বাড়ি > ঘরে বাইরে > রাজ্যসভায় ডেপুটি চেয়ারম্যান নির্বাচনে বেশি ‘সাহসী’ বিরোধীরা? সংখ্যায় কে এগিয়ে?
আজ রাজ্যসভার ডেপুটি চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন হবে (ছবি সৌজন্য পিটিআই)
আজ রাজ্যসভার ডেপুটি চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন হবে (ছবি সৌজন্য পিটিআই)

রাজ্যসভায় ডেপুটি চেয়ারম্যান নির্বাচনে বেশি ‘সাহসী’ বিরোধীরা? সংখ্যায় কে এগিয়ে?

  • বছর শেষের বিহার বিধানসভা ভোটের আগে ‘মিনি বিহার’ ভোট।

রাশিয়া বিশ্বকাপে দক্ষিণ কোরিয়া বনাম জার্মানি ম্যাচ। দ্বিতীয়ার্ধের অতিরিক্ত সময় গোল খেয়ে পিছিয়ে পড়েছিল চার বছর আগের চ্যাম্পিয়ানরা। গোল শোধের জন্য মাঝমাঠ পেরিয়ে উঠে গিয়েছিলেন জার্মান গোলরক্ষক ম্যানুয়ের নয়্যার। সেখান থেকে পজেশন হারিয়েছিলেন তিনি। সেই সুযোগে দ্বিতীয় গোল করে জার্মানিকে বিশ্বকাপ থেকে ছিটকে দিয়েছিল দক্ষিণ কোরিয়া। 

সেই ম্যাচে কাল-চরিত্রের সঙ্গে খানিকটা মিল, অনেকটা অমিল থাকলেও রাজনৈতিক মহলের একাংশের মতে, আজ (সোমবার) রাজ্যসভার ডেপুটি চেয়ারম্যান পদে নির্বাচনে ঠিক সেই ঘটনার পুনরাবৃত্তি হওয়ার সম্ভাবনাই প্রবল। 

কিন্তু কেন?

বছর শেষের বিহার বিধানসভা ভোটের আগে ‘মিনি বিহার’ ভোটে এনডিএ জোটের প্রার্থী জেডিইউ নেতা হরিবংশের সঙ্গে লড়াই করবেন বিরোধী জোটের প্রার্থী তথা আরজেডি নেতা মনোজ ঝা। কিন্তু সংসদের উচ্চকক্ষে সংখ্যার ভিত্তিতে সেই নির্বাচন জেতার দৌড়ে কয়েক কদম এগিয়ে আছে এনডিএ জোট। 

২৪৫ আসনের রাজ্যসভায় আপাতত একটি আসন খালি আছে। বিজেপি-সহ এনডিএ জোটের হাতে আছে ১১৪ টির বেশি আসন। সেই সংখ্যাটা আরও বাড়াতে গত বৃহস্পতিবার ওড়িশার মুখ্যমন্ত্রী নবীন পট্টনায়ককে নিজে ফোন করেছিলেন বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমার। পরদিনই উইপ জারি করে বিজেডির তরফে ভোটের সময় রাজ্যসভায় দলের সব সাংসদকে উপস্থিত থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়। 

তবে কোন প্রার্থীর হয়ে ভোট দেবেন বিজেডি সাংসদরা, সেই অবস্থান স্পষ্ট করা হয়নি। গতবার অবশ্য হরিবংশকে ভোট দিয়েছিল ওড়িশার মুখ্যমন্ত্রী। তাই বিজেপির আশা, এবারও বিজেডির নয় সাংসদই এনডিএ প্রার্থীকে ভোট দেবেন। সঙ্গে ওয়াইএসআর কংগ্রেস, এআইডিএমকে এবং তেলুগু দেশম পার্টি (টিআরএস) তো আছে। বিজেপি নেতৃত্ব নিশ্চিত, শুধু সংখ্যাগরিষ্ঠতা নয়, হরিবংশ প্রায় ১৪০ টি ভোট (সংখ্যাগরিষ্ঠতার থেকে ঢের বেশি) পাবেন। অর্থাত্ হাসতে হাসতে ‘মিনি বিহার’ ভোটে এনডিএ জোটের প্রার্থীর জয় শুধু সময়ের অপেক্ষা বলে মত রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের।

এখানেই আপত্তি তুলেছে তৃণমূল কংগ্রেস। ঘাসফুল শিবির সূত্রে খবর, তৃণমূলের সঙ্গে আলোচনা ছাড়াই প্রার্থী নির্ধারণ করেছে কংগ্রেস। বিশেষত বিহার ভোটের আগে রাজ্যসভার সাধারণ একটি নির্বাচনকে যেভাবে জে়ডিইউ বনাম আরজেডি লড়াই বানিয়ে দেওয়া হয়েছে, তাতেও আপত্তি আছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দলের। উলটে বিহার ভোটে জেডিইউ-বিজেপি জোট রাজ্যসভার সাধারণ নির্বাচনে জয়ের ফায়দা তুলবে বলে মত তৃণমূলের। তাই সোমবারের নির্বাচনে তৃণমূল সাংসদরা থাকবেন না বলেই খবর।

তা সত্ত্বেও সাহসী মুখ তুলে ধরার চেষ্টা করছে বিরোধী জোট। রবিবার সংবাদসংস্থা এএনআইকে শিবসেনা সাংসদ সঞ্জয় রাউত বলেন, ‘রাজ্যসভার ডেপুটি চেয়ারম্যান পদের নির্বাচনে বিরোধী জোটের প্রার্থীকে সমর্থন করবে শিবসেনা।’ বর্তমানে কট্টর বিজেপির বিরোধী শিবসেনার সঙ্গে ডিএমকে, জেএমএমের মতো দলের ভোট মনোজের দিকে গেলেও বিরোধী জোটের প্রার্থীর জয়ের আশা কার্যত নেই বলেই মত রাজনৈতিক মহলের।

বন্ধ করুন