বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > Nupur Sharma Row: নূপুর শর্মার সমর্থনে পোস্ট করে আক্রান্ত যুবক! পড়শি রাজ্যে ঘটল ভয়ঙ্কর ঘটনা
নূপুর শর্মার সমর্থনে পোস্ট করে আক্রান্ত যুবক (ছবিটি প্রতীকী)

Nupur Sharma Row: নূপুর শর্মার সমর্থনে পোস্ট করে আক্রান্ত যুবক! পড়শি রাজ্যে ঘটল ভয়ঙ্কর ঘটনা

  • সোমবার মিডিয়ার সঙ্গে কথা বলার সময় অঙ্কিত দাবি করেন যে নূপুর শর্মার সমর্থনে একটি ছবি তিনি সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেছিলেন। তারপরই এই ঘটনাটি ঘটেছে। যদিও এসপি হরকিশোর রায় দাবি করেন এই ঘটনার সঙ্গে নূপুর শর্মার কোনও যোগ নেই।

সাসপেন্ড হওয়া বিজেপি নেত্রী নূপুর শর্মার সমর্থনে সোশ্যাল মিডিয়া পোস্ট করার অভিযোগে এবার বিহারের সীতামারহি জেলায় ২৩ বছর বয়সি এক যুবককে ছুরিকাঘাত করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠল। ঘটনাটি তিন দিন গত ১৫ জুলাই ঘটেছে। নানপুর থানা এলাকায় ঘটেছিল ঘটনাটি। কিন্তু সোমবারই এই খবর প্রকাশ্যে আসে। আক্রান্তের নাম অঙ্কিত কুমার ঝা। জখম যুবকের পরিবারের সদস্যরা সোমবার এই ঘটনা প্রসঙ্গে অভিযোগ করেন, স্থানীয় পুলিশ অভিযোগ কপি থেকে নূপুর শর্মার নাম মুছে ফেলার পরে অভিযুক্তের বিরুদ্ধে এফআইআর নথিভুক্ত করেছে।

এদিকে নানপুর থানার ইনচার্জ এসএইচও বিজয় কুমার রামের মতে, আক্রান্ত যুবক এবং অভিযুক্তরা ধূমপান এবং গুটখা খাওয়ার জন্য রাস্তার পাশের একটি স্টলে জড়ো হয়েছিল। সেই সময় ঘটনাটি ঘটে। ‘কোনও এক অজানা কারণে তারা একে অপরের সাথে মারামারি শুরু করে। হঠাৎ গুলাব রব্বানি ওরফে গোরা নামে একজন পিছন দিক থেকে অঙ্কিত ঝাকে ছুরিকাঘাত করে।’

পথচারীরা রক্তাক্ত অবস্থায় অঙ্কিত ঝাকে দ্রুত সদর হাসপাতালে নিয়ে যান। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে তদন্ত শুরু করে। পরে পুলিশ দল হাসপাতালে অঙ্কিত ঝা-এর সঙ্গে দেখা করে। তখন অঙ্কিত ঘটনাটি বর্ণনা করেন এবং গোরা এবং নেহাল সহ দুই অভিযুক্তের নাম প্রকাশ করেন। ঘটনার পরের দিন অঙ্কিত ঝা চারজনের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন — গোরা, নেহাল, বেহাল এবং হেলাল। পুলিশ অভিযুক্তদের দুজনকে গ্রেপ্তার করেছে এবং তাদের বিচার বিভাগীয় হেফাজতে পাঠিয়েছে আদালত। সোমবার মিডিয়ার সঙ্গে কথা বলার সময় অঙ্কিত দাবি করেন যে নূপুর শর্মার সমর্থনে একটি ছবি তিনি সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেছিলেন। তারপরই এই ঘটনাটি ঘটেছে। যদিও এসপি হরকিশোর রায় দাবি করেন এই ঘটনার সঙ্গে নূপুর শর্মার কোনও যোগ নেই। এর আগে ৬ জুলাই আরা জেলায় নূপুর শর্মাকে সমর্থন করে একটি সোশ্যাল মিডিয়া পোস্ট করার জন্য এক যুবককে ২০ জনেরও বেশি লোক মিলে মারধর করে বলে অভিযোগ উঠেছিল।

বন্ধ করুন