বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > ৫০ বছর বয়সে চাকরি ছেড়ে Nykaa-র প্রতিষ্ঠা, ভারতের সবচেয়ে ধনী মহিলা হলেন ফাল্গুনী
ফাইল ছবি : মিন্ট (MINT_PRINT)
ফাইল ছবি : মিন্ট (MINT_PRINT)

৫০ বছর বয়সে চাকরি ছেড়ে Nykaa-র প্রতিষ্ঠা, ভারতের সবচেয়ে ধনী মহিলা হলেন ফাল্গুনী

  • রিপোর্ট অনুযায়ী, Nykaa-র মার্কেট ক্যাপ ইতিমধ্যেই Britannia, Godrej, এবং IndiGo-র মতো পুরনো বড় সংস্থার সমতুল হয়ে গিয়েছে। কয়েক বছর আগেই ব্যবসা শুরু করা একটি সংস্থার জন্য যা অকল্পনীয়।

শেয়ার বাজারে প্রবেশ করেই বাজিমাত প্রসাধনী ই-কমার্স জায়ান্ট Nykaa-র। প্রাথমিক পাবলিক অফার (আইপিও) শেষ হওয়ার এক সপ্তাহ হয়েছে। বুধবার বাজার খোলার পর দেখা যাচ্ছে ১ লক্ষ কোটি টাকারও বেশি বাজার মূলধন সংগ্রহ করে ফেলেছে সংস্থা। এই মুহূর্তে Nykaa-র শেয়ার প্রায় 80 শতাংশ প্রিমিয়াম সহ ২,০১৮ টাকায় লিস্টেড হয়েছে। রিপোর্ট অনুযায়ী, Nykaa-র মার্কেট ক্যাপ ইতিমধ্যেই Britannia, Godrej, এবং IndiGo-র মতো পুরনো বড় সংস্থার সমতুল হয়ে গিয়েছে। কয়েক বছর আগেই ব্যবসা শুরু করা একটি সংস্থার জন্য যা অকল্পনীয়।

Nykaa-র সিইও-প্রতিষ্ঠাতা ফাল্গুনী নায়ার এই মুহূর্তে ভারতের ধনীতম মহিলাদের মধ্যে অন্যতম। ব্যবসা শুরুর আগে তিনি এক নামজাদা ভারতীয় ইনভেস্টমেন্ট ব্যাঙ্কের শীর্ষ পদে ছিলেন। প্রচুর টাকা বেতন। চাইলেই আরও এক দশক চাকরি করে কাটাতে পারতেন। কিন্তু ৪৯ বছর বয়সেই অকল্পনীয় ঝুঁকি নেন ফাল্গুনী।

ফাইল ছবি : পিটিআই
ফাইল ছবি : পিটিআই (PTI)

নিরাপদ চাকরি ছেড়ে শুরু করেন ই-কমার্স ব্যবসা। সেই সময়ে অন্যান্য ই-কমার্স থাকলেও শুধুমাত্র প্রসাধনী সামগ্রীর কোনও অপশন ছিল না ভারতে। ফাল্গুনী দেখেন, মেয়েদের মেকআপ, সাজের জিনিস কিনতে সেই পাড়ার দোকানেই যেতে হয়। সেখানে অপশন সীমিত। বড় ব্র্যান্ড বা ট্রায়ালের সুযোগও নেই। বাজারে এই ফাঁকটাই ভরাট করার লক্ষ্য নিয়ে এগোতে শুরু করেন তিনি।

Nykaa-এর প্রায় অর্ধেক মালিকানা ফাল্গুনীর। এই মুহূর্তে তাঁর নেট ওয়ার্থ প্রায় ৬.৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। ভারতীয় মুদ্রায় যা প্রায় ৪৮ হাজার কোটি টাকারও বেশি। ব্লুমবার্গ বিলিয়নেয়ার্স ইনডেক্স অনুসারে, তিনি ভারতের সবচেয়ে ধনী মহিলা বিলিয়নেয়ার হয়ে উঠেছেন। পুরোটাই নিজের স্থাপন করা ব্যবসায়।

ব্যবসা-বাণিজ্যের জগতে দৃষ্টান্ত স্থাপন Nykaa-র

IPO-তে সংস্থার এই বিপুল সাফল্য কিছুটা যেন প্রত্যাশিতই ছিল। সাধারণত এই ধরণের ই-কমার্স ব্যবসা শুরুর বেশ কয়েক বছর লাভজনক থাকে না। বিনিয়োগকারীরা ভবিষ্যতে লাভের আশা করে টাকা ঢালতে থাকেন। কিন্তু ব্যাতিক্রম নাইকা।

৩১ অগস্ট ২০২১ পর্যন্ত, Nykaa অ্যাপ ৫.৫৮ কোটি বার ডাউনলোড হয়েছে। Nykaa ২০২০-২১ অর্থবর্ষে ৬১.৯ কোটি টাকার নিট লাভ করেছে। তার আগের অর্থবর্ষে ১৬.৩ কোটি টাকার লোকসান হয়েছে। Nykaa তাদের প্রথম ফিজিক্যাল স্টোর ২০১৪ সালে খোলে। ৩১ অগস্ট ২০২১ পর্যন্ত ৪০টি শহরে ৮০টি দোকান রয়েছে।

Nykaa-র শেয়ার কেনা কি উচিত্ হবে?

'Nykaa ভারতের খুব স্বল্প সংখ্যক কিছু লাভজনক ইউনিকর্নগুলির মধ্যে একটি। আমার বিশ্বাস সংস্থাটি আগামী ১০ বছরে অনলাইন বিউটি এবং ফ্যাশন সেগমেন্টে বৃদ্ধি পাবে। তাই দীর্ঘমেয়াদি বিনিয়োগের জন্য এটি কেনার পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে,' ব্রোকারেজ সংস্থা অ্যাঞ্জেল ওয়ান একটি আইপিও নোটে বলেছে৷

তবে, বাজার বিশেষজ্ঞদের একাংশের ধারণা, বর্তমানে 'ওভারসাবস্ক্রিপশন'-এর হুজুগে লাফিয়ে লাফিয়ে দাম বাড়ছে নাইকার। তবে আগামিদিনে ক্রেজ কমে গেলে এত দ্রুত বৃদ্ধি না-ও হতে পারে। তবে তা সত্ত্বেই এই শেয়ার বাড়ার সম্ভাবনা যে প্রবল, তা স্বীকার করছেন তাঁরা।

এই বিপুল বাজার মূলধন দিয়ে কী করবে নাইকা?

Nykaa জানিয়েছে, নতুন রিটেল স্টোর স্থাপন, মূলধন ব্যয়ের তহবিলে এবং ঋণ পরিশোধের জন্য আইপিও থেকে আয় ব্যবহার করা হবে।

বন্ধ করুন