বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > ভারতে করোনো টিকার অনুমোদন পেতে তৎপর ফাইজার, ওষুধ-সহ দান ৭০ মিলিয়ন ডলারের সামগ্রী
ভারতে করোনো টিকার অনুমোদন পেতে তৎপর ফাইজার। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য রয়টার্স)
ভারতে করোনো টিকার অনুমোদন পেতে তৎপর ফাইজার। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য রয়টার্স)

ভারতে করোনো টিকার অনুমোদন পেতে তৎপর ফাইজার, ওষুধ-সহ দান ৭০ মিলিয়ন ডলারের সামগ্রী

  • ওষুধ, অক্সিজেন কনসেনট্রেটর, ভেন্টিলেটর দেওয়া হচ্ছে।

করোনাভাইরাস মোকাবিলায় ভারতের পাশে দাঁড়াল ফাইজার। ওষুধ-সহ চিকিৎসা সংক্রান্ত ৭০ মিলিয়ন ডলারের সরঞ্জাম দান করল টিকা প্রস্তুতকারী সংস্থা। সেইসঙ্গে জানানো হল, দ্রুত করোনা টিকার অনুমোদনের জন্য ভারত সরকারের জন্য আলোচনা চলছে।

সোমবার ফাইজারের তরফে জানানো হয়েছে, আমেরিকা, ইউরোপ এবং এশিয়ার বিভিন্ন প্রান্তে সংস্থার বণ্টন কেন্দ্র থেকে ভারতকে বিভিন্ন সামগ্রী প্রদান করা হচ্ছে। অবিলম্বে সেই ওষুধ ভারতে পাঠানোর কাজ চলছে। একটি বিবৃতিতে সংস্থার তরফে বলা হয়েছে, ‘ভারতের প্রত্যেক সরকারি হাসপাতালে যাতে করোনাভাইরাস আক্রান্ত রোগীরা যাতে পরবর্তী ৯০ দিন বিনামূল্যে ওষুধ পান, তা নিশ্চিত করতেই আমরা ওষুধ দান করছি।’ তার মধ্যে আছে, বিভিন্ন ব্যাকটেরিয়ার সংক্রমণ, রক্ত জমাট বাঁধা রুখতে ব্যবহৃত ওষুধ। এছাড়াও অক্সিজেন কনসেনট্রেটর, ভেন্টিলেটরও দেওয়া হচ্ছে।

তবে করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউয়ে রীতিমতো বিধ্বস্ত ভারতে অবশ্য এখনও ফাইজার এবং বায়োএনটেকের করোনা টিকা অনুমোদন পায়নি। তা নিয়ে আক্ষেপ করেছেন ফাইজারের চেয়ারম্যান এবং সিইও অ্যালবার্ট বৌরলা। বিবৃতিতে তিনি বলেছেন, ‘ফাইজার ভালোমতো জানে যে এই মহামারী শেষের জন্য টিকার জোগান অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। দুর্ভাগ্যজনকভাবে ভারতে আমার টিকার নথিভুক্ত হয়নি। যদিও কয়েক মাস আগেই আমরা আবেদনপত্র জমা দিয়েছিলাম। ভারতে ফাইজার এবং বায়োএনটেকের টিকা যাতে ব্যবহার করা হয়, সেজন্য আমাদের টিকার দ্রুত অনুমোদন দেওয়ার জন্য আপাতত সরকারের সঙ্গে আলোচনা চালাচ্ছি।’

বন্ধ করুন