বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > শাওয়ার্মা খেয়ে মৃত্যু ১৭ বছর বয়সি ছাত্রীর, হাসপাতালে আরও ১৮
‘পচা শাওয়ার্মা’ খাওয়ার পরে খাদ্য বিষক্রিয়ার কারণে রবিবার ১৭ বছর বয়সি এক স্কুল ছাত্রী মারা গিয়েছে। (ছবি - এএনআই)
‘পচা শাওয়ার্মা’ খাওয়ার পরে খাদ্য বিষক্রিয়ার কারণে রবিবার ১৭ বছর বয়সি এক স্কুল ছাত্রী মারা গিয়েছে। (ছবি - এএনআই)

শাওয়ার্মা খেয়ে মৃত্যু ১৭ বছর বয়সি ছাত্রীর, হাসপাতালে আরও ১৮

  • Kerala Food Poisoning: ‘পচা শাওয়ার্মা’ খাওয়ার পরে খাদ্য বিষক্রিয়ার কারণে রবিবার ১৭ বছর বয়সি এক স্কুল ছাত্রী মারা গিয়েছে। সেই শাওয়ার্মা খেয়ে আরও ১৮ জন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে।

কেরলের কাসারগোড জেলার চেরুভাথুর শহরে একটি খাবারের দোকানে ‘পচা শাওয়ার্মা’ খাওয়ার পরে খাদ্য বিষক্রিয়ার কারণে রবিবার ১৭ বছর বয়সি এক স্কুল ছাত্রী মারা গিয়েছে। সেই শাওয়ার্মা খেয়ে আরও ১৮ জন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে। জানা গিয়েছে মৃত ছাত্রীর নাম দেবানন্দা। কাসারগোডের কাছে করিভাল্লোরের বাসিন্দা ছিল সে। চিকিৎসাধীন অবস্থায় কানহনগাদ জেলা হাসপাতালে মারা যায় সেই ছাত্রী।

কাসারগোডের মেডিকেল অফিসার ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে বলেন, ‘একজন শিশু বিশেষজ্ঞ সহ ডাক্তারদের একটি দল দেবানন্দাকে (মৃত) পর্যবেক্ষণে রেখেছিলেন কিন্তু তার জীবন বাঁচানো সম্ভব হয়নি। বাকি মোট ১৮ জন ছাত্রকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে এবং তাদের সকলের অবস্থা স্থিতিশীল রয়েছে।’ এদিকে যে খাবারের স্টল থেকে এই শাওয়ার্মা বিক্রি করা হয়েছিল, সেটির বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। তদন্ত শেষ হওয়ার আগে সেই স্টলটি বন্ধ রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এদিকে স্টলের বাবুর্চিকে পুলিশ হেফাজতে নিয়েছে।

ত্রিকারিপুরের বিধায়ক এম রাজাগোপালন বলেন, ‘দোকানটি বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে এবং বাবুর্চিকে হেফাজতে নেওয়া হয়েছে। ফুড পয়জনিং এই মৃত্যুর প্রাথমিক কারণ হতে পারে। পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছে স্বাস্থ্য বিভাগ। বিষয়টি তদন্ত করার জন্য একটি বিশেষ দলও গঠন করা হয়েছে।’ বিধায়ক আরও জানিয়েছেন যে শাওয়ারমার নমুনাও পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে। এদিকে, কেরলের স্বাস্থ্যমন্ত্রী বীনা জর্জ ঘটনার তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন এবং কর্তৃপক্ষের কাছে রিপোর্ট চেয়েছেন।

বন্ধ করুন