বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > Sudhir Suri Shot dead: পঞ্জাবে হিন্দুত্ববাদী সংগঠনের নেতাকে গুলি করে খুন, গ্রেফতার ১, উদ্ধার আগ্নেয়াস্ত্র

Sudhir Suri Shot dead: পঞ্জাবে হিন্দুত্ববাদী সংগঠনের নেতাকে গুলি করে খুন, গ্রেফতার ১, উদ্ধার আগ্নেয়াস্ত্র

প্রয়াত শিবসেনা নেতা সুধীর সুরি

জানা গিয়েছে, প্রতিবাদ চলার সময় ভিড় থেকে একজন বেরিয়ে এসে সুরিকে লক্ষ্য করে খুন করে। অমৃতসরের পুলিশ জানিয়েছে, ‘গোপাল মন্দিরের কাছে সুধীর সুরিকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে প্রতিবাদ সভার সময়। তাঁর বুলেটের ক্ষত ছিল, আর তাঁকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল সেখানেই তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করা হয়।’

পঞ্জাবের অমৃতসরে শুক্রবার পঞ্জাবের স্থানীয় হিন্দুত্ববাদী দল শিবসেনার নেতা সুধীর সুরিকে গুলি করে খুনের ঘটনায় তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। জানা গিয়েছে, এক মন্দিরের সামনে এই হত্যাকাণ্ড ঘটে যায়। জানা গিয়েছে, পঞ্জাবের ওই স্থানীয় হিন্দুত্ববাদী সংগঠন 'শিবসেনা' শীর্ষক দলের নেতারা অমৃতসরের এক মন্দিরের সামনে প্রতিবাদ করছিলেন। ওই মন্দিরে দেবমূর্তি ভাঙচুর করে তা মন্দিরের বাইরে ফেলে রাখতে দেখা যায়। তারপরই এই প্রতিবাদ ও খুনের ঘটনা বলে জানা গিয়েছে।

জানা গিয়েছে, প্রতিবাদ চলার সময় ভিড় থেকে একজন বেরিয়ে এসে সুরিকে লক্ষ্য করে খুন করে। অমৃতসরের পুলিশ জানিয়েছে, ‘গোপাল মন্দিরের কাছে সুধীর সুরিকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে প্রতিবাদ সভার সময়। তাঁর বুলেটের ক্ষত ছিল, আর তাঁকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল সেখানেই তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করা হয়।’ পুলিশ জানিয়েছে, এই ঘটনায় অভিযুক্তকে গ্রেফতার করা হয়েছে। আর একটি অস্ত্রও উদ্ধার হয়েছে। এদিকে, পঞ্জাব পুলিশ এই হামলার নেপথ্যের কারণ নিয়ে কিছু বলতে চায়নি প্রাথমিকভাবে।

 এদিকে, ঘটনা নিয়ে সরব হয়েছে বিজেপি। হিন্দুত্ববাদী কর্মীর এই মৃত্যু নিয়ে বিজেপি নেত্রী প্রীতি গান্দী অভিযোগ তোলেন পঞ্জাবের আম আদমি পার্টির সরকারের দিকে। তাঁর দাবি, পুলিশের সামনে নিয়ে এই ঘটনা ঘটেছে। প্রীতি গান্ধী তাঁর টুইটে লেখেন, ‘তিনি (সুধীর সুরি) খালিস্তানিদের হিটলিস্টে ছিলেন। ’ তিনি লেখেন 'এই পরিস্থিতিতে পঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী ভগবন্ত মান গুজরাতের বিধানসভা নির্বাচন নিয়ে ব্যস্ত।’ 

উল্লেখ্য, কয়েক মাস আগেই সিধু মুসেওয়ালার হত্যাকাণ্ড নিয়ে গোটা পঞ্জাব ছিল ত্রস্ত। জনপ্রিয় গায়কের মৃত্যুতে ফের একবার উঠেছিল খালিস্তানি প্রসঙ্গ। এরর এই হিন্দুবাদী সংগঠনের নেতার মৃত্যুতে ফের সেই প্রসঙ্গ উঠছে। প্রশ্ন উঠছে, কে বা কারা এই হত্যাকাণ্ডের নেপথ্যে রয়েছে। প্রশ্ন উঠছে পঞ্জাবের নিরাপত্তা পরিস্থিতি নিয়েও।

 

 

 

 

 

বন্ধ করুন