বাড়ি > ঘরে বাইরে > উত্তর কোরিয়ার হ্যাকারদের নিশানায় ২০ লক্ষ ভারতবাসী, সতর্ক করল সিঙ্গাপুর
ল্যাজারাস হ্যাকারদের কাছে ভারতের ২০ লক্ষ ইন্ডিভিজুয়ালের ই-মেল আইডি রয়েছে।
ল্যাজারাস হ্যাকারদের কাছে ভারতের ২০ লক্ষ ইন্ডিভিজুয়ালের ই-মেল আইডি রয়েছে।

উত্তর কোরিয়ার হ্যাকারদের নিশানায় ২০ লক্ষ ভারতবাসী, সতর্ক করল সিঙ্গাপুর

  • ২১ জুন অর্থাৎ রবিবার বড়সড় সাইবার হানার শিকার হতে পারে ভারত। উত্তর কোরিয়ার রাজ্যের হ্যকাররা কোভিড-১৯ থিমের ফিশিং ক্যাম্পেনের মাধ্যমে এই হামলা চালাতে পারে বলে জানা গিয়েছে। তবে ভারত একা নয়, হামলা চালানো হবে আরও ৫টি দেশে।

২১ জুন অর্থাৎ রবিবার বড়সড় সাইবার হানার শিকার হতে পারে ভারত। উত্তর কোরিয়ার হ্যাকাররা কোভিড-১৯ থিমের ফিশিং ক্যাম্পেনের মাধ্যমে এই হামলা চালাতে পারে বলে জানা গিয়েছে। তবে ভারত একা নয়, হামলা চালানো হবে আরও ৫টি দেশে।

এই হামলা ল্যাজারাস গ্রুপের বড় কোনও ক্যাম্পেনের অংশ বিশেষ। ভারত, সিঙ্গাপুর, দক্ষিণ কোরিয়া, জাপান, ইউকে ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ৫০ লক্ষ ব্যক্তিবিশেষ, ক্ষুদ্র ও বৃহৎ এন্টারপ্রাইস-সহ বিভিন্ন ব্যবসায়িক সংগঠন রয়েছে হ্যাকারদের নিশানায়। শুক্রবার এমনই জানা গিয়েছে, ZDNet-এর একটি রিপোর্টে।

Cyfirma নামে সিঙ্গাপুরের এক সাইবার নিরাপত্তা সংস্থার রিপোর্ট অনুযায়ী, উত্তর কোরিয়ার এই হ্যাকার গোষ্ঠী তাদের ক্যাম্পেনের মাধ্যমে অর্থনৈতিক লাভের ছক কষেছে। যেখানে নির্দিষ্ট ব্যক্তিদের কোনও প্রতারক পোস্ট বা ওয়েবসাইটে ভিসিট করতে বলা হবে। তার পর সেই ব্যক্তিকে নানান প্রলোভন দেখিয়ে ব্যক্তিগত ও আর্থিক ডেটা প্রকাশের মাধ্যমে কাজ হাসিল করবে তারা।

ল্যাজারাস হ্যাকারদের কাছে ভারতের ২০ লক্ষ, জাপানের ১১ লক্ষ ইন্ডিভিজুয়ালের ইমেল আইডির ডিটেল রয়েছে। এর পাশাপাশি ইউকে-র ১৮০,০০০ হাজার বিজনেস কনট্যাক্টও রয়েছে। অভিযান চালানো হবে সিঙ্গাপুরের ৮,০০০ ব্যবসায়িক সংস্থায় যাদের নম্বর থেকে সিঙ্গাপুর বিজনেস ফেডারেশনের সদস্যদের উদ্দেশে ই-মেল করা হয়েছিল।

জানা গিয়েছে, সিঙ্গাপুরের যে সংস্থাগুলিকে লক্ষ্য করা হয়েছে, তাদের জনশক্তি মন্ত্রকের একটি জাল অ্যাকাউন্ট থেকে চিনা ভাষায় ফিশিং মেল পাঠানোর বন্দোবস্ত করা হয়েছে। সেই মেলে সরকারের কোভিড-১৯ সাপোর্ট প্যাকেজের অধীনে কর্মচারীদের অতিরিক্ত পেআউটের প্রলোভন দেখানো হবে।

Cyfirma-র প্রতিষ্ঠাতা ও সিইও কুমার রীতেশ জানিয়েছেন, ইতিমধ্যে সিঙ্গাপুর, জাপান, দক্ষিণ কোরিয়া, ভারত ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সরকারি কম্পিউটার এমারজেন্সি রেসপন্স টিম ও ইউকে-র ন্যাশনাল সাইবার সিকিওরিটি সেন্টারকে অবগত করা হয়েছে। এই ৬টি দেশের এজেন্সিগুলি এ বিষয়ে তদন্তে নেমেছে বলে জানা গিয়েছে। তিনি এ-ও জানিয়েছেন, গত ৬ মাস ধরে করোনাভাইরাস অতিমারী সংক্রান্ত হ্যাকার অ্যাক্টিভিটি নজরে পড়েছে।

উত্তর কোরিয়ার সরকারি গোয়েন্দা ব্যুরোর দ্বারা নিয়ন্ত্রিত এই ল্যাজারাস গোষ্ঠী। গত বছর সেপ্টেম্বর মাসে কাসপার্স্কাই নিরাপত্তা গবেষকরা ল্যাজারাস গোষ্ঠীর তৈরি একটি ম্যালওয়্যার  ধরে ছিলেন, যার সাহায্যে ভারতীয় এটিএমের মাধ্যমে গ্রাহকদের কার্ড ডেটা চুরি করা যেত। কয়েক বছর আগে ভারত ছাড়া মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও ব্রিটেনেও সাইবার হানা সংগঠিত করে ছিল এই সংস্থাটি।

বন্ধ করুন