বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > Vladimir Putin: হরিণের শিংয়ের রক্তে সত্যিই কি স্নান করেন পুতিন? তাঁর স্বাস্থ্য ঘিরে চাঞ্চল্যকর কিছু গুঞ্জন ঘুরপাক খাচ্ছে
ভ্লাদিমির পুতিন।  Thibault Camus/Pool via REUTERS/File Photo (REUTERS)

Vladimir Putin: হরিণের শিংয়ের রক্তে সত্যিই কি স্নান করেন পুতিন? তাঁর স্বাস্থ্য ঘিরে চাঞ্চল্যকর কিছু গুঞ্জন ঘুরপাক খাচ্ছে

  • রাশিয়ায় কোথাও গুঞ্জন রয়েছে তিনি সাইবেরিয়ার হরিণের শিংয়ের রক্তে স্নান করেন, কেউ বলছেন পুতিন এখন চিকিৎসার জন্য অন্য কোথাও রয়েছেন। এই সমস্ত গুঞ্জনের সত্যতা যাচাইয়ের কোনও বিশেষ উপায় নেই। তবে, অক্টোবরে ৭০ বছরে পা দিতে চলা ভ্লাদিমির পুতিনের স্বাস্থ্য একাধিক প্রশ্ন তুলছে রাশিয়ার বুকে। 

ইউক্রেনে তাঁর পাঠানো রুশ সেনাবাহিনীর ২০ হাজার সেনা জওয়ানের মৃত্যু হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। ইউক্রেনের বুকে রুশ আগ্রাসন নিয়ে বিশ্ব জুড়ে ভ্লাদিমির পুতিনের সমালোচনা যেমন হয়েছে, তেমনই তাঁর নিজের দেশের অনেকেই এই যুদ্ধে খুশি নন। তবে পুতিনের গদি টলানোর ক্ষমতা রাশিয়ায় এখন কারোর নেই। এহেন দোর্দণ্ডপ্রতাপ রাষ্ট্রনেতাভ্লাদিমির পুতিন এখন কেমন আছেন? কোথায় আছেন তিনি? এই প্রশ্ন ঘুরপাক খেতে শুরু করেছে রাশিয়া জুড়ে।

রাশিয়ায় কোথাও গুঞ্জন রয়েছে তিনি সাইবেরিয়ার হরিণের শিংয়ের রক্তে স্নান করেন, কেউ বলছেন পুতিন এখন চিকিৎসার জন্য অন্য কোথাও রয়েছেন। এই সমস্ত গুঞ্জনের সত্যতা যাচাইয়ের কোনও বিশেষ উপায় নেই। তবে, অক্টোবরে ৭০ বছরে পা দিতে চলা ভ্লাদিমির পুতিনের স্বাস্থ্য একাধিক প্রশ্ন তুলছে রাশিয়ার বুকে। গত দুই দশকে তাঁর শরীর স্বাস্থ্য সম্পর্কে সেভাবে খবর আসেনি। তবে এবার তা রুশ প্রশাসনের উদ্বেগের কারণ হয়েছে বলে খবর। জানা গিয়েছে পুতিনের স্বাস্থ্য নিয়ে এপ্রিল নাগাদ যে তথ্য এসেছিল তাতে জানা গিয়েছে, সোচিতে একটি রিসর্টে পুতিনের সফর ও তাঁর সঙ্গে প্রচুর সংখ্যক চিকিৎসকের আনাগোনা নিঃসন্দেহে একটি বড় ইস্যু। চিকিৎসক দলের মধ্যে ছিলেন থাইরয়েড ক্যানসার বিশেষজ্ঞও। ফলে সেই জায়গা থেকেই একাধিক প্রশ্ন উঠছে। 

গুঞ্জন রয়েছে, পুতিন যে সাইেবেরিয়ার হরিণের রক্তে স্নান করেন তা তাঁর শরীরকে কোনও বড় রোগ থেকে মুক্তি দিতেই। শোনা যায়, পুতিনকে এই পরামর্শ রাশিয়ার প্রতিরক্ষামন্ত্রী দিয়েছেন, যিনি নিজে সাইবেরিয়ায় ভূমিপুত্র। আইএএস অফিসার থেকে রাজনীতিবিদ হয়ে ওঠা যশবন্ত সিনহা এবার 'রাইসিনা'র লড়াইয়ে

এছাড়াও জানা গিয়েছে, ২০১৭, ২০১৯ সালে সৌদি আরবের সফরে পুতিন যখন গিয়েছিলেন তখন তাঁর সঙ্গে বিশেষজ্ঞদের একটি বড় দল গিয়েছিল। শোনা যায়, যখনই পুতিন শৌচাগারে গিয়েছেন, তারপরই এই বিশেষজ্ঞরা শৌচাগার থেকে কোনও কিছু মুছে ফেলার চেষ্টা করেছে। মনে করা হচ্ছে, পুতিনের মূত্র বা মলের নমুনা সংগ্রহ করে ভিন দেশের গোয়েন্দারা যাতে তাঁর রোগ জেনে না ফেলেন, তাই জন্যই এমন বিশেষজ্ঞের দল নিয়ে ঘোরেন পুতিন। 

মার্কিনি গোয়েন্দামহলের দাবি, এই বছরের এপ্রিল থেকেই পুতিনের ক্যানসারের চিকিৎসা হয়েছে। ইউক্রেনের সেনা প্রধানের দাবি, তাঁদের কাছে খবর রয়েছে পুতিন ক্যানসারে আক্রান্ত। বলা হচ্ছে, পুতিন নিজের চিকিৎসার সময় সোচিতেই থাকেন। আর সেখানে গোপনে একটি এমন অফিস তৈরি করা হয়েছে, যা মসকোর অফিসের মতোই দেখতে। ফলে তিনি যে গোপনে রোগের চিকিৎসা করাচ্ছেন তা যেন কেউ ধরতে না পারে তাঁর ছবি দেখে। 

ক্রেমলিনের দাবি পুতিন ভ্যাকসিনেটেড। তবে শোনা যায় করোনাকালে তাঁর কাছে যে সাংবাদিক বা নেতা মন্ত্রীরা গিয়েছেন, তাঁদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করে যেতে দেওয়া হয়েছে পুতিনের কাছে। অনেককে কোয়ারেন্টাইনেও রাখা হয়েছে বলে গুঞ্জন। এই সমস্ত ঘটনাই গুঞ্জন। তবে আসল সত্য জানার অপেক্ষায় গোটা বিশ্ব।

 

 

 

বন্ধ করুন