বাড়ি > ঘরে বাইরে > রাজস্থান সংকটে নয়া টুইস্ট, কংগ্রেসের থেকে ৬ বিধায়ক ‘উদ্ধার’-এ হাইকোর্টে মায়াবতী
মায়াবতী (ফাইল ছবি, সৌজন্য এএনআই)
মায়াবতী (ফাইল ছবি, সৌজন্য এএনআই)

রাজস্থান সংকটে নয়া টুইস্ট, কংগ্রেসের থেকে ৬ বিধায়ক ‘উদ্ধার’-এ হাইকোর্টে মায়াবতী

  • দলের প্রতীকে জেতা ছয় বিধায়ককে অনাস্থা ভোটে কংগ্রেসের বিরুদ্ধে ভোট দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে বিএসপি।

অশোক গেহলট বনাম সচিন পাইলট দ্বন্দ্বে এবার নয়া পক্ষ হিসেবে অবতীর্ণ হলেন বিএসপি সুপ্রিমো মায়াবতী। রবিবার তিনি জানালেন, দলের ছ'জন বিধায়কের ‘পুনরুদ্ধার’-এর জন্য রাজস্থান হাইকোর্টের দ্বারস্থ হবে বিএসপি। যে বিধায়করা গত বছর কংগ্রেসের সঙ্গে মিশে গিয়েছিলেন।

আরও পড়ুন : BJP-তে কেন কলকে পাচ্ছেন না মুকুল রায়, দেখে নিন ১০টি পয়েন্ট

গত বছর সেপ্টেম্বরে রাজস্থান বিধানসভার স্পিকার সিপি জোশীর কাছে বিএসপির ছ'জন বিধায়ক আর্জি জানিয়েছিলেন, তাঁরা কংগ্রেসের সঙ্গে হাত মিলিয়েছেন বলে যেন বিবেচনা করা হয়। যে প্রস্তাব দ্রুততার সঙ্গে মেনে নিয়েছিলেন স্পিকার। তাতে রীতিমতো ক্ষুব্ধ হন মায়াবতী। যদিও কংগ্রেস সরকারকে সমর্থন করছিল তাঁর দল।

আরও পড়ুন : চিনা সংস্থারা যে সব টেন্ডার জেতার মুখে, শুধু সেগুলি বাতিল করবে ভারত

এরইমধ্যে গত সপ্তাহে রাজস্থান কংগ্রেসের সঙ্গে বিএসপি বিধায়কদের মিশে যাওয়ার বিরুদ্ধে হাইকোর্টে যান বিজেপি বিধায়ক মদন দিলওয়ার। নিজের আর্জিতে তিনি জানান, কংগ্রেসের অভিযোগ পাওয়ার কয়েক ঘণ্টার পাইলট ও বিদ্রোহী বিধায়কদের নোটিস পাঠিয়ে দিলেন স্পিকার। অথচ গত বছর বিএসপি বিধায়কদের বহিষ্কারের অভিযোগ নিয়ে কোনও পদক্ষেপ করেননি তিনি।

আরও পড়ুন : বিতর্কিত জায়গায় পিলারের পর এবার বেড়া দিল নেপাল, উঠল ভারত বিরোধী স্লোগান

রাজস্থান সংকটের শুরুতে মায়াবতী অবশ্য সে বিষয়ে কিছু বলেননি। নবম দিনে তিনি অভিযোগ করেন, তাঁর দলের বিধায়কদের 'চুরি' করে নিয়েছেন গেহলট। বিরোধীদের কল ট্যাপের অভিযোগ তোলার পাশাপাশি রাজস্থানে রাষ্ট্রপতি শাসন জারি করারও আর্জি জানান। কিন্তু তারপর রাজস্থান সংকট নিয়ে কোনও উচ্চবাচ্য করেননি। 

আরও পড়ুন : পেন দিয়েই করা যাবে স্যানিটাইজ‍! বাজারে এল ‘স্যানিটাইজার পেন’

অবশেষে রবিবার সন্ধ্যায় বিএসপির তরফে জানানো হয়, দলের প্রতীকে জেতা ছয় বিধায়ককে অনাস্থা ভোটে কংগ্রেসের বিরুদ্ধে ভোট দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। সেই নির্দেশ মতো ভোট না দিলে সদস্যপদ খারিজেরও হুঁশিয়ারি দেওয়া হয়েছে। ওই ছ'জন বিধায়ক যে কংগ্রেসে গিয়েছেন, তা অবৈধ। কারণ কংগ্রেস ও বিএসপির মধ্যে সেরকম কোনও সংযোজন হয়নি। একইসঙ্গে বিএসপির তরফে জানানো হয়েছে, স্পিকারের নির্দেশের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে যাচ্ছে দল। তবে নতুন করে আবেদন দাখিল করবে নাকি এখন যে মামলা চলছে, তাতে নয়া পক্ষ হিসেবে যোগ দেওয়া হবে, সে বিষয়ে এখনও চূড়ান্ত নেননি মায়াবতী।

আরও পড়ুন : অযোধ্যায় রাম মন্দিরের জন্য সোনার ইট দিলেন স্বঘোষিত মুঘল বংশধর

তবে ‘বহেনজি’-র এই পদক্ষেপে গেহলট আরও চাপে পড়ে গেলেন। বিএসপি, নির্দল এবং অন্যান্য দলের বিধায়ক-সহ ২০০ সদস্যের বিধানসভায় কংগ্রেসের আছে ১২৫ জন বিধায়ক। এরইমধ্যে পাইলট ক্যাম্পে যোগ চলে গিয়েছেন ২০ জনের মতো বিধায়ক। ফলে এখনই ম্যাজিক ফিগারের থেকে খুব বেশি সংখ্যক বিধায়ক নেই কংগ্রেসের হাতে। সেই পরিস্থিতিতে ছ'জন বিএসপি বিধায়ক কংগ্রেসের বিরুদ্ধে ভোট দিলে গেহলটের রক্তচাপ যথেষ্ট বাড়বে বলে মত রাজনৈতিক মহলের।

বন্ধ করুন