বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > ‘চার বছরে দেশে ৩৩৯৯টি সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা’, সংসদে জানালেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী

‘চার বছরে দেশে ৩৩৯৯টি সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা’, সংসদে জানালেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী

কেন্দ্রীয় মন্ত্রী নিত্যানন্দ রাই (এএনআই) (HT_PRINT)

শুধুমাত্র ২০২০ সালে মোট ৫১ হাজার ৬০৬টি দাঙ্গার মামলা রুজু হয়েছে বলেও জানান কেন্দ্রীয় মন্ত্রী

কেন্দ্রীয় সরকার মঙ্গলবার সংসদে জানিয়েছে যে ভারতে ২০১৬ থেকে ২০২০ সাল পর্যন্ত ৩,৩৯৯টি সাম্প্রদায়িক বা ধর্মীয় দাঙ্গার ঘটনা প্রত্যক্ষ ঘটেছে। কংগ্রেস সাংসদ শশী থারুর এবং বিজেপি সাংসদ চন্দ্র প্রকাশ জোশীর করা প্রশ্নের জবাবে স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী নিত্যানন্দ রাই এই তথ্য প্রকাশ করেছেন। সাংসদরা জানতে চেয়েছিলেন যে সরকার সাম্প্রতিক বছরগুলিতে দেশে সংঘটিত দাঙ্গা এবং গণধোলাইয়ের রেকর্ড বজায় রেখেছে কি না। তার প্রেক্ষিতে বিশদ তথ্য তুলে ধরেন মন্ত্রী।

ন্যাশনাল ক্রাইম রেকর্ডস ব্যুরোর (এনসিআরবি) প্রতিবেদনকে উদ্ধৃত করে রাই বলেছেন ২০২০ সালে ৮৫৭টি সাম্প্রদায়িক বা ধর্মীয় দাঙ্গার মামলা নথিভুক্ত করা হয়েছিল। ২০১৯ সালে সেই সংখ্যাটা ছিল ৪৩৮, ২০১৮ সালে ৫১২টি, ২০১৭ সালে ৭২৩টি এবং ২০১৬ সালে ৮৬৯টি সম্প্রদায়িক দাঙ্গা হয়েছিল দেশে।

এর পাশাপাশি তিনি লিখিত উত্তরে মন্ত্রী আরও জানান, ২০২০ সালে ৫১ হাজার ৬০৬টি, ২০১৯ সালে ৪৫ হাজার ৯৮৫টি, ২০১৮ সালে ৫৭ হাজার ৮২৮টি, ২০১৭ সালে ৫৮,৮৮০টি এবং ২০১৬ সালে ৬১ হাজার ৯৭৪টি দাঙ্গার মামলা নথিভুক্ত করা হয়েছিল। মন্ত্রী যোগ করেন যে এনসিআরবি গণপিটুনি সম্পর্কিত কোনও পৃথক তথ্য সংরক্ষণ করে না।

এই দাঙ্গার প্রেক্ষিতে সরকারের ভূমিকা প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে তিনি বলেন, ‘বর্তমান ফৌজদারি আইনগুলিকে ব্যাপকভাবে পর্যালোচনা করা এবং তাদের সমসাময়িক আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির সাথে প্রাসঙ্গিক করে তোলার পাশাপাশি সমাজের দুর্বল অংশগুলিকে দ্রুত বিচার প্রদান করা এবং নাগরিক-কেন্দ্রিক একটি আইনি কাঠামো তৈরি করা সরকারের উদ্দেশ্য।’

বন্ধ করুন