বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > PM Modi at Donyi-Polo Airport: ভোটের চমক ছিল না-শিলান্যাসের তিন বছরের মধ্যে অরুণাচল এয়ারপোর্ট খুলে বললেন মোদী

PM Modi at Donyi-Polo Airport: ভোটের চমক ছিল না-শিলান্যাসের তিন বছরের মধ্যে অরুণাচল এয়ারপোর্ট খুলে বললেন মোদী

ফাইল ছবি: পিটিআই (PTI)

বিমানবন্দর উদ্বোধনের পর, প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘নির্বাচনের আগে, ২০১৯ সালের ফেব্রুয়ারিতে এই বিমানবন্দরের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেছিলাম। সেই সময়ে অনেক রাজনৈতিক সমালোচকরাই বলেছিলেন যে, এটি ভোটের আগের চমক মাত্র। এটি আদতে বাস্তবায়িত হবে না। কিন্তু তিন বছরের মধ্যেই আজ এই প্রকল্পের উদ্বোধন।’

শনিবার অরুণাচল প্রদেশের প্রথম গ্রিনফিল্ড বিমানবন্দর উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। ২০১৯ সালে ইটানগরের কাছে হোলোঙ্গির এই বিমানবন্দরের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেছিলেন তিনি। এদিন একইসঙ্গে ৬০০ মেগাওয়াটের কামেং জলবিদ্যুৎ কেন্দ্রের সূচনা করেন প্রধানমন্ত্রী।

বিমানবন্দর উদ্বোধনের পর, প্রধানমন্ত্রী জানান, 'নির্বাচনের আগে, ২০১৯ সালের ফেব্রুয়ারিতে এই বিমানবন্দরের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেছিলাম। সেই সময়ে অনেক রাজনৈতিক সমালোচকরাই বলেছিলেন যে, এটি ভোটের আগের চমক মাত্র। এটি আদতে বাস্তবায়িত হবে না। কিন্তু তিন বছরের মধ্যেই আজ এই প্রকল্পের উদ্বোধন। আর সেটাই এই ধরনের মন্তব্য করা ব্যক্তিদের জন্য উপযুক্ত জবাব।'

'বিমানবন্দর চালু হওয়ার ফলে অরুণাচল প্রদেশের কৃষকদের অনেক উপকার হবে। তাঁদের উত্পাদিত সামগ্রী দেশের বিভিন্ন অংশে সহজে পাঠানো যাবে। এটি তাঁদের আরও অনেক বেশি উপার্জন করতে সহায়তা করবে,' বলেন প্রধানমন্ত্রী। আরও পড়ুন: M‌odi-Mamata Meeting: আগামী ৫ ডিসেম্বর মোদী–মমতার বৈঠক!‌ একাধিক বিষয়ে হতে পারে আলোচনা

ডোনি পোলো

হোলোঙ্গির এই বিমানবন্দরের নাম 'ডোনি পোলো'। রাজ্যের আদিবাসী রীতি অনুযায়ী সূর্য ও চাঁদকে এই নামে ডাকা হয়। আর সেই নামেই এর নামকরণ করা হয়েছে। অরুণাচল প্রদেশের রাজধানী থেকে ২৫ কিলোমিটার দূরে এই বিমানবন্দর। এর মাধ্যমে ইটানগর থেকে দেশের বাকি অংশে সরাসরি উড়ানের সুবিধা মিলবে। এটি অরুণাচল প্রদেশের চতুর্থ বিমানবন্দর। উত্তর-পূর্ব ভারতের ১৬ তম বিমানবন্দর।

প্রায় ৬৯০ একর জুড়ে বিস্তৃত এই বিমানবন্দর নির্মাণে মোট ৬৪০ কোটি টাকা ব্যয় হয়েছে। বিশ্লেষকদের মতে, এটি রাজ্যের পর্যটনের বৃদ্ধিকে উত্সাহিত করবে। এর পাশাপাশি সেই রাজ্যের পণ্য এবং কৃষিজাত দ্রব্য দেশের যে কোনও প্রান্তে দ্রুত পৌঁছে দেওয়া যাবে। এছাড়া ওই অঞ্চলের রোগীরাও দেশের অন্য প্রান্তে উন্নততর চিকিত্সার জন্য সহজে যাতায়াত করতে পারবেন।

ডোনি পোলো বিমানবন্দরে মোট ২,৩০০ মিটার রানওয়ে রয়েছে। আধুনিক নকশায় বানানো এই বিমানবন্দর সমস্ত আবহাওয়ায় কার্যক্ষম। বিমানবন্দরের টার্মিনালও অভিনব। সবুজ শক্তির বিষয়ে আমজনতার সচেতনতা বৃদ্ধির থিম মাথায় রেখে সেটি তৈরি করা হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বহু দশক ধরেই উত্তর-পূর্ব ভারতকে দিল্লির ক্ষমতাশালীরা স্রেফ উপেক্ষা করে এসেছেন। কিন্তু অটল বিহারী বাজপেয়ী ক্ষমতায় আসার পর থেকেই আমরা সেই রীতিতে বদল আনি। কিন্তু তার পরবর্তী সরকারগুলি সেই উদ্যোগ ধরে রাখেনি। ২০১৪ সালে আমরা ফের ক্ষমতায় আসি। আর তারপর এই অঞ্চলকে আবার গুরুত্ব দিতে শুরু করি। বর্তমানে এই অঞ্চল সংস্কৃতি থেকে কৃষি, বাণিজ্য থেকে সংযোগ, ব্যবসা থেকে পর্যটন এবং টেলিকম থেকে টেক্সটাইল- সমস্ত দিকে উন্নতি করছে।

কামেং বিদ্যুত্ প্রকল্প

কামেং বিদ্যুত্ প্রকল্পটি এই অঞ্চলের বৃহত্তম বিদ্যুত্ প্রকল্প হতে চলেছে। এটি বার্ষিক ৩,৩৫৩ মিলিয়ন ইউনিট শক্তি উৎপাদন করতে সক্ষম হবে। এর মাধ্যমে অরুণাচল প্রদেশ বিনামূল্যে প্রায় ৩৯৮ মিলিয়ন ইউনিট (২০০ কোটি টাকার) বিদ্যুৎ পাবে। আরও পড়ুন: Bank Strike: আজ বন্ধ থাকবে না ব্যাঙ্ক, ধর্মঘট ‘পিছিয়ে দিল’ কর্মচারী সংগঠনগুলি

এই প্রকল্পের পিছনে প্রায় ৮,৪৫০ কোটি টাকা ব্যয় করা হয়েছে। রাজ্যের পশ্চিম কামেং জেলায় প্রায় ৮০ বর্গ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে বিস্তৃত। এর মাধ্যমে অরুণাচল প্রদেশের প্রায় ৮,০০০ কোটি টাকার রাজস্ব আয় হবে বলে অনুমান করা হচ্ছে।

বন্ধ করুন