটিআই)
কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন (ফাইল ছবি, সৌজন্য পিটিআই)

ইচ্ছাকৃত ঋণখেলাপিদের থেকে উদ্ধার প্রায় ১৮,৩৩৩ কোটি টাকা, জানালেন সীতারামন

কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রীর অভিযোগ, ইউপিএ জমানায় অসংখ্য ঋণ মকুব করা হয়েছে।

কংগ্রেসের অভিযোগের জবাবে একদিকে আর্থিক দুর্নীতির দায়ে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে সরকারের কড়া পদক্ষেপের খতিয়ান তুলে ধরলেন। অন্যদিকে, কংগ্রেসের ঘাড়ে ঋণ মকুবের দায় ঠেললেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন।

আরও পড়ুন : Covid-19: করোনা নিয়ে আটটি চিঠি লিখলাম, একটিরও উত্তর দিলেন না নির্মলা সীতারামন: অমিত মিত্র

মঙ্গলবার রাতে একগুচ্ছ টুইটে কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী দাবি করেন, ইচ্ছাকৃত ঋণখেলাপিরদের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ করছে সরকার। কোনও ঋণ মকুব করা হয়নি। বিজয় মালিয়া, নীরব মোদী, মেহুল চোকসি-সহ আর্থিক দুর্নীতির দায়ে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ৯,৯৬৭ টি মামলা রুজু হয়েছে। ৩,৫১৫ টি এফআইআর দায়ের হয়েছে। পাশাপাশি, ইচ্ছাকৃত ঋণখেলাপিদের থেকে ১৮,৩৩২.৭ কোটি টাকা উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানান অর্থমন্ত্রী।

সোমবার কংগ্রেস অভিযোগ করেছিল, নীরব, মালিয়া-সহ ৫০ জন ঋণখেলাপির ৬৮,৬০৭ কোটি টাকার ঋণ মকুব করে দিয়েছে এনডিএ সরকার। তথ্য জানার অধিকার আইনে (আরটিআই) রিজার্ভ ব্যাঙ্ক ইন্ডিয়া (আরবিআই) যে জবাব দিয়েছিল, সেটিকে হাতিয়ার করে কংগ্রেস অভিযোগ করেছিল, ২০১৪ সালে ক্ষমতায় আসার পর থেকে গত সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ৬.৬৬ লাখ কোটি টাকার ঋণ মকুব করা হয়েছে। তা নিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রীর জবাব চেয়েছিল তারা।

আরও পড়ুন : Lockdown 2.0: লকডাউনের পরে নিয়ন্ত্রিতভাবে শুরু হবে উড়ান পরিষেবা, থাকবেন ৩০% যাত্রী

প্রত্যুত্তরে মালিয়া, নীরব, চোকসির বিরুদ্ধে কী কী ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে, তা তুলে ধরে অর্থমন্ত্রীর অভিযোগ, নির্লজ্জভাবে মানুষকে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করছে কংগ্রেস। বরং ইউপিএ জমানায় ২০০৯-১০ থেকে ২০১৩-১৪ সালের মধ্যে বাণিজ্যিক ব্যাঙ্কগুলি ১,৪৫,২২২ কোটি টাকার ঋণ মকুব করে দিয়েছে।

বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদন ও প্রাক্তন আরবিআই গভর্নর রঘুরাম রাজনের বক্তব্য উদ্ধৃত করে অর্থমন্ত্রী দাবি করেন, ২০০৬-০৮ সালের মধ্যে বড় সংখ্যক 'বাজে' ঋণ দেওয়া হয়েছিল। 'অনেক প্রোমোটারদের ঋণ দেওয়া হয়েছিল, যাঁদের ঋণখেলাপির ইতিহাস রয়েছে' বলে জানান অর্থমন্ত্রী। পাশাপাশি, রাহুল গান্ধীকে কটাক্ষ করে বলেন, 'এই (ঋণ) মকুবগুলো কী ছিল, তা নিয়ে মনমোহন সিংয়ের (তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী) সঙ্গে যদি শ্রী রাহুল গান্ধী পরামর্শ করতেন।'

আরও পড়ুন : সরকারকে না জানিয়ে ধনীদের ওপর কর চাপানোর প্রস্তাব, তিন IRS অফিসারের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা কেন্দ্রের

বন্ধ করুন