বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > ১০ক্লাস পাশ, কখনও ভুয়ো অফিসার, কখনও সাংবাদিক, মিস্টার নটবরলালকে খুঁজছে পুলিশ
প্রতারণার নানা অভিযোগ অসমের মৃদুপবন নিয়োগের বিরুদ্ধে উঠেছে।
প্রতারণার নানা অভিযোগ অসমের মৃদুপবন নিয়োগের বিরুদ্ধে উঠেছে।

১০ক্লাস পাশ, কখনও ভুয়ো অফিসার, কখনও সাংবাদিক, মিস্টার নটবরলালকে খুঁজছে পুলিশ

  • পুলিশ জানিয়েছে সে দশম শ্রেণি পর্যন্ত পড়েছে। টুইটার অ্য়াকাউন্টে অসমের রাজ্যপাল জগদীশ মুখীর সঙ্গে করমর্দন অবস্থায় তার ছবি রয়েছে। 

গত কয়েক বছর ধরে একের পর এক ব্যক্তিকে তার প্রতারণার জালে ফাঁসিয়েছে অসমের বাসিন্দা মৃদুপবন নিয়োগ। ৩০ বছর বয়সেই হাত পাকিয়েছে প্রতারণায়। কেন্দ্রীয় সরকারি আধিকারিক পরিচয় দিয়ে বহু মানুষের কাছ থেকে সে টাকা হাতিয়েছে বলে অভিযোগ। সম্প্রতি এক গাড়ির ডিলারের কাছ থেকে সে ৩১ লক্ষ টাকা প্রতারণা করেছিল বলে অভিযোগ। অসমের নওগাঁও থানার পুলিশ ইতিমধ্য়েই অভিযুক্ত ব্য়ক্তির খোঁজে তল্লাশি শুরু করেছে। রবিরার অসমের ডিরেক্টর জেনারেল অফ পুলিশ ভাস্কর জ্যোতি মোহন্ত জানিয়েছেন, আমাদের তদন্ত সঠিক পথেই চলছে। দ্রুত আমরা ইতিবাচক ফলাফল পাব। 

পুলিশ ইতিমধ্যেই তার গুয়াহাটির বাড়ি তল্লাশি করে দুটি বিলাসবহুল গাড়ি, একটি পিস্তল, ২০টি তাজা গুলি, সরকারি সীলমোহর দেওয়া একাধিক প্যাড,বিভিন্ন পদের কথা উল্লেখ করা পরিচয়পত্র, প্রচুর সোনার গহনা, মদ, একটি মিডিয়া হাউজের লোগো সহ নানা কিছু বাজেয়াপ্ত করেছে। পুলিশ সূত্রে খবর, একজন গাড়ি ডিলারের কাছ থেকে সে ৩১ লক্ষ টাকা নিয়েছিল। একটি এসইউভি গাড়িটি বিক্রি করবে বলে। কিন্তু টাকা নিয়েও মাস দুয়েক ধরে গাড়ি দেয়নি বলে অভিযোগ। এরপরই ওই ব্যক্তি থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। বিভিন্ন বিখ্যাত ব্যক্তিদের সঙ্গে ছবি তুলে সে মানুষের সঙ্গে প্রতারণা করত বলে অভিযোগ। নওগাঁওের পুলিশ সুপার আনন্দ কুমার মিশ্র বলেন, এই লোকটা অনেকটা হিন্দি সিনেমার মিস্টার নটবরলালের মতো। প্রভাবশালী নানা পরিচয় দিয়ে সে ধনীদের কাছ থেকে টাকা আদায় করত। পুলিশ জানিয়েছে, কখনও কেন্দ্রীয় সরকারি আমলা, কখনও আবার সিনিয়র সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে সে টাকা তুলত বলে অভিযোগ। 

 

বন্ধ করুন