বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > ‘‌তারা উল্লেখই করল না তিনটি গম্বুজ কাঠামো সরানোর কথা’‌, এনসিআরটি’‌র বিরুদ্ধে মুখ খুললেন রামমন্দিরের প্রধান পুরোহিত

‘‌তারা উল্লেখই করল না তিনটি গম্বুজ কাঠামো সরানোর কথা’‌, এনসিআরটি’‌র বিরুদ্ধে মুখ খুললেন রামমন্দিরের প্রধান পুরোহিত

রামমন্দির

দ্বাদশ শ্রেণির রাষ্ট্রবিজ্ঞান বইতে বাবরি মসজিদ প্রসঙ্গে আগে লেখা ছিল ১৬০০ শতাব্দীতে মুঘল সম্রাট বাবরের সেনাপতি মির বাকি, এই মসজিদ নির্মাণ করেন। কেন্দ্রীয় সরকার নিয়ন্ত্রিত কেন্দ্রীয় শিক্ষা মন্ত্রকের অধীন স্বশাসিত সংস্থা এনসিইআরটি যে নয়া সিলেবাস প্রকাশ করেছে সেখানে বাবরি মসজিদের নাম মুছে ফেলা হয়েছে।

দ্বাদশ শ্রেণির রাষ্ট্রবিজ্ঞানের পাঠ্যপুস্তকে অযোধ্যা ও বাবরি মসজিদ বিষয়ক সংশোধনী নিয়ে সরব হয়ে উঠেছে দেশের তামাম বিরোধীরা। ইতিহাস বিকৃতি এবং শিক্ষায় গেরুয়াকরণের অভিযোগ তুলে বিদ্ধ করা হয়েছে ন্যাশনাল কাউন্সিল অফ এডুকেশনাল রিসার্চ অ্যান্ড ট্রেনিংকে (এনসিইআরটি)। এই আবহে এবার মুখ খুললেন রাম জন্মভূমি মন্দিরের প্রধান পুরোহিত সত্যেন্দ্র দাস মহারাজ। তিনি এই সংশোধনী নিয়ে ‘‌অসন্তুষ্ট’‌ বলে জানিয়ে দিয়েছেন। আর এই অসন্তোষ এনসিইআরটি’‌র বিরুদ্ধে। কারণ তারা অযোধ্যা আন্দোলনই মুছে দিতে চেয়েছেন বলে তাঁর দাবি।

এদিকে ১৯৯২ সালে অযোধ্যার মাটি থেকে বাবরি মসজিদে প্রথম আঘাত হেনেছিল কর সেনারা। তারপর সময় বয়ে গিয়েছে অনেকটা। এখন সেখানে বাবরির অস্তিত্ব চিরতরে মুছে এখন গড়ে উঠেছে রাম মন্দির। এবার এনডিএ সরকারের আমলে এনসিইআরটি দ্বাদশ শ্রেণির রাষ্ট্রবিজ্ঞানের সিলেবাস থেকেও মুছে দেওয়া হল বাবরির অস্তিত্ব। এই বিষয়ে সংবাদসংস্থা এএনআই–কে দেওয়া সাক্ষাৎকারে রাম জন্মভূমি মন্দিরের প্রধান পুরোহিত সত্যেন্দ্র দাস মহারাজ বলেন, ‘‌তারা উল্লেখই করল না তিনটি গম্বুজ কাঠামো কেমন করে সরানো হল ১৯৯২ সালের ৬ ডিসেম্বর। তারা শুরুই করল ২০১৯ সালের ৯ নভেম্বর তারিখ দিয়ে। যেদিন অযোধ্যা নিয়ে রায় ঘোষণা করা হয়েছিল।’‌

আরও পড়ুন:‌ চার বিধানসভা উপনির্বাচনে পাঁচজন ইনচার্জ নিয়োগ করলেন সুকান্ত, ‌প্রার্থী ঘোষণা কবে?‌

অন্যদিকে পুরনো রাষ্ট্রবিজ্ঞানের পাঠ্যপুস্তকে অযোধ্যা ও বাবরি মসজিদের ইতিহাস সংক্রান্ত বিবরণ নিয়ে চার পাতা লেখা ছিল। নতুন বইয়ে সটা কমে দু’পাতা হয়েছে। আর সংশোধনীতে গুজরাটের সোমনাথ থেকে বিজেপির রথযাত্রা, বাবরি মসজিদ ধ্বংস, সাম্প্রদায়িক অশান্তি, তৎকালীন উত্তরপ্রদেশে রাষ্ট্রপতি শাসন জারির মতো বিষয়গুলি বাদ দেওয়া হয়েছে। এমনকী, বাবরি মসজিদ শব্দটিও ব্যবহার করা হয়নি নতুন বইয়ে। এই গোটা বিষয়টি নিয়েই ‘‌অসন্তুষ্ট’‌ রাম জন্মভূমি মন্দিরের প্রধান পুরোহিত সত্যেন্দ্র দাস মহারাজ।

এছাড়া দ্বাদশ শ্রেণির রাষ্ট্রবিজ্ঞান বইতে বাবরি মসজিদ প্রসঙ্গে আগে লেখা ছিল ১৬০০ শতাব্দীতে মুঘল সম্রাট বাবরের সেনাপতি মির বাকি, এই মসজিদ নির্মাণ করেন। তবে কেন্দ্রীয় সরকার নিয়ন্ত্রিত কেন্দ্রীয় শিক্ষা মন্ত্রকের অধীন স্বশাসিত সংস্থা এনসিইআরটি যে নয়া সিলেবাস প্রকাশ করেছে সেখানে বাবরি মসজিদের নাম মুছে ফেলা হয়েছে। এই বিষয়ে সংবাদসংস্থা পিটিআই–কে এনসিআরটির ডিরেক্টর দীনেশ প্রসাদ সাকলানি বলেছেন, ‘আমরা চাই, আমাদের নাগরিকদের মধ্যে ইতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গি গড়ে উঠুক। এটাই আমাদের পাঠ্যপুস্তকের উদ্দেশ্য। আমাদের শিক্ষার উদ্দেশ্য, উগ্র মানসিকতার নাগরিক তৈরি করা নয়। পাঠ্যপুস্তকের ওইসব অংশ উগ্র ও হতাশাগ্রস্ত নাগরিক তৈরি করতে পারে। ছোট বাচ্চাদের কি দাঙ্গার কথা শেখানো উচিত?’

ঘরে বাইরে খবর

Latest News

দাঁত দিয়ে নখ কাটার অভ্যাস আছে? তাহলে এই লেখাটি আপনার অবশ্যই পড়া দরকার বাড়িতে টিয়া পাখি থাকা কি শুভ? এর ছবি ঘরে রাখলে কী হয়? বাস্তুশাস্ত্রমত দেখে নিন কলকাতা–ঢাকা মৈত্রী এক্সপ্রেস বাতিল ঘোষণা করল রেল, ভাড়ার অর্থ ফেরত কোন শর্তে?‌ উঠল নিষেধাজ্ঞা! সরকারি কর্মীরা RSS কর্মকাণ্ডে দিতে পারবেন যোগ, সরব বিরোধীরা MLC 2024: রশিদের ঘূর্ণিতে থমকে গেল নাইট রাইডার্স, চার উইকেটে জিতে প্লে-অফে MI অপারেশনের পর শরীর থেকে বের করা হয়নি সুচ, কাঠগড়ায় ডাক্তার, দিতে হবে ক্ষতিপূরণ ‘মন্ত্রকের সামনেও বসাবেন?’ অবৈধ হকার নিয়ে প্রশাসনকে তুলোধোনা বোম্বে হাইকোর্টের ‘উনি মালদার আম-আমসত্ত্ব কিছুই পাবেন না’ মমতাকে তোপ কংগ্রেস-বিজেপির জার্মানিতে পাক দূতাবাসে দুুষ্কৃতী হামলা, ছোড়া হল পাথর, নিন্দায় সরব পাকিস্তান ঝড়ের গতিতে বাড়ছে চাঁদিপুরা ভাইরাস, কেন সব থেকে বেশি আক্রান্ত হচ্ছে শিশুরা

Copyright © 2024 HT Digital Streams Limited. All RightsReserved.