বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > Gang rape in Gurugram: কাজ দেওয়ার নাম করে বাংলার তরুণীকে গুরুগ্রামে ডেকে গণধর্ষণের অভিযোগ

Gang rape in Gurugram: কাজ দেওয়ার নাম করে বাংলার তরুণীকে গুরুগ্রামে ডেকে গণধর্ষণের অভিযোগ

তরুণীকে গণধর্ষণের অভিযোগ। প্রতীকী ছবি।

এক বছর আগে গুরুগ্রামে কাজের সন্ধানে গিয়েছিলেন ওই তরুণী। সেখানে এক যুবকের সঙ্গে তাঁর পরিচয় হয়। সেই যুবক তাকে কাজ দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল। এরপর তাকে কাজের জন্য চক্করপুর এলাকায় ডাকা হয়। সেখানে পাঁচ জন মিলে তাঁকে গণধর্ষণ করে বলে অভিযোগ। 

কাজ দেওয়ার নাম করে বাংলার এক তরুণীকে গণধর্ষণের অভিযোগ উঠল। হরিয়ানার গুরুগ্রামে ডেকে ওই তরুণীকে পাঁচজন মিলে গণধর্ষণ করেছে বলে অভিযোগ। এই ঘটনায় পুলিশের কাছে অভিযোগ জানিয়েছেন তরুণী। গুরুগ্রামের চক্করপুর এলাকায় গণধর্ষণ করা হয়েছে বলে পুলিশে অভিযোগ জানিয়েছেন বাংলার ওই তরুণী। এই অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

জানা গিয়েছে, এক বছর আগে গুরুগ্রামে কাজের সন্ধানে গিয়েছিলেন ওই তরুণী। সেখানে এক যুবকের সঙ্গে তার পরিচয় হয়। সেই যুবক তাকে কাজ দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল। এরপর তাকে কাজের জন্য চক্করপুর এলাকায় ডাকা হয়। সেখানে পাঁচ জন মিলে তাকে গণধর্ষণ করে বলে অভিযোগ। শুধু তাই নয়, তরুণীকে যৌন পেশায় নামানোরও চেষ্টা করে অভিযুক্তরা। এমনকী ধর্ষণের কথা জানাজানি হলে নিগৃহীতাকে খুন করার হুমকি দেয় তারা। শেষমেশ ওই তরুণী শুক্রবার গুরুগ্রামের সেক্টর ২৯ থানায় ৫ জনের বিরুদ্ধে গণধর্ষণের অভিযোগ জানান। তার ভিত্তিতে এফআইআর রুজু করে তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। শনিবার ডিসিপি (পূর্ব) নীতীশ আগরওয়াল জানিয়েছেন, অভিযোগ পাওয়ার পর এফআইআর রুজু করা হয়েছে। এই ঘটনায় তদন্ত শুরু হয়েছে। অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে নির্দিষ্ট ধারায় মামলা রুজু করে তাদের গ্রেফতারের চেষ্টা চালানো হচ্ছে। তবে নিগৃহীতা বারবার বয়ান বদল করছেন বলেই জানিয়েছেন তদন্তকারীরা। ফলে এই ধর্ষণের ঘটনা সত্য কিনা তা নিয়ে উঠছে প্রশ্ন। নির্যাতিতা নিজেকে বাংলার বাসিন্দা বলে দাবি করেছেন। তবে তিনি পশ্চিমবাংলার কোথায় থাকেন সে বিষয়টি পুলিশকে নিশ্চিতভাবে জানাতে পারেননি। এসবের ভিত্তিতে সন্দেহ দানা বাঁধছে। পুলিশ মহিলার অভিযোগ খতিয়ে দেখার পাশাপাশি মহিলার বয়ানের সত্যতা যাচাই করার চেষ্টা করছেন।

পুলিশ অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৭০, ৩৭০ এ এবং ৩৪২ ধারায় মামলা রুজু করেছে। ঘটনায় এখনও পর্যন্ত কোনও অভিযুক্তকে গ্রেফতার করা হয়নি। তাদের গ্রেফতারের চেষ্টা চালাচ্ছে পুলিশ। মহিলার বাড়ির ঠিকানাও জানার চেষ্টা করছে পুলিশ।

এই খবরটি আপনি পড়তে পারেন HT App থেকেও। এবার HT App বাংলায়। HT App ডাউনলোড করার লিঙ্ক https://htipad.onelink.me/277p/p7me4aup

বন্ধ করুন