আকাশে ধরা পড়া সেই অজানা বস্তু (ছবি সৌজন্য টুইটার)
আকাশে ধরা পড়া সেই অজানা বস্তু (ছবি সৌজন্য টুইটার)

জলের ৫০ ফুট উপরে ৪০ ফুট লম্বা বস্তু - তিনটি গোপন UFO ভিডিয়ো সামনে আনল পেন্টাগন!

  • একটি ভিডিয়োতে দেখা যায়, একটি দ্রুত চলমান বস্তু আকাশে ঘুরছে। ভিডিয়োয় এক পাইলটকে বলতে শোনা হয়, 'ওটার দিকে দেখ, ওটা ঘুরছে।'

আগেই প্রকাশ করেছিল একটি বেসরকারি সংস্থা। এবার সরকারিভাবে তিনটি গোপন ভিডিয়ো প্রকাশ করল পেন্টাগন। যেখানে মার্কিন নৌবাহিনীর পাইলটরা একটি অজানা বস্তুর মুখোমুখি হয়েছেন। ওই বস্তুটি আনআইডেন্টিফায়েড ফ্লাইং অবজেক্টস (ইউএফও) বলে ধারণা।

মার্কিন প্রতিরক্ষা বিভাগ (ডিওডি) জানিয়েছে, তিনটি ভিডিয়ো প্রকাশের অনুমতি দেওয়া হয়েছে। একটি ভিডিয়ো ২০০৪ সালের নভেম্বরে ও অপর দুটি ২০১৫ সালের জানুয়ারিতে তোলা হয়েছিল। '২০০৭ ও ২০১৭ সালে বেসরকারিভাবে প্রকাশের পর যা বিভিন্ন জনগণের মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে।'

ডিওডি-এর ওয়েবসাইটে একটি বিবৃতিতে বলা হয়েছে, জনগণের ভুল ধারণা ও বিভিন্ন মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া ভিডিয়ো সত্য কিনা বা ওইরকম আরও ভিডিয়ো আছে কিনা, তা পরিষ্কার করতে ভিডিয়োগুলি প্রকাশ করেছে ডিওডি। ভিডিয়োয় আকাশে যে বস্তুটি দেখা গিয়েছে, তা অজ্ঞাত হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে।'

ইতিমধ্যে গত বছর তিনটি ভিডিয়োর সত্যতা নিশ্চিত করেছিল পেন্টাগন। সেই ভিডিয়োতে দেখা যায় যে, ২০০৪ সালে প্রশিক্ষণ উড়ানের সময় জলস্তরের ৫০ ফুট উপরে ৪০ ফুটের একটি লম্বা ঘুরেফিরে বেড়ানো বস্তুর মুখোমুখি হয়ে পাইলটরা কী দেখেছিলেন। ২০১৫ সালেও একই ঘটনার সাক্ষী হয়েছিলেন পাইলটরা।

২০১৭ সালে নিউ ইয়র্ক টাইমস যে দুটি ভিডিয়ো প্রকাশ করেছিল, তাতে দেখা যায় যে একটি দ্রুত-চলমান বস্তু আকাশে ঘুরছে। ভিডিয়োয় এক পাইলটকে বলতে শোনা যায়, 'ওটার দিকে দেখ, ওটা ঘুরছে।'

গোপন কর্মসূচি হিসেবে সেই ঘটনার রেকর্ডিং আগেই খতিয়ে দেখেছিল পেন্টাগন। নেভেদার প্রাক্তন সেনেটের হ্যারি রেইডের নির্দেশে সেই কর্মসূচি শুরু হয়েছিল। তবে ২০১২ সালে তা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল।

আজ সেই ভিডিয়ো প্রকাশের পর একটি টুইটবার্তায় রেইড বলেন, 'আমি খুশি, পেন্টাগন শেষপর্যন্ত ফুটেজ প্রকাশ্যে আনছে। কিন্তু গবেষণার যে সুযোগ ও যা সামগ্রী আছে, এটা তার সামান্য অংশ মাত্র। বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে ও বৈজ্ঞানিক দৃষ্টিভঙ্গি দিয়ে দেখা উচিত আমেরিকার। জাতীয় নিরাপত্তার ক্ষেত্রে কোনও সম্ভাব্য প্রভাব রয়েছে কিনা, (তা দেখা উচিত)। আমেরিকার মানুষ তা জানার দাবি রাখেন।'

বন্ধ করুন