বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > চলতি মাসেই ব্যাঙ্ক-পোস্ট অফিসের এই কাজগুলি সারুন, অন্যথা মোটা জরিমানা
ফাইল ছবি : রয়টার্স (Reuters)
ফাইল ছবি : রয়টার্স (Reuters)

চলতি মাসেই ব্যাঙ্ক-পোস্ট অফিসের এই কাজগুলি সারুন, অন্যথা মোটা জরিমানা

দেখে নিন এক নজরে। এই মাসের মধ্যেই সেরে ফেলুন কাজ।

অর্থবর্ষ প্রায় শেষের দিকে। সময় থাকতেই তাই আপনার যাবতীয় আর্থিক কাজকর্ম সারুন।আগামী ৩১ মার্চের মধ্যে PPF, NPS, আয়কর সংক্রান্ত কাজ না সারলে হতে পারে জরিমানা।তবে চিন্তার কিছু নেই। আপনাকে মনে করিয়ে দেওয়ার জন্যই এই প্রতিবেদন।

 

এক নজরে দেখে নিন, ৩১ মার্চের মধ্যে কী কী সারতে হবে:

1

PPF-এ নূন্যতম বিনিয়োগ : প্রতি অর্থবর্ষে পিপিএফ অ্যাকাউন্টে নূন্যতম ৫০০ টাকা জমা করতে হয়। সেটা না করলে অ্যাকাউন্ট বন্ধ হয়ে যাবে। শুধু তাই নয়, ৫০ টাকার জরিমানাও হবে। জরিমানা মেটানোর পর ৫০০ টাকা জমা করলে তবেই আবার অ্যাকাউন্ট চালু হবে।

2

NPS-এ নূন্যতম বিনিয়োগ : ন্যাশানাল পেনশন সিস্টেমের ক্ষেত্রেও রয়েছে রয়েছে নূন্যতম বিনিয়োগের নিয়ম। Tier 1 অ্যাকাউন্টের ক্ষেত্রে অন্তত ৫০০ টাকা রাখতে হবে প্রতি অর্থবর্ষে। Tier 2 অ্যাকাউন্টের ক্ষেত্রে ২৫০ টাকা। অন্যথা অ্যাকাউন্ট স্থগিত হয়ে যাবে। অ্যাকাউন্ট আবার চালু করতে ৫০০ টাকা জমা করতে হবে।

3

পোস্ট অফিস RD : পোস্ট অফিসে রেকারিং ডিপোজিট অ্যাকাউন্টের ক্ষেত্রে নিয়ম একটু আলাদা। প্রতি মাসের ১৫তম দিনের আগেই মাসিক বিনিয়োগের টাকা জমা করতে হয়। এটি যদিও মাসের প্রথম থেকে ১৫তম দিনের মধ্যে খোলা অ্যাকাউন্টের জন্য প্রযোজ্য। ১৬তম দিন থেকে মাসের শেষের মধ্যে খোলা অ্যাকাউন্টের ক্ষেত্রে ঠিক সেই মতোই হবে জমা দেওয়ার সীমা।

যদি কোনও মাসে টাকা জমা না পরে, সেক্ষেত্রে ডিফল্ট হিসাবে ১০০ টাকা জমা করতে হবে। তবে, ৪ মাস পর্যন্ত এভাবে ডিফল্ট করতে দেওয়া হয়।

তাই পোস্ট অফিসের আরডি-র টাকা এখনও জমা না করে থাকলে সেই কাজও সেরে ফেলুন।

4

শেষ মুহূর্তের আয়কর ফাইল করা : যদি এখনও FY20-এর আয়কর রিটার্ন ফাইল না করা থাকে, তবে এই শেষ সুযোগ। আগামী ৩১ মার্চের মধ্যে অবশ্যই এটি সেরে ফেলুন। অন্যথায় উল্টে বেশি টাকার জরিমানা হতে পারে। করের পরিমাণের ৫০ শতাংশ হতে পারে নূন্যতম জরিমানা। তাছাড়া, আইনলঙ্ঘণও যে হবে, তা বলাই বাহুল্য।

5

'বিবাদ সে বিশ্বাস' স্কিম : আগামী ৩১ মার্চ এই স্কিমের মর্মে ডিক্লেরেশান দেওয়ার শেষ দিন। বিশেষ বিশেষ কারণে আয়কর জমা না দিলে এই স্কিম কার্যকর হয়। এটি অনুযায়ী জরিমানা, অতিরিক্ত সুদ ও আইনানুগ পদক্ষেপ থেকে নিষ্কৃতি মিলবে। কিন্তু সময়ের মধ্যে না করলে আয়কর দফতরের নোটিশ পেতে হবে।

বন্ধ করুন