বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > 'গলা টিপে ধরায় দমবন্ধ', 'হাত ধরে টানা' - রাজ্যসভার ‘যুদ্ধ’ নিয়ে চিঠি মার্শালদের
'গলা টিপে ধরায় দমবন্ধ', 'হাত ধরে টানা' - রাজ্যসভার ‘যুদ্ধ’ নিয়ে চিঠি মার্শালদের। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)

'গলা টিপে ধরায় দমবন্ধ', 'হাত ধরে টানা' - রাজ্যসভার ‘যুদ্ধ’ নিয়ে চিঠি মার্শালদের

  • রাজ্যসভায় মহিলা বিরোধীদের ‘নিগ্রহ’ নিয়ে শাসক ও বিরোধীদের তরজা ক্রমশ বাড়ছে।

রাজ্যসভায় মহিলা বিরোধীদের ‘নিগ্রহ’ নিয়ে শাসক ও বিরোধীদের তরজা ক্রমশ বাড়ছে। তারইমধ্যে রাজ্যসভা সচিবালয়ের নিরাপত্তা বিষয়ক অধিকর্তাকে চিঠি লিখে নিরাপত্তা আধিকারিকরা দাবি করলেন, তাঁদের হেনস্থা করেছেন বিরোধী সাংসদরা। গলা টিপে ধরা হয়েছিল বলে অভিযোগ করলেন এক নিরাপত্তা আধিকারিক। এক মহিলা নিরাপত্তা আধিকারিকের দাবি, তাঁকে হাত ধরে টানা হয়েছিল।

রাজ্যসভা সচিবালয়ের নিরাপত্তা বিষয়ক অধিকর্তাকে লেখা চিঠিতে গ্রেড-১ সিকিউরিটি অ্যাসিসট্যান্ট রাকেশ নেগি দাবি করেন, সংসদের উচ্চকক্ষে মার্শালের দায়িত্বে ছিলেন। বুধবার মার্শালরা যে নিরাপত্তা বলয় তৈরি করেছিলেন, তা ভেঙে দেওয়ার চেষ্টা করন সাংসদ এলামারান করিম এবং অনিল দেশাই। সেইসময় করিম তাঁর গলা টিপে ধরেন। তার জেরে কিছুক্ষণের জন্য তাঁর প্রায় দমবন্ধ হয়ে আসছিল। 

বুধবার রাজ্যসভায় সাধারণ বিমা সংস্থার ব্যবসা (জাতীয়করণ) সংশোধনী বিল পেশের সময় তুমুল হট্টগোল হয়। 'বন্ধু' শিল্পপতিদের স্বার্থে নরেন্দ্র মোদী সরকার সেই বিল এনেছে বলে দাবি করতে থাকেন বিরোধীরা। সরকার-বিরোধী স্লোগান দিতে দিতে তাঁরা ওয়েলে নেমে পড়েন। 'চেয়ার'-এর দিকে যাওয়ার আগেই তাঁদের আটকানো হয়। প্রায় ৫০ জন মহিলা ও পুরুষ নিরাপত্তারক্ষী মিলে কার্যত 'চেয়ার'-কে ঘিরে রাখেন। বিরোধীদের থামাতে মহিলা সাংসদরা যেখানে বিরোধিতা করছিলেন, সেখানে পুরুষ নিরাপত্তারক্ষী এবং যেখানে পুরুষ সাংসদরা ছিলেন, সেখানে মহিলা নিরাপত্তারক্ষীদের মোতায়েন করা হয়।

কংগ্রেসের সাংসদ মল্লিকার্জুন খাড়গে অভিযোগ করেন, ‘আজ রাজ্যসভায় যুদ্ধের মতো পরিস্থিতি তৈরি হয়েছিল। আমাদের সদস্যের থেকে মার্শালের সংখ্যা বেশি ছিল। মার্শালরা আমাদের মহিলা সদস্যদের হেনস্থা করেছেন। সংসদের ভিতরেও মহিলারা সুরক্ষিত নন।’ বৃহস্পতিবার রাহুল গান্ধী দাবি করেন, বহিরাগতদের নিয়ে এসে মহিলা সাংসদের শারীরিকভাবে নিগ্রহ করা হয়েছে। যদিও সরকারের পালটা দাবি, মহিলা নিরাপত্তাকর্মীর গলা টিপে দেওয়ার চেষ্টা করা হয়।

রাজ্যসভা সচিবালয়ের নিরাপত্তা বিষয়ক অধিকর্তাকে লেখা চিঠিতে গ্রেড-২ সিকিউরিটি অ্যাসিসট্যান্ট অক্ষিতা ভাট অবশ্য সেরকম কোনও গলা টিপে ধরার বিষয়ে জানাননি। তিনি দাবি করেন, কয়েকজন পুরুষ সাংসদ তাঁর দিকে চলে আসেন এবং নিরাপত্তা বলয় ভেঙে এগিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন। সাংসদ ছায়া বর্মা এবং ফুলোদেবী নিতম তাতে যোগ দেন। নিরাপত্তা বলয় ভাঙার চেষ্টা করেন। দুই মহিলা সাংসদই তাঁকে জোর করে হাত ধরে টানতে থাকেন। উল্লেখ্য, সংবাদসংস্থা পিটিআই জানিয়েছিল, বুধবার বিরোধীদের থামাতে মহিলা সাংসদরা যেখানে বিরোধিতা করছিলেন, সেখানে পুরুষ নিরাপত্তারক্ষী এবং যেখানে পুরুষ সাংসদরা ছিলেন, সেখানে মহিলা নিরাপত্তারক্ষীদের মোতায়েন করা হয়।

বন্ধ করুন