বাড়ি > ঘরে বাইরে > ‘চিনের জাতীয় সুরক্ষা বিপন্ন করছে’, মোদীর বক্তৃতা মুছল WeChat
প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী (ফাইল ছবি, সৌজন্য এএআই)
প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী (ফাইল ছবি, সৌজন্য এএআই)

‘চিনের জাতীয় সুরক্ষা বিপন্ন করছে’, মোদীর বক্তৃতা মুছল WeChat

  • জাতীয় সুরক্ষা বিপন্ন এবং রাষ্ট্রের গোপনীয়তা প্রকাশের অভিযোগ তোলা হয়েছে।

চিনের নাকি জাতীয় সুরক্ষা বিপন্ন হচ্ছে এবং প্রকাশ করা হচ্ছে রাষ্ট্রের গোপনীয়তা। এরকম বিভিন্ন কারণ দর্শিয়ে গালওয়ান সংঘর্ষ নিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর বক্তব্য সরিয়ে দিল জনপ্রিয় চিনা অ্যাপ উইচ্যাট। একইসঙ্গে চিনে ভারতীয় দূতাবাসের আপডেটও মুছে দেওয়া হয়েছে। 

ভারত-চিন সীমান্ত নিয়ে মোদীর বিবৃতি, বৃহস্পতিবার দু'দেশের বিদেশমন্ত্রীর মধ্যে ফোনালাপ এবং দু'দেশের ভারতের বিদেশ মন্ত্রকের মুখপাত্র বিবৃতি সরিয়ে দেওয়া হয়েছে।

তার আগেরদিনই টুইটারের মতো চিনের ওয়েইবো অ্যাকাউন্টে ভারতের বিদেশ মন্ত্রকের মুখপাত্রের বিবৃতি মুছে দেওয়ার পর ভারতীয় দূতাবাসের তরফে জানানো হয়েছিল, তারা পোস্টটি সরিয়ে দেয়নি। চিনা ভাষায় বিবৃতির একটি স্ক্রিনশটও পোস্ট করা হয়। তবে উইচ্যাটের বিবৃতিটি ইংরেজিতেই ছিল।

শনিবার সকালে গরমিলটা প্রথম বুঝতে পারেন উইচ্যাটে ভারতীয় দূতাবাসের ফলোয়াররা। বিবৃতিতে ক্লিক করার পর দেখানো হয় - ‘যিনি পোস্ট করেছেন, তিনি ডিলিট করে দিয়েছেন।’ যদিও ভারতীয় দূতাবাসের তরফে সেই পোস্ট মুছে দেওয়া হয়নি বলে জানা গিয়েছে। তৃতীয় পোস্টে অবশ্য পরিষ্কার বলা হয়েছিল, ‘নিয়ম লঙ্ঘন করায় এই কনটেন্ট দেখানো যাচ্ছে না।’ কনটেন্টটি রিপোর্ট করা হয়েছে এবং তা নিশ্চিত করা হয়েছে। তারপর মান্দারিনে বলা হয়েছে, আইন, নিয়ম ও নীতি লঙ্ঘনের অভিযোগ রয়েছে। পরে জাতীয় সুরক্ষা বিপন্ন, জাতীয় ঐক্য ক্ষুণ্ণ করা, ভুয়ো তথ্য ছড়ানো, ঘৃণা ছড়ানো, অবৈধ জমায়েতে প্ররোচনা দেওয়ার মতো বিষয়গুলি-সহ লম্বা তালিকা তুলে ধরা হয়।

বিষয়টি নিয়ে হিন্দুস্তান টাইমসের তরফে উইচ্যাটের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হচ্ছে। এদিকে, ২০১৫ সালে মে'তে চিনা সফরে এসে ওয়েইবোতে অ্য়াকাউন্ট খুলেছিলেন মোদী।

বন্ধ করুন