বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > একদিনে শতাধিকের উপর মৃত্যু হল করোনাভাইরাসে, পদ্মাপারে আতঙ্কের বাতাবরণ
দাপট দেখাচ্ছে করোনাভাইরাস, বাধ্য হয়ে ১৬ জুন পর্যন্ত লকডাউন পদ্মাপারে। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)
দাপট দেখাচ্ছে করোনাভাইরাস, বাধ্য হয়ে ১৬ জুন পর্যন্ত লকডাউন পদ্মাপারে। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)

একদিনে শতাধিকের উপর মৃত্যু হল করোনাভাইরাসে, পদ্মাপারে আতঙ্কের বাতাবরণ

  • আজ রবিবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পরিসংখ্যানে জানানো হয়, সব মিলিয়ে দেশে এখনও পর্যন্ত করোনা সংক্রমিত শনাক্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৯ লাখ ৪৪ হাজার ৯১৭। মোট মৃত্যু হয়েছে ১৫ হাজার ৬৫ জনের।

বাংলাদেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হয়ে ১৫৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। পদ্মাপারের করোনা মহামারি একদিনে সর্বোচ্চ মৃত্যুর রেকর্ডে পৌঁছেছে। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে ৮ হাজার ৬৬১ জনের। আজ রবিবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পরিসংখ্যানে জানানো হয়, সব মিলিয়ে দেশে এখনও পর্যন্ত করোনা সংক্রমিত শনাক্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৯ লাখ ৪৪ হাজার ৯১৭। মোট মৃত্যু হয়েছে ১৫ হাজার ৬৫ জনের। গত ২৬ জুন করোনায় মৃত্যু ১৪ হাজার ছাড়িয়েছিল।

অধিদপ্তরের বিজ্ঞপ্তিতে আরও জানানো হয়, করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার পর এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ৮ লাখ ৩৩ হাজার ৮৯৭ জন। সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ৪ হাজার ৬৯৮ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় মোট ২৯ হাজার ৮৭৯ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়। শেষ ২৪ ঘণ্টায় সবচেয়ে বেশি ৫১ জনের মৃত্যু হয়েছে খুলনা জেলায়। ঢাকায় মৃত্যু হয়েছে ৪৬ জনের। রংপুর ও চট্টগ্রামে মারা গিয়েছেন ১৫ জন করে এবং রাজশাহীতে মারা গিয়েছেন ১২ জন।

উল্লেখ্য, এবার করোনাভাইরাসের দাপট শুরু হয় গত ঈদ–উল–ফিতরের পরই। ভারতের সীমান্তবর্তী জেলাগুলিতে রোগী দ্রুত বাড়তে থাকে। পরে তা আশপাশের জেলায়ও ছড়িয়ে পড়েছে। এক মাসের ব্যবধানে দৈনিক শনাক্ত রোগীর সংখ্যা, মৃত্যু ও সংক্রমণের হার কয়েক গুণ বেড়েছে। সংক্রমণ বাড়তে থাকায় সোমবার সকাল থেকে সারা দেশে সব গণপরিবহন ও মার্কেট–শপিং মল বন্ধ করা হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হয়েছে সর্বাত্মক লকডাউন। আর বন্ধ রয়েছে সব সরকারি–বেসরকারি অফিস।

বন্ধ করুন