বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > Assam: প্রতারণার অভিযোগে গ্রেফতার অসম পুলিশের লেডি সিংঘম, ১৪ দিনের জেল হেফাজত
অসম পুলিশের সেই মহিলা এসআই।

Assam: প্রতারণার অভিযোগে গ্রেফতার অসম পুলিশের লেডি সিংঘম, ১৪ দিনের জেল হেফাজত

  • অসম পুলিশের লেডি সিংঘম হিসেবে জুনমণি খবরের শিরোনামে এসেছিলেন গত মাসে। একটি প্রতারণার মামলায় নিজের বাগদত্তা রানা পোগাগকে গ্রেফতার করার পরেই তিনি খবরের শিরোনামে এসেছিলেন। ওএনজিসিতে চাকরি দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে বেশ কয়েকজনের সঙ্গে আর্থিক প্রতারণার অভিযোগ উঠেছিল তার হবু স্বামীর বিরুদ্ধে।

প্রতারণার দায়ে গ্রেফতার হলেন অসম পুলিশের লেডি সিংঘম হিসেবে পরিচিত জুনমণি রাভা। গতকাল তাকে গ্রেফতার করার পর আদালতে তোলা হলে তার ১৪ দিনের জেল হেফাজতের নির্দেশ দেন বিচারক। ওই পুলিশ অফিসারকে মাজুলী জেলা কারাগারে রাখার নির্দেশ দিয়েছে আদালত।

অসম পুলিশের লেডি সিংঘম হিসেবে জুনমণি খবরের শিরোনামে এসেছিলেন গত মাসে। একটি প্রতারণার মামলায় নিজের বাগদত্তা রানা পোগাগকে গ্রেফতার করার পরেই তিনি খবরের শিরোনামে এসেছিলেন। ওএনজিসিতে চাকরি দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে বেশ কয়েকজনের সঙ্গে আর্থিক প্রতারণার অভিযোগ উঠেছিল তার হবু স্বামীর বিরুদ্ধে। এরপর হবু স্বামীকে নিজের হাতে গ্রেফতার করেন পুলিশের সাব-ইন্সপেক্টর জুনমণি। এদিকে, রানাকে জিজ্ঞাসাবাদ করার পরে সত্যি ঘটনা সামনে আসে পুলিশের কাছে। পুলিশি জেরার মুখে তিনি স্বীকার করেন যে তার হবু স্ত্রী অর্থাৎ জুনমণিও এই প্রতারণার সঙ্গে জড়িত ছিলেন। এরপরে পুলিশ তাকেও গ্রেফতার করে।

উল্লেখ্য, জুনমণির সঙ্গে রানার প্রথমে আলাপ এবং পরে প্রেম হয়েছিল। রানা নিজেকে ওএনজিসির জনসংযোগ বিভাগের আধিকারিক হিসেবে পরিচয় দিয়েছিলেন। গত বছর ৪ অক্টোবর তাদের ধুমধাম করে বাগদান সম্পন্ন হয়। এরপর রানার কাছ থেকে ওএনজিসির ভুয়ো নথিপত্র খুঁজে পান জুনমণি। তখনই রানাকে গ্রেফতার করেন তিনি।

জুনমণি জানুয়ারিতে প্রথম খবরের শিরোনামে আসেন। অসমের মাজুলিতে কয়েকজন দুষ্কৃতিকে গ্রেফতার করেছিলেন। পরে স্থানীয় বিধায়ক ধৃতদের ছেড়ে দিতে বলেন। কিন্তু, জুনমণি তা করেননি। এরপরেই খবরের শিরোনামে চলে আসেন এই মহিলা পুলিশ অফিসার। ফলে সেই ক্ষোভেই তাকে ফাঁসানো হয়েছে কি না সেবিষয়টিও খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

বন্ধ করুন