বাড়ি > ঘরে বাইরে > সংকটজনক কোভিড রোগীর জন্য সরকারি খরচে প্রাণদায়ী ইঞ্জেকশন ও প্লাজমা থেরাপি গেহলটের
সংকটজনক কোভিড রোগীর জন্য প্রাণদায়ী ইঞ্জেকশন ও প্লাজমা থেরাপি আবশ্যিক ঘোষণা করলেন রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী অশোক গেহলট।
সংকটজনক কোভিড রোগীর জন্য প্রাণদায়ী ইঞ্জেকশন ও প্লাজমা থেরাপি আবশ্যিক ঘোষণা করলেন রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী অশোক গেহলট।

সংকটজনক কোভিড রোগীর জন্য সরকারি খরচে প্রাণদায়ী ইঞ্জেকশন ও প্লাজমা থেরাপি গেহলটের

  • সরকারি খরচায় এই চিকিৎসা পরিষেবা প্রদানের নির্দেশ দিয়েছেন রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী।

রাজস্থানের প্রত্যেক সংকটজনক কোভিড রোগীর জন্য প্রাণদায়ী টোসিলিজুমাব ইঞ্জেকশন এবং প্লাজমা থেরাপি আবশ্যিক ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী অশোক গেহলট। রবিবার স্বাস্থ্য ও প্রশাসনিক বিভাগের আধিকারিকদের সরকারি খরচায় এই চিকিৎসা পরিষেবা প্রদানের নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।

গতকাল রাজ্যের সাম্প্রতিক করোনা পরিস্থিতি পর্যালোচনা বৈঠকে গেহলট বলেন, প্রতিটি টোসিলিজুমাব ইঞ্জেকশন ডোজের দাম পড়ে প্রায় ৪০,০০০ টাকা এবং এই কারণে তা সঙ্গতিহীন রোগীদের পক্ষে জোগাড় করা অসম্ভব। এই কারণে তার জন্য অর্থ বরাদ্দ করেছে রাজস্থান সরকার, জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। রাজ্যের সমস্ত মেডিক্যাল কলেজ ও জেলা হাসপাতালে এই ইঞ্জেকশন এবং প্লাজমা থেরাপির ব্যবস্থা রাখার নির্দেশ দেন তিনি। 

পাশাপাশি, রাজ্যজুড়ে প্লাজমা দান শিবির আয়োজন করার নির্দেশও দিয়েছেন গেহলট। তিনি জানান, যাঁরা কোভিড থেকে সুস্থ হয়ে উঠেছেন, তাঁদের প্লাজমা দান করতে উৎসাহিত করার জন্য উদ্যোগ নেবে সরকার।

বৈঠকে জানানো হয় যে ইতিমধ্যে জয়পুর, যোধপুর ও কোটাতে প্লাজমা থেরাপি চালু হয়ে গিয়েছে। গেহলট জানান, রাজ্যে Covid-19 পরীক্ষার হার বাড়ানো হয়েছে। ওই পরীক্ষার ফল যাতে দ্রুত পাওয়া যায়, সেই সম্পর্কে পদক্ষেপ করার নির্দেশ দিয়েছেন রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী।

গেহ

বন্ধ করুন