বাড়ি > ঘরে বাইরে > গ্রামে দোকানঘরের বিদ্যুৎ বিল ৩.৭১ কোটি টাকা! চোখ কপালে উঠল চাষির
রাজস্থানের কৃষিজীবীকে ৩ কোটি ৭১ লাখ টাকার বিল পাঠাল অজমেঢ় বিদ্যুৎ বিতরণ নিগম লিমিটেড।
রাজস্থানের কৃষিজীবীকে ৩ কোটি ৭১ লাখ টাকার বিল পাঠাল অজমেঢ় বিদ্যুৎ বিতরণ নিগম লিমিটেড।

গ্রামে দোকানঘরের বিদ্যুৎ বিল ৩.৭১ কোটি টাকা! চোখ কপালে উঠল চাষির

  • জানা গিয়েছে, ছাপার ভুলে ওই অস্বাভাবিক পরিমাণ অর্থ বিলে স্থান পেয়েছে।

দুই মাসে খরচ হয়েছে ৩.৮ কোটি ইউনিট। রাজস্থানের কৃষিজীবীকে ৩ কোটি ৭১ লাখ টাকার বিল পাঠাল অজমেঢ় বিদ্যুৎ বিতরণ নিগম লিমিটেড। 

গত ২২ অগস্ট প্রকাশিত ওই বিজলি বিল জমা দেওয়ার শেষ দিন নির্ধারিত ছিল ৩ সেপ্টেম্বর। কিন্তু বিলে ছাপা টাকার অঙ্ক দেখে চোখ কপালে ওঠে কৃষক পেমারাম প্যাটেলের (২২)। বিল হাতে তিনি ছোটেন কাছের ই-মিত্র কেন্দ্র অর্থাৎ রাজস্থান সরকারের ই-প্রশাসন কেন্দ্রে। 

বিদ্যুতের এই বিল দেখেই ঘুম ছুটেছিল পেমারাম প্যাটেলের।
বিদ্যুতের এই বিল দেখেই ঘুম ছুটেছিল পেমারাম প্যাটেলের।

উদয়পুর জেলার গিংলা গ্রামের বাসিন্দা পেমারাম তাঁর মালিকানাধীন দোকানঘরটি এক ব্যক্তিকে ভাড়া দিয়েছেন, যিনি সেখানে গাড়ি সার্ভিসিংয়ের কাজ করেন। সেই দোকানঘরেরই সাম্প্রতিক বিদ্যুৎ বিল নিয়ে মহল্লায় সাড়া পড়ে যায়। 

পেমারাম জানিয়েছেন, ‘আমি ই-মিত্র কেন্দ্রে যাওয়ার পরে জানতে পারি যে, ছাপার ভুলে ওই অস্বাভাবিক পরিমাণ বিলে স্থান পেয়েছে। আসলে বিদ্যুৎ ব্যবহারের ফলে বিল হয়েছিল ৬,৪১৪ টাকা। ই-মিত্র কেন্দ্র থেকেই তা মিটিয়ে দিয়েছি।’

সুপারিন্টেন্ডিং ইঞ্জিনিয়ার গিরিশ জোশি জানিয়েছেন, যে অপারেটার মিটার রিডিং নথিভুক্ত করেন, তিনিই ভুল করে এই কাণ্ড ঘটিয়েছেন। তবে অভিযোগ পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে বিল সংশোধন করে সঠিক অর্থ বিলে বসানো হয়।

এ দিকে পেমারামের উদ্ভট বিজলি বিল নিয়ে তোলপাড় উঠেছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। 

বন্ধ করুন