বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > মমতা নাম প্রস্তাব করতে পারেন শরদ পাওয়ারের, আস্তিনে থাকছে গোপালকৃষ্ণ গান্ধীও

মমতা নাম প্রস্তাব করতে পারেন শরদ পাওয়ারের, আস্তিনে থাকছে গোপালকৃষ্ণ গান্ধীও

শরদ পাওয়ারের সঙ্গে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। (ছবি সৌজন্যে পিটিআই)

সংবাদ সংস্থা পিটিআই সূত্রে খবর, বিরোধীদের পক্ষ থেকে ইতিমধ্যেই গোপালকৃষ্ণের সঙ্গে যোগাযোগ বাড়ানো হয়েছে। ফোনে তাঁর সঙ্গে কথা বলেছেন বিরোধী শিবিরের একাধিক নেতা। সকলের অনুরোধ মেনে রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে তাঁকে।

রাষ্ট্রপতি নির্বাচন নিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ডাকা বৈঠকে একটু ফাটল দেখা গিয়েছে। আজ, বুধবার নয়াদিল্লিতে কনস্টিটিউশন হলে বিরোধীদের বৈঠকে থাকছে না আপ–টিআরএস–বিজেডি বলে সূত্রের খবর। কিন্তু বাকি বিরোধী সব দলই প্রতিনিধি পাঠাচ্ছেন। এই বৈঠকেই ঠিক হতে চলেছে রাষ্ট্রপতি পদে হেভিওয়েট প্রার্থী। আগামী ১৮ জুলাই রাষ্ট্রপতি নির্বাচন।

ঠিক কী চমক থাকতে পারে?‌ সূত্রের খবর, এই বৈঠকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রাষ্ট্রপতি পদে নাম প্রস্তাব করতে পারেন শরদ পাওয়ারের। সেখানে মতামত দেখে পরের চালও তৈরি রেখেছেন তিনি। যদি দেখা যায় শরদ পাওয়ারকে নিয়ে সবাই ঐক্যমত হতে পারছেন না তাহলে আস্তিন থেকে তুরুপের তাস হিসাবে বের করতে পারেন গোপালকৃষ্ণ গান্ধীর নাম। সেক্ষেত্রে সবাই একমত হবেন একেবারে নিশ্চিত।

ঠিক কী সমীকরণ তৈরি হয়েছে?‌ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যে বৈঠক ডেকেছেন তাতে বিরোধীরা একমত যে এনডিএ প্রার্থীকে রাষ্ট্রপতি পদে আসা রুখতে হবে। তাই এই বৈঠক বেশ গুরুত্বপূর্ণ। মোদী–শাহের হাতে যে এমপি–এমএলএ সংখ্যা রয়েছে তা দিয়ে রাষ্ট্রপতি নির্বাচন জেতা সম্ভব নয়। বাইরে থেকে সমর্থন নিতে হবে। সেখানে বাংলার প্রাক্তন রাজ্যপাল তথা মহাত্মা গান্ধীর পৌত্র গোপালকৃষ্ণ গান্ধীকেই পরবর্তী রাষ্ট্রপতি হিসেবে তুলে ধরা হলে বিরোধীরা একমত হবেন। আর তাহলেই কাত বিজেপি। সংবাদ সংস্থা পিটিআই সূত্রে খবর, বিরোধীদের পক্ষ থেকে ইতিমধ্যেই গোপালকৃষ্ণের সঙ্গে যোগাযোগ বাড়ানো হয়েছে। ফোনে তাঁর সঙ্গে কথা বলেছেন বিরোধী শিবিরের একাধিক নেতা। সকলের অনুরোধ মেনে রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে তাঁকে।

কেন এই নাম উঠে এল?‌ সূত্রের খবর, শরদ পাওয়ার ঘনিষ্ঠমহলে বলেছেন তিনি রাষ্ট্রপতি হতে চান না। আর বিরোধীরা যদি তাঁকে নিয়ে একমত হতে না পারেন তাহলে ব্যাকআপ হিসাবে রাখা রয়েছে গোপালকৃষ্ণ গান্ধীর নাম। সোনিয়া গান্ধীর সঙ্গে যখন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কথা হয়েছিল তখন এই নামটি নিয়ে দু’‌জনেই একমত হয়েছিলেন। তারপরেই পাল্টে যায় সমীকরণ। এখন দেখার শেষ পর্যন্ত জল কোনদিকে গড়ায়।

বন্ধ করুন