বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > করোনা থাবায় নাজেহাল, বিহারে দেশি উপায়ে ইমিউনিটি বাড়াচ্ছেন রেলকর্মীরা
দেশি উপায়ে ইমিউনিটি বাড়ানোর চেষ্টা রেলকর্মীদের
দেশি উপায়ে ইমিউনিটি বাড়ানোর চেষ্টা রেলকর্মীদের

করোনা থাবায় নাজেহাল, বিহারে দেশি উপায়ে ইমিউনিটি বাড়াচ্ছেন রেলকর্মীরা

  • শরীর সুস্থ রাখতে এবং ইমিউনিটি বাড়াতে দেশি উপায়ে ভাপ নিচ্ছেন রেলকর্মীরা।

করোনা সংক্রমণের থেকে বাঁচতে এবার দেশি জোগাড়ের সাহায্য নিল। একটি ভাইরাল ভিডিয়ো থেকে অনুপ্রাণিত হয়ে রেল কর্মীদের প্রেশার কুকারের থেকে ভাপ নিতে বলা হয়েছে। বিহারের সমস্তিপুর ডিভিশনে এভাবেই রেলকর্মীদের শরীর সুস্থ রাখতে এবং তাদের ইমিউনিটি বাড়াতে দেশি উপায়ের সাহায্য নেওয়া হচ্ছে।

এই প্রসঙ্গে রেলের ডিভিশনাল ম্যানেজার অশোর মহেশ্বরীকে প্রশ্ন করা হলে তিনি হিন্দুস্তান টাইমসকে জানান, প্রায় ছ'টি রেল স্টেশনের কর্মীরা এভাবে প্রেশার কুকার ব্যবহার করে ভাপ নিচ্ছে। তিনি আরও বলেন, 'আমরা চাই যে প্রত্যেক রেল কর্মী দিনে অনন্ত তিনবার করে ভাপ নিক। এতে তাদের ইমিউনিটি বাড়বে।'

পূর্ব-মধ্য রেলওয়ে জোনের অধীনে থাকা পাঁচটি ডিভিশনের মধ্যে অন্যতম এই সমস্তিপুর। এই ডিভিশনের অধীনে প্রায় ২০০টি রেল স্টেশন রয়েছে। পূর্ব-মধ্য রেলওয়ে জোনের ১৮৯১ জন বর্তমানে করোনা সংক্রমিত। এখনও পর্যন্ত এই জোনের ৫০ জন রেল কর্মী করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গিয়েছে। এই পরিস্থিতিতে পূর্ব-মধ্য রেলওয়ের জেনারেল ম্যানেজার ললিত চন্দ্র ত্রিবেদী রেলকর্মীদের সঙ্গে দেখা করেন।

পশ্চিম চম্পারণের নারকাটিগঞ্জ স্টেশনের চিফ ক্রু কন্ট্রোলার উমেশ কুমার বলেন, 'আমাদের রানিং রুমে গার্ড, ট্রেন চালকসহ বিভিন্ন রেল কর্মীরারা ভাপ নেয়। প্রেশার কুকারের সঙ্গে যুক্ত একটি পাইপের সামনে দাঁড়িয়ে একবারে চারজন কর্মী ভাপ নিতে পারে।' এদিকে রেলের ডিভিশনাল ম্যানেজার জানান, দেশি উপায়ে ভাপ নেওয়ার পদ্ধতি ছাড়াও ইলেক্ট্রনিক স্টিম নেওয়ার উপায় রাখা আছে।

বন্ধ করুন