বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > লকডাউনে বিচ্ছিন্ন শ্রমিকদের জন্য চালু হেল্পলাইনে আসছে মোবাইল রিচার্জ করার আর্জিও!
শ্রমিকদের সুবিধার উদ্দেশে বিশেষ হেল্পলাইন চালু করেছে কেন্দ্রীয় শ্রম মন্ত্রক।
শ্রমিকদের সুবিধার উদ্দেশে বিশেষ হেল্পলাইন চালু করেছে কেন্দ্রীয় শ্রম মন্ত্রক।

লকডাউনে বিচ্ছিন্ন শ্রমিকদের জন্য চালু হেল্পলাইনে আসছে মোবাইল রিচার্জ করার আর্জিও!

  • ৩১টি রাজ্যে মন্ত্রকের ২০টি হেল্পলাইন ফোন নম্বর সামলানোর দায়িত্বে রয়েছেন ৭৫ জন শীর্ষস্থানীয় আধিকারিক।

করোনা সংক্রমণ রোধে দেশজুড়ে লকডাউনের কারণে বিভিন্ন রাজ্যে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়া শ্রমিকদের সুবিধার উদ্দেশে বিশেষ হেল্পলাইন চালু করেছে কেন্দ্রীয় শ্রম মন্ত্রক। 

দেশের ৩১টি রাজ্যে মন্ত্রকের ২০টি হেল্পলাইন ফোন নম্বর সামলানোর দায়িত্বে রয়েছেন ৭৫ জন শীর্ষস্থানীয় আধিকারিক। তাঁদের মধ্যে কোনও আধিকারিকেরই আপৎকালীন কল সামলানোর প্রশিক্ষণ নেই। তবে যে হেতু অধিকাংশ কলই ক্ষুধা ও অসহায়দা কেন্দ্রিক, তাই তাঁদের সে সব সামলাতে বিশেষ বেগ পেতে হচ্ছে না। 

নামপ্রকাশে অনিচ্ছুক এক আধিকারিক জানিয়েছেন, মূলত বেতন ও প্রভিডেন্ট ফান্ড সংক্রান্ত সমস্যার সমাধান করতেই এই হেল্পলাইনগুলো চালু হয়েছিল। কিন্তু বর্তমান পরিস্থিতিতে ৬০% কল আসছে স্থানীয় বা রাজ্যস্তরের সমস্যা নিয়ে। সমস্যা সনমাধানে সাহায্য নেওয়া হচ্ছে সংশ্লিষ্ট দফতর বা ব্যক্তির। 

আবার পরিস্থিতি বিশেষেও বদলে যাচ্ছে কলের বিষয়বস্তু। যেমন কিছু দিন আগে পরিযায়ী শ্রমিকদের ঘরে ফেরাতে বিশেষ শ্রমিক স্পেশ্যাল ট্রেন চালুর ঘোষণা হতেই ঘন ঘন সেই সংক্রান্ত প্রশ্নে জেরবার হতে শুরু করেন আধিকারিকরা। তবে যথাসম্ভব উত্তর জোগগানোর দায়িত্ব পালন করছেন তাঁরা। 

বেশ কিছু কল আসছে কাজ থেকে হঠাৎ ছাঁটাই বা বকেয়া বেতন না পাওয়া নিয়ে। আবার এমনও কল পাওয়া যাচ্ছে, যেখানে বিচ্ছিন্ন কোনও শ্রমিক নিজের মোবাইল ফোন রিচার্জ করার জন্যও সাহায্য চেয়েছেন।

তবে সবচেয়ে মুশকিল হয়েছে এক ধরনের কল নিয়ে, জানিয়েছেন আধিকারিকরা। কেউ কেউ নাকি হেল্পলাইন নম্বরে ফোন করে চাকরির খোঁজও করতে শুরু করেছেন। বিষয়টি সামলাতেই খানিক সমস্যায় পড়েছেন দায়িত্বপ্রাপ্ত আধিকারিকরা। 

বন্ধ করুন