রাত ৯টায় ঘরের আলো নিভিয়ে প্রদীপ ও মোমবাতি জ্বাললেন মুম্বইয়ের বোরিভ্যালির বাসিন্দারা (বাঁ দিকে)। নয় মিনিট পরে ফের বিজলিবাতিতে ঝলসে উঠল শহর।
রাত ৯টায় ঘরের আলো নিভিয়ে প্রদীপ ও মোমবাতি জ্বাললেন মুম্বইয়ের বোরিভ্যালির বাসিন্দারা (বাঁ দিকে)। নয় মিনিট পরে ফের বিজলিবাতিতে ঝলসে উঠল শহর।

আশঙ্কা উড়িয়ে চাহিদার ওঠাপড়াতেও অবিচল গ্রিড, সৌজন্যে ইঞ্জিনিয়ারদের দক্ষতা

যাবতীয় আশঙ্কা উড়িয়ে দিয়ে দক্ষতা প্রমাণ করলেন জাতীয় গ্রিডের দায়িত্বে থাকা ইঞ্জিনিয়াররা।

দেশজুড়ে লোকালয়ে একসঙ্গে আলো নেভানোর পরে ফের একযোগে সুইচ অন করলে অবাধে জ্বলে উঠল ঘরের আলো। যাবতীয় আশঙ্কা উড়িয়ে দিয়ে দক্ষতা প্রমাণ করলেন জাতীয় গ্রিডের দায়িত্বে থাকা ইঞ্জিনিয়াররা।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর আহ্বানে সাড়া দিয়ে রবিবার রাত ৯টা থেকে ৯ মিনিট বিজলিবাতি নিভল জনবসতিতে। দেশজুড়ে বারান্দা, ছাদ আর দরজায় প্রদীপ জ্বাললেন জনসাধারণ। নয় মিনিট অতিক্রান্ত হতেই ফের জ্বলে উঠল ঘরে ঘরে বিদ্যুতের আলো।



রাতে নয়াদিল্লির শ্রম শক্তি ভবনে মন্ত্রকের শীর্ষ কর্তাদের সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন বিদ্যুৎমন্ত্রী আর কে সিং এবং বিদ্যুৎ দফতরের সচিব। বিদ্যুৎমন্ত্রী জানিয়েছেন, এ দিন প্রধানমন্ত্রীর ডাকে স্বতঃস্ফূর্ত সাড়া দিয়েছেন দেশবাসী। তার ফলে মাত্র ৪-৫ মিনিটের ব্যবধানে দেশের বিদ্যুতের চাহিদার পরিমাণ ১১৭ গিগাওয়াট থেকে কমে দাঁড়ায় মাত্র ৮৫.৩ গিগাওয়াটে। গোটা পর্ব অসামান্য দক্ষতায় সামলেছেন বিদ্যুৎ মন্ত্রকের সর্ব স্তরে দায়িত্বপ্রাপ্ত ইঞ্জিনিয়াররা, জানিয়েছেন মন্ত্রী। তাঁদের সবাইকে অভিনন্দন জানিয়ে বিদ্যুৎমন্ত্রী বলেন, নির্ধারিত ৯ মিনিট অতিক্রম করার পরে ফের স্বাভাবিক ১১০ গিগাওয়াটে ফেরে দেশের বিদ্যুৎ চাহিদা।

ভোল্টেজ ওঠানামার এই খেলায় দেশের কোথাও বিদ্যুৎ বিপর্যয় ঘটেনি। বিরোধী ও বিশেষজ্ঞদের একাংশের আশঙ্কা ভিত্তিহীন প্রমাণ করে সাফল্যের হাসি হাসলেন গ্রিড কর্তৃপক্ষ। গোটা সংহতি প্রদর্শন পর্ব মসৃণ ভাবে সমাধা হওয়ায় স্বস্তিতে কেন্দ্রীয় বিদ্যুৎ মন্ত্রক।

শনিবার এই বিষয়ে আগাম ভরসা জুগিয়ে বিজ্ঞপ্তি জারি করেছিল কেন্দ্রীয় বিদ্যুৎ মন্ত্রক। বলা হয়েছিল, প্রধানমন্ত্রীর আহ্বানে বাড়ির আলো নিভলেও জ্বলবে পথবাতি। নিরাপত্তার প্রয়োজনে হাসপাতাল, ওষুধের দোকান, থানা, সরকারি দফতর-সহ বহু জায়গায় আলো নিভবে না। তা ছাড়া, চালু থাকার কথা বাড়ির টিভি, ফ্রিজ, এসি, পাখা-সহ অন্যান্য বিদ্যুৎচালিত সরঞ্জাম। এই কারণে ফের আলো জ্বললে গ্রিডের উপর আচমকা অতিরিক্ত চাপ পড়ার প্রশ্ন নেই।

বন্ধ করুন