বাড়ি > ঘরে বাইরে > ট্রাম্পকে বার্তা দিতে দক্ষিণ চিন সাগরের মুখে সশস্ত্র সামরিক মহড়া চিনা ফৌজের
আমেরিকার উদ্দেশে কড়া বার্তা দিতেই দক্ষিণ চিন সাগর অঞ্চলে সামরিক মহড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বেজিং।
আমেরিকার উদ্দেশে কড়া বার্তা দিতেই দক্ষিণ চিন সাগর অঞ্চলে সামরিক মহড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বেজিং।

ট্রাম্পকে বার্তা দিতে দক্ষিণ চিন সাগরের মুখে সশস্ত্র সামরিক মহড়া চিনা ফৌজের

  • সপ্তাহব্যাপী এই মহড়ায় অংশগ্রহণ করছে পিএলএ-র বায়ুসেনা এবং নৌসেনার রকেট বাহিনী।

দক্ষিণ চিন সাগরের কাছে চিনের গুয়াংডং প্রদেশের লেইঝউ উপদ্বীপে সাড়ম্বরে শক্তিশালী সশস্ত্র সামরিক মহড়া শুরু করল পিপলস লিবারেশন আর্মি (পিএলএ)।

চিন সরকারের সংবাদমাধ্যমের খবর অনুযায়ী, সপ্তাহব্যাপী এই মহড়ায় অংশগ্রহণ করছে পিএলএ-র বায়ুসেনা এবং নৌসেনার রকেট বাহিনী। 

গত সপ্তাহে প্রথম বার দক্ষিণ চিন সাগরে চিনের দাবি খারিজ করে আমেরিকা। ওই অঞ্চল নিয়ন্ত্রণের দাবি একই সঙ্গে জানিয়েছে ভিয়েতনাম, ফিলিপাইন্স, মালয়েশিয়া, ব্রুনেই ও তাইওয়ান।  

বোঝাই যাচ্ছে, আমেরিকার উদ্দেশে কড়া বার্তা দিতেই সম্প্রতি দক্ষিণ চিন সাগরে সামরিক মহড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বেজিং। চলতি মাসের গোড়ায় বিতর্কিত সমুদ্রাঞ্চলে টহল দিয়ে ফিরেছে বিশালাকৃতির মার্কিন যুদ্ধজাহাজের বহর। এ ছাড়া, দক্ষিণ চিন সাগরের উপরে টহল দিয়েছে মার্কিন বায়ুসেনার ফাইটার জেট। 

সাম্প্রতিক সামরিক মহড়ার খুঁটিনাটি না জানালেও পিএলএ-র তরফে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে বলা হয়েছে, ‘শক্তিশালী অস্তশস্ত্র-সহ বিস্তীর্ণ এলাকাজুড়ে লাইভ-ফায়ার ড্রিল চলবে এবং ওই এলাকায় সাধারণ মানুষের প্রবেশ নিষিদ্ধ করা হয়েছে।’

ঠিক কী কী অস্ত্রশস্ত্র এই মহড়ার অন্তর্ভুক্ত হয়েছে তা জানা না গেলেও বিশেষজ্ঞদের ধারণা, ‘শক্তিশালী অস্ত্রশস্ত্র’-এর উল্লেখ করে আসলে মহড়ার গুরুত্ব বোঝানোর চেষ্টা করেছে চিন সরকার। তবে সামরিক বিশেষজ্ঞ পত্রিকার দাবি, মহড়ায় অন্তর্ভুক্ত হতে পারে পিএলএ-র রকেট বাহিনী, যুদ্ধবিমান এবং নৌবহরের অন্তর্গত সামরিক জলযান। 

 

বন্ধ করুন