বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > 'বিদ্যুৎ সঙ্কট নেই, আইডিয়ার অভাবে অকারণ আতঙ্ক ছড়াচ্ছে কংগ্রেস', দাবি মন্ত্রীর
কয়লা সঙ্কটের জেরে ব্যাহত হতে পারে বিদ্যুত্ পরিষেবা। প্রতীকী ছবি (HT_PRINT)
কয়লা সঙ্কটের জেরে ব্যাহত হতে পারে বিদ্যুত্ পরিষেবা। প্রতীকী ছবি (HT_PRINT)

'বিদ্যুৎ সঙ্কট নেই, আইডিয়ার অভাবে অকারণ আতঙ্ক ছড়াচ্ছে কংগ্রেস', দাবি মন্ত্রীর

  • জানা গিয়েছে অতিবৃষ্টির কারণে কয়লা উত্তোলনের হার কমেছে। পাশাপাশি আমদানি করা কয়লার দাম বেড়েছে।

বিগত বেশ কয়েক দিন ধরেই খবরের শিরোনামে উঠে এসেছে দেশের কয়লা সঙ্কটের বিষয়টি। এর জেরে একাধিক রাজ্যে বিদ্যুতের অভাবে অন্ধকার নেমে আশার আশঙ্কা তৈরি হয়। তবে কয়লা সঙ্কট নিয়ে উলটো সুর শোনা গেল কেন্দ্রীয় বিদ্যুত্ মন্ত্রী আরকে সিংয়ের গলায়। তাঁর সাফ দাবি, অহেতুক আতঙ্ক ছড়ানো হচ্ছে। পাশাপাশি তিনি কংগ্রেসকেও একাহত নিয়ে বলেন, 'ওরা নতুন নতুন আইডিয়া পাচ্ছে না আর, তাই এইসব নিয়ে আতঙ্ক ছড়াচ্ছে।'

কেন্দ্রীয় মন্ত্রী রবিবার দাবি করেন, GAIL ও টাটা গোষ্ঠীর ভুল বোঝাবুঝির জেরে এই পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। উত্সবের মরশুমে রাজধানী সহ ৬ রাজ্যের বিদ্যুৎ পরিষেবা নিয়ে যে আতঙ্ক তৈরি হয়েছে, সেই প্রসঙ্গে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বলেন, 'আমাদের কাছে পর্যাপ্ত জ্বালানি আছে। সমগ্র দেশকেই বিদ্যুৎ সরবরাহ নির্বিঘ্নে চলছে। যে চাইবে, আমি তাঁদেরই সরবরাহ করব। আমাকে শুধু জানাতে হবে তার চাহিদা কত।'

এর আগে দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে চিঠি লিখে বিদ্যুত্ সংঙ্কটের বিষয়ে জানিয়েছিলেন। আর এদিন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী দাবি করেন, দিল্লিতে কয়লা সরবরাহ অব্যাহত থাকছে এবং রাজধানীতে কোনও লোডশেডিং হবে না। গত সপ্তাহ থেকেই গুজরাত, পঞ্জাব, রাজস্থান, দিল্লি, মধ্যপ্রদেশ এবং তামিলনাড়ু সহ বেশ কয়েকটি রাজ্য বিদ্যুৎ কেন্দ্রগুলিতে কয়লার ঘাটতি নিয়ে আশঙ্কা প্রকাশ করে। জানা গিয়েছে অতিবৃষ্টির কারণে কয়লা উত্তোলনের হার কমেছে। পাশাপাশি আমদানি করা কয়লার দাম বেড়েছে। এর জেরেই কয়লা সঙ্কট দেখা দেয়। যার জেরে উত্সবের মরশুমে দেশের বিভিন্ন রাজ্যে অন্ধকার নেমে আসার পরিস্থিতিতে তৈরি হয়। তবে মন্ত্রীর দাবি, বর্ষআ বিদায়ের পর অক্টোবরে কয়লার সরবরাহ বাড়লে ফের কয়লার ভাণ্ডার আবার বাড়তে শুরু করবে।

 

বন্ধ করুন