বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > রাজনৈতিক অস্থিরতা রাজস্থানে, নির্দল ও দলবদলু বিধায়করা বেসুরো গাইছেন
রাজনৈতিক টালমাটাল অবস্থা রাজস্থানে (প্রতীকী ছবি)

রাজনৈতিক অস্থিরতা রাজস্থানে, নির্দল ও দলবদলু বিধায়করা বেসুরো গাইছেন

  • এবার নির্দল ও কংগ্রেসে যোগ দেওয়া বিদায়ী বিএসপি বিধায়করা একযোগে সচিন পাইলটের ক্য়াম্পের বিরুদ্ধে সুর চড়াতে শুরু করেছেন।

রাজস্থানের রাজনৈতিক অস্থিরতা যেন শেষ হওয়ার নয়। এবার নির্দল ও কংগ্রেসে যোগ দেওয়া বিদায়ী বিএসপি বিধায়করা একযোগে সচিন পাইলটের ক্য়াম্পের বিরুদ্ধে সুর চড়াতে শুরু করেছেন। তাঁদের দাবি ক্যাবিনেটকে সম্প্রসারন করতে হবে ও পদ দিতে হবে। মুখ্য়মন্ত্রী অশোক গেহলট ঘনিষ্ঠ এক নির্দল বিধায়কের দাবি, ‘আমরা সরকারের সঙ্গে এখনও রয়েছি। তবে কংগ্রেসে যোগ দেওয়া ৬জন বিদায়ী বিএসপি বিধায়ক ও নির্দল বিধায়কদের সঙ্গে আলোচনা করে আমরা এটাই বলতে চাইছি কংগ্রেস যেন তার প্রতিশ্রুতি ভুলে না যায়।’

রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের মতে, ২০১৯ সালের সেপ্টেম্বর মাসে ৬জন বিএসপি বিধায়ক কংগ্রেসে যোগ দিয়েছিলেন। এবার তারাই হাইকমান্ডের উপর চাপ দিতে শুরু করেছেন। তাঁদের দাবি গত বছর সরকার যখন সংকটে পড়েছিল তখন তাঁরাই পাশে ছিলেন। এবার ১৩জন নির্দল বিধায়ক ও ৬জন দলবদল করে আসা বিধায়ক ২৩জুন মিটিংয়ে বসবেন। ক্যাবিনেটে জায়গা দেওয়া ও রাজনৈতিক পদ দেওয়ার দাবিতেই সরব তাঁরা। 

এদিকে রাজস্থানের দায়িত্বে থাকা কংগ্রেস নেতা অজয় মাকেন গত শুক্রবার জানিয়েছিলেন, ‘কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব প্রাক্তন ডেপুটি সিএম শচিন পাইলটের সঙ্গে যোগাযোগ রাখছেন। তিনি দলের সম্পদ।’ এরপরই কার্যত বিভ্রান্তির মধ্যে পড়ে যান একাধিক বিধায়ক। তাঁদের দাবি, ‘একবছর কেটে যেতে চলল দল আমাদের জন্য কিছুই করল না। অথচ এখন পাইলট ক্যাম্পের হয়ে কথা বলছেন। এসব নিয়ে আরও বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছে।’

 

বন্ধ করুন