বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > ১৫৭টি মাছের দাম ১ কোটি ৩৩ লক্ষ টাকা, কপাল খুলে গেল ৮জন মৎস্যজীবীর
এই ঘোল মাছই বিক্রি হয়েছে ১ কোটি ৩৩ লক্ষ টাকায়  (সংগৃহীত )
এই ঘোল মাছই বিক্রি হয়েছে ১ কোটি ৩৩ লক্ষ টাকায়  (সংগৃহীত )

১৫৭টি মাছের দাম ১ কোটি ৩৩ লক্ষ টাকা, কপাল খুলে গেল ৮জন মৎস্যজীবীর

  • গত ২৮শে অগস্ট সন্ধ্যায় মাছ ধরার জন্য চন্দ্রকান্ত তারে নামে এক মৎস্যজীবী তাঁর ৮জন সহকর্মীকে নিয়ে সমুদ্রে গিয়েছিলেন।

মাছ ধরেই সংসার চলে তাঁদের। বলা ভালো টেনেটুনে সংসার চালাতে হয় তাঁদের। আর সেই মাছই কপাল খুলে দিল মহারাষ্ট্রের কয়েকজন মৎস্যজীবীর। গত ২৮শে অগস্ট সন্ধ্যায় মাছ ধরার জন্য চন্দ্রকান্ত তারে নামে এক মৎস্যজীবী তাঁর ৮জন সহকর্মীকে নিয়ে সমুদ্রে গিয়েছিলেন। গভীর সমুদ্রে অন্যান্যদিনের মতোই তারা মাছ ধরছিলেন। এদিকে অন্যান্য মাছের সঙ্গে যে মাছ তাদের জালে উঠেছিল তা দেখে তো একেবারে চক্ষুচড়ক গাছ তাদের। ডাঙায় ফেরার পর পালঘরের মুরবে এলাকায় নিলামে তোলা হয় মাছগুলিকে। গুনে গুনে মোট ১৫৭টি ঘোল মাছ। আর নিলামে সেই মাছেরই দাম উঠেছে এক কোটি ৩৩ লক্ষ টাকা।

বিহার ও উত্তরপ্রদেশের ব্যবসায়ীরা এই দুর্মূল্য মাছ কিনে নিয়েছেন। কিন্তু কেন এই মাছের এত দাম সেটাই ভাবাচ্ছে অনেককে। বলা যায় সোনার মতো মূল্যবান এই মাছ। এই মাছ ‘সি গোল্ড’ নামে পরিচিত। বর্তমানে দূষণের জেরে এই মাছের সংখ্যা অনেকটাই কমে যাচ্ছে বলে মনে করা হচ্ছে। এই মাছের বিজ্ঞানসম্মত নাম ‘প্রোটোনিবিয়া ডায়াকানথুস’। এই মাছের প্রত্যেকটি অংশ ওষুধ ও প্রসাধন তৈরির কাজে ব্যবহার করা হয়। হংকং, মালয়েশিয়া, তাইল্যান্ড, ইন্দোনেশিয়া সিঙ্গাপুর, জাপানে এই মাছের বিপুল চাহিদা রয়েছে। সেই মাছই ভাগ্যক্রমে উঠে এসেছে মৎস্যজীবীদের জালে। এই মাছই কার্যত কপাল ফিরিয়ে দিয়েছে মৎস্যজীবীদের। আবার কবে ওই বিশেষ মাছ উঠবে জালে সেদিকেই তাকিয়ে রয়েছেন মৎস্যজীবীরা। 

 

বন্ধ করুন