বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > ইউক্রেনের অধিকৃত অঞ্চল রাশিয়ায় যোগ হবে? চলছে গণভোট

ইউক্রেনের অধিকৃত অঞ্চল রাশিয়ায় যোগ হবে? চলছে গণভোট

চলছে গণভোট। ছবি ডয়চে ভেলে

রাশিয়ার মূল ভূখণ্ডেও ভোট আয়োজন করা হয়েছে বলে জানা গিয়েছে৷ অধিকৃত চারটি অঞ্চলের যেসব শরণার্থী এই মুহূর্তে রাশিয়ায় অবস্থান করছেন, তাদের ভোটে অংশগ্রহণ নিশ্চিত করার জন্য এমন আয়োজন করা হয়েছে৷

তীব্র আন্তর্জাতিক সমালোচনার মুখে ইউক্রেনের চারটি অধিকৃত অঞ্চলের রুশ ফেডারেশনে যোগ দেওয়ার প্রশ্নে দ্বিতীয় দিনের মতো গণভোট চলছে৷ শুক্রবার শুরু হওয়া এই গণভাট ইউক্রেনের পশ্চিমের দনেৎস্ক ও লুহানস্ক অঞ্চল এবং দক্ষিণের ঝাপোরিজঝিয়ার এবং খেরসন অঞ্চলে আয়োজন করা হয়৷ ক্রেমলিন নিয়োজিত প্রশাসনিক কর্মকর্তাদের তত্ত্বাবধানে আয়োজিত এই গণভোট আগামী মঙ্গলবার পর্যন্ত চলবে বলে জানা গিয়েছে৷

তবে এই গণভোটের কোনেও আইনি ভিত্তি নেই বলে মন্তব্য জাতিসংঘ-সহ বেশ কিছু পশ্চিমা দেশের৷ ইউক্রেন বলছে, এই গণভোটের মাধ্যমে একটি জাতির বিরুদ্ধে অন্যায় করা হচ্ছে৷ বার্তাসংস্থাগুলো জানিয়েছে, গণভোটের উদ্দেশ্যে নির্বাচনী কর্মকর্তারা স্থানীয়দের বাড়িতে ব্যালটপেপার নিয়ে হাজির হচ্ছেন৷ সেইসঙ্গে কিছু ভ্রাম্যমাণ ভোটকেন্দ্রও স্থাপন করা হয়েছে৷

রাশিয়ার মূল ভূখণ্ডেও ভোট আয়োজন করা হয়েছে বলে জানা গিয়েছে৷ অধিকৃত চারটি অঞ্চলের যেসব শরণার্থী এই মুহূর্তে রাশিয়ায় অবস্থান করছেন, তাদের ভোটে অংশগ্রহণ নিশ্চিত করার জন্য এমন আয়োজন করা হয়েছে৷ ক্রেমলিন বলছে, ফলাফলের ভিত্তিতে দ্রুততম সময়ের মধ্যে ইউক্রেনের এই অঞ্চলগুলোকে রাশিয়ার সঙ্গে যুক্ত করা হবে৷ রাশিয়ার গণমাধ্যমে প্রকাশিত ভিডিয়োতে দেখা যায়, শনিবার এ চারটি অঞ্চলের বিভিন্ন কেন্দ্রে ভোট প্রদানের জন্য উপস্থিত হচ্ছেন স্থানীয়রা৷

এদিকে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া ভিডিয়োতে দেখা যায়, অস্ত্রধারী লোকেরা স্থানীয়দের ভোটকেন্দ্রে যেতে জোর করছে৷ গণভোট অনুষ্ঠানের প্রথমদিন শুক্রবার যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ইউক্রেনের কিছু অংশকে যুক্ত করার এই প্রচেষ্টাকে আন্তর্জাতিক আইনের ‘প্রকাশ্য লঙ্ঘণ’ বলে মন্তব্য করেন৷ তিনি বলেন, ‘রাশিয়ার উপর আরেও কঠোর অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা আরোপের বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্র তার মিত্র দেশগুলোর সঙ্গে কাজ করবে৷’

ইউক্রেন সরকারের বলছে, ভোট চলার এই পাঁচদিন ইউক্রেনে রাশিয়ার অধিকৃত এলাকাগুলো থেকে স্থানীয়দের সরে যেতে বাধা দেওয়া হচ্ছে৷ ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলদোমির জেলেনস্কি বলেন, আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় দ্ব্যর্থহীনভাবে এই গণভোটের নিন্দা জানাচ্ছে৷ তিনি বলেন, এই গণভোট শুধু আন্তর্জাতিক আইনের লঙ্ঘনই নয়, এটি কিছু মানুষের বিরুদ্ধে, একটি জাতির বিরুদ্ধে হওয়া অন্যায়৷

গণভোট অনুষ্ঠিত হওয়া এ চারটি অঞ্চল এই মুহূর্তে পুরোপুরি রাশিয়া দখলে তেমন ইঙ্গিত এখনও পাওয়া যায়নি৷ সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়, এই চারটি অঞ্চলের বিভিন্ন স্থানে ইউক্রেনের সেনারা রাশিয়ার বিরুদ্ধে লড়াই চালিয়ে যাচ্ছে৷ তবে বিশ্লেষকেরা বলছেন, ভোটাভুটির মাধ্যমে যদি এসব অঞ্চল রাশিয়া নিজেদের সঙ্গে যুক্ত করে নেয় সেক্ষেত্রে যুদ্ধ পরিস্থিতি অন্য দিকে মোড় নিতে পারে৷ রাশিয়ার সঙ্গে যুক্ত হওয়ার পর সেখানে হামলার ঘটনা ঘটলে মস্কো দাবি করতে পারে যে, পশ্চিমাদের কাছ থেকে পাওয়া অস্ত্র দিয়ে তাদের ওপর হামলা চালানো হচ্ছে৷

(বিশেষ দ্রষ্টব্য: প্রতিবেদনটি ডয়চে ভেলে থেকে নেওয়া হয়েছে। সেই প্রতিবেদনই তুলে ধরা হয়েছে। হিন্দুস্তান টাইমস বাংলার কোনও প্রতিনিধি এই প্রতিবেদন লেখেননি।)

বন্ধ করুন