বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > শুয়োরের কিডনি কাজ করল মানবদেহে! তাজ্জব গোটা বিশ্ব
ছবি সৌজন্যে: নিউইয়র্ক ইউনিভার্সিটি (এনওয়াইইউ) ল্যাঙ্গোন হেল্থ। (NYU Langone Health)
ছবি সৌজন্যে: নিউইয়র্ক ইউনিভার্সিটি (এনওয়াইইউ) ল্যাঙ্গোন হেল্থ। (NYU Langone Health)

শুয়োরের কিডনি কাজ করল মানবদেহে! তাজ্জব গোটা বিশ্ব

  • সংবাদ সংস্থা এএফপি এই খবর প্রকাশ করেছে। গত ২৫ সেপ্টেম্বর এই অস্ত্রোপচার করা হয়েছিল।

যুগান্তকারী অস্ত্রোপচার। সাময়িকভাবে একজন ব্যক্তির সঙ্গে শুয়োরের কিডনি সংযুক্ত করতে সফল হল এক মার্কিন মেডিকেল টিম। একটি সংবাদসংস্থা এমনই জানিয়েছে। গত ২৫ সেপ্টেম্বর এই অস্ত্রোপচার করা হয়েছিল।

ওই সংবাদসংস্থার রিপোর্টে বলা হয়েছে, অস্ত্রোপচারটিতে একটি জিনগতভাবে পরিবর্তিত দাতা প্রাণী এবং একটি মস্তিষ্কগতভাবে মৃত রোগীকে একটি ভেন্টিলেটরে যুক্ত করা হয়েছিল। মৃত ব্যক্তির পরিবার বিজ্ঞানের উন্নতির স্বার্থে দুই দিনের পরীক্ষার অনুমতি দিয়েছিলেন।

নিউ ইয়র্ক ইউনিভার্সিটি (এনওয়াইইউ) ল্যাঙ্গোনের ট্রান্সপ্লান্ট ইনস্টিটিউটের ডিরেক্টর রবার্ট মন্টগোমেরি একটি সাক্ষাৎকারে বলেন, 'একটি কিডনির স্বাভাবিক অবস্থায় যা করা উচিত এটি তাই করেছে। কিডনির কাজ হল বর্জ্য অপসারণ এবং প্রস্রাব তৈরি করা। মানবদেহেও সেটাই করেছে শুয়োরের কিডনি।' তিনি জানান, প্রায় দুই ঘণ্টা ধরে অস্ত্রোপচার চলেছিল।

চিকিত্সকরা রোগীর পায়ের উপরের অংশে রক্তনালীতে কিডনি যোগ করেন। এরপর তাঁরা এটি পর্যবেক্ষণ শুরু করেন। কিডনির স্বাস্থ্যের একটি প্রধান নির্দেশক শরীরের ক্রিয়েটিনিনের মাত্রা। অস্ত্রোপচারের পর দেখা যায় যে শুয়োরের কিডনি মানবদেহে ক্রিয়েটিনিনের মাত্রা কমাতে সক্ষম হয়েছে।

মন্টগোমেরি বলেন, 'রোগী মরণোত্তর অঙ্গদানের অঙ্গীকার করে গিয়েছিলেন। কিন্তু তাঁর অঙ্গগুলি উপযুক্ত ছিল না। তাই গবেষণার স্বার্থে তাঁর দেহ দেওয়ায় আপত্তি করেনি পরিবার। বরং বিজ্ঞানের উদ্দেশ্যে তাঁদের প্রিয়জনের অবদানে স্বস্তি পেয়েছেন তাঁরা।' ৫৪ ঘণ্টার পরীক্ষার পর রোগীকে ভেন্টিলেটর থেকে বের করা হয়। তখন তিনি মারা যান। এর আগেই অবশ্য 'ব্রেন ডেথ' হয়েছিল তাঁর।

পূর্ববর্তী গবেষণা অনুসারে, শুয়োরের কিডনি প্রাইমেটের(মানুষ নয়) দেহে এক বছর পর্যন্ত কার্যকর থাকে। তবে এই প্রথম কোনও মানব রোগীর উপর এই ধরনের পরীক্ষা করা হল। দাতা শুয়োর একটি বিশেষ পালের অন্তর্গত ছিল। নির্দিষ্ট জেনেটিক এডিটিংয়ের মধ্যে দিয়ে গিয়েছিল এই শুয়োরের পাল। এক বিশেষ শর্করা উত্পাদনের বৈশিষ্ট্য বাদ দেওয়া হয়েছিল জেনেটিক এডিটিংয়ের মাধ্যমে।

মন্টগোমেরি জানান, 'তিন সপ্তাহ, তিন মাস, তিন বছর শরীরে শুয়োরের কিডনি থাকলে কী হবে, তা এখনও একটা প্রশ্ন।' তিনি বলেন, 'আমরা শুধুমাত্র এক জীবন্ত মানুষের শরীরে সাময়িক স্থানান্তরে সফল হয়েছি। তবে আমি মনে করি এটি একটি সত্যিই গুরুত্বপূর্ণ মধ্যবর্তী পদক্ষেপ। আমরা যে ঠিক পথেই এগোচ্ছি, তার আভাস দিল এই পরীক্ষার ফলাফল।'

রবার্ট মন্টগোমেরি আগামী মাসে একটি বৈজ্ঞানিক জার্নালে এই পরীক্ষার ফলাফল জমা দেওয়ার পরিকল্পনা করেছেন। এক-দুই বছরের মধ্যে ক্লিনিকাল ট্রায়ালেরও আশা করছেন তিনি। বিভিন্ন দেশের বিশেষজ্ঞরা এই পরীক্ষাকে অভিবাদন জানিয়েছেন। তবে একইসঙ্গে তাঁরা দৃঢ় সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে পিয়ার-রিভিউ করা ডেটা দেখতে চান।

বন্ধ করুন