বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > ISI-এর নির্দেশে আফগান মাটিতে ভারতের বিরুদ্ধে 'যুদ্ধ' তালিবান, পাক জঙ্গিদের
Former Mujahideen hold weapons to support Afghan forces in their fight against the Taliban, on the outskirts of Herat province, Afghanistan July 10, 2021 (REUTERS) (HT_PRINT)
Former Mujahideen hold weapons to support Afghan forces in their fight against the Taliban, on the outskirts of Herat province, Afghanistan July 10, 2021 (REUTERS) (HT_PRINT)

ISI-এর নির্দেশে আফগান মাটিতে ভারতের বিরুদ্ধে 'যুদ্ধ' তালিবান, পাক জঙ্গিদের

  • আফগানিস্তানের মাটিতে ভারতের তৈরি পরিকাঠামো নষ্ট করছে পাক জঙ্গি সংগঠনগুলি। তাদের সঙ্গে হাত মিলিয়েছে তালিবানি যোদ্ধারাও।

আফগানিস্তানের মাটিতে ভারতের বিরুদ্ধে হামলা চালাচ্ছে পাক জঙ্গি সংগঠনগুলি। তাদের সঙ্গে হাত মিলিয়েছে তালিবানি যোদ্ধারাও। এবং এই সংক্রান্ত যাবতীয় নির্দেশ সরাসরি ISI-এর তরফ থেকে আশছে বলে জানা গিয়েছে। পাক গোয়েন্দা সংস্থা নাকি বেছে বেছে ভারতীয় নির্মিত বা মালিকানাধীন পরিকাঠামো ধ্বংসের নির্দেশ দিয়েছে জঙ্গিদের। সেই কাজে পাক জঙ্গিদের মদত করছে তালিবান যোদ্ধারাও।

উল্লেখ্য, গত দুই দশকে আফগানিস্তানের হাল ফেরাতে সেদেশে প্রায় ৩ বিলিয়ন ডলার বিনিয়োগ করেছে ভারত। তবে এই বিনিয়োগের বিরুদ্ধে বরাবর মুখ খুলেছে পাকিস্তান। আফগানিস্তানের সংসদ ভবন, জরঞ্জ সলাম বাঁধ এবং দেলারামের মধ্যকার ২১৮ কিলোমিটার লম্বা রাস্তার মতো একাধিক প্রকল্প ভারত বাস্তাবায়িত করেছে সেদেশে। তবে তা সহ্য করতে পারেনি ইসলামাবাদ। আর তাই এখন জঙ্গিদেরকে দিয়ে এসব ভারত নির্মিত পরিকাঠামো ধ্বংসের পথে হাঁটছে পাকিস্তান।

অনুমান করা হচ্ছে যে বর্তমানে আফগানিস্তানে তালিবানদের সঙ্গে লড়াই করছে পাক মদতপুষ্ট ১০ হাজার জঙ্গি। এই জঙ্গিদের নির্দিষ্ট ভাবে ভারতের তৈরি পরিকাঠামো ধ্বংসের মিশনে পাঠানো হচ্ছে। আর এই নির্দেশ আইএসআই-এর থেকে আসছে বলে সরকারি সূত্র জানিয়েছে সংবাদ সংস্থা এএনআই-কে।

পাক মদতপুষ্ট হাক্কানি গোষ্ঠী বহু বছর ধরে এই এলাকায় ভারত বিরোধী কার্যকলাপ চালিয়ে যাচ্ছে। এই আবহে কয়েকদিন আগে কান্দাহারে নিজেদের দূতাবাস বন্ধ করে দিতে বাধ্য হয় ভারত। আফগানিস্তানে কোনও দূতাবাস বন্ধ করা হবে না বলে দাবি করার দুইদিন পর পরিস্থিতির চাপে এই পদক্ষেপ নিতে হয়। কান্দাহারে কর্মরত ভারতীয় কর্মচারী এবং আইটিবিপি জওয়ানদের দিল্লিতে ফিরিয়েছে ভারত। আফগানিস্তানে রপরিস্থিতি নিয়ে এসসিও-র বৈঠকেও আলোচনা করেন বিদেশমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর। তবে যত দিন যাচ্ছে, ততই তালিবানদের দখলে চলে যাচ্ছে আফগানিস্তান। ততই অশান্ত হচ্ছে এই দেশ।

বন্ধ করুন