বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > ত্রিপুরায় হঠাৎ বাড়ল সংক্রমণের মাত্রা, উত্তর পূর্বে ২০০ ছাড়াল আক্রান্ত
দক্ষিণ ত্রিপুরার ত্বিচমা গ্রামে মাস্ক বিতরণ করছেন নিরাপত্তা বাহিনীর জওয়ানরা। ছবি: পিটিআই। (PTI)
দক্ষিণ ত্রিপুরার ত্বিচমা গ্রামে মাস্ক বিতরণ করছেন নিরাপত্তা বাহিনীর জওয়ানরা। ছবি: পিটিআই। (PTI)

ত্রিপুরায় হঠাৎ বাড়ল সংক্রমণের মাত্রা, উত্তর পূর্বে ২০০ ছাড়াল আক্রান্ত

  • মাত্র ৪ দিনে ১০০ থেকে ২০০-তে পৌঁছে গেল মোট আক্রান্তের সংখ্যা। গত ২৪ মার্চ উত্তর পূর্বে প্রথম সংক্রমণের খবর মেলে মণিপুর থেকে।

ত্রিপুরায় আচমকা সংক্রমণের মাত্রাবৃদ্ধি ও অসমে নিয়মিত সংক্রমিতের হার বাড়ার জেরে শনিবার উত্তর পূর্ব ভারতে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ২০০ ছাড়িয়ে গেল। 

মাত্র ৪ দিনে ১০০ থেকে ২০০-তে পৌঁছে গেল মোট আক্রান্তের সংখ্যা। গত ২৪ মার্চ উত্তর পূর্বে প্রথম সংক্রমণের খবর মেলে মণিপুর থেকে। 

রবিবার সকাল পর্যন্ত উত্তর পূর্বের সাতটি রাজ্য মিলিয়ে করোনা সংক্রমিতের সংখ্যা দাঁড়ায় ২১২। তালিকার শীর্ষে ১৩২ জন আক্রান্ত নিয়ে ত্রিপুরা। এরপেরই রয়েছে ৬৩টি করোনা রোগী-সহ অসম। তাঁদের মধ্যে একজন অবশ্য নাগাল্যান্ডের বাসিন্দা। 

ত্রিপুরায় হঠাতই লাফিয়ে বেড়েছে সংক্রমণের হার। গত ২৪ এপ্রিল ওই রাজ্যে দুই সংক্রমিতের রিপোর্ট নেগেটিভ মেলার পরে ত্রিপুরাকে করোনামুক্ত ঘোষণা করা হয়। কিন্তু ২ মে দুই বিএসএফ জওয়ান পজিটিভ প্রমাণিত হলে সেই শিরোপা হারায় ত্রিপুরা। একদিন পরে ১২ জন সংক্রমিত তালিকায় যুক্ত হন। এরপর কয়েক দিন ধরে সংক্রমিতের সংখ্যা ধীরে ধীরে বাড়তে থাকে। 

শনিবার রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব জানান, বিএসএফ-এর ৮৬তম ব্যাটালিয়নের ১৭ জন সদস্য করোনা পজিটিভ প্রমাণিত হয়েছেন। তবে কোনও অসামরিক ব্যক্তি সংক্রমিত হওয়ার খবর নেই বলে তিনি দাবি করেন।

একই ভাবে রাজ্যের সীমান্ত খুলে দেওয়ার পরে অসমেও সংক্রমণের পারদ চড়তে শুরু করেছে। মুম্বই ফেরত দুই মহিলা ও তাঁদের অ্যাম্বুল্যান্স চালক করোনা সংক্রমিত হয়েছেন বলে জানা গিয়েছে। তাঁদের নিয়ে শনিবার অসমে আক্রান্ত বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৬৩ জন। রবিবার সকাল পর্যন্ত অসমে ৩৪ জন করোনা সংক্রমণ থেকে সুস্থ হয়ে উঠেছেন। দু জন মারা গিয়েছেন। 

১৯ দিন পরে মেঘালয়ে শনিবার আরও এক কপরোনা সংক্রমিতের খবর মিলেছে। এই নিয়ে রাজ্যে আক্রান্তের সংখ্যা পৌঁছল ১৩তে। এই রাজ্যে একজন সংক্রমিতের মৃত্যু হয়েছে। 

 

বন্ধ করুন