বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > Repo Rate: মুদ্রাস্ফীতির জের, রেপো রেট বদলের বড় সিদ্ধান্ত RBI-এর, বাড়তে চলেছে EMI-এর বোঝা
আরবিআই গভর্নর শক্তিকান্ত দাস (PTI)

Repo Rate: মুদ্রাস্ফীতির জের, রেপো রেট বদলের বড় সিদ্ধান্ত RBI-এর, বাড়তে চলেছে EMI-এর বোঝা

  • Repo Rate: এর আগে দেশে করোনা অতিমারীর প্রকোপ দেখা যাওয়ার পর ১১৫ বেসিস পয়েন্ট কমানো হয়েছিল রেপো রেট। মুদ্রাস্ফীতি ও নগদ প্রবাহের ভারসাম্য বজায় রাখতে রেপো রেট ও রিভার্স রেট কমানো হয়েছিল। এরপর থেকে টানা বেশ কয়েক দফা রেপো রেট বদল না করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল আরবিআই।

রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া বৃহস্পতিবার রেপো রেট বদলের ঘোষণা করল। আরবিআই-এর তরফে ঘোষণা করা হয়, রেপো রেট ৪০ বেসিস পয়েন্ট বাড়িয়ে ৪.৪০ শতাংশে করা হচ্ছে। এই হার অবিলম্বে কার্যকর হবে বলেও জানায় কেন্দ্রীয় ব্যাঙ্ক। আরবিআই গভর্নর শক্তিকান্ত দাস জানান, ২ থেকে ৪ মে-এর মধ্যে অনুষ্ঠিত মনেটারি পলিসি কমিটির বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য, এর আগে দেশে করোনা অতিমারীর প্রকোপ দেখা যাওয়ার পর ১১৫ বেসিস পয়েন্ট কমানো হয়েছিল রেপো রেট। মুদ্রাস্ফীতি ও নগদ প্রবাহের ভারসাম্য বজায় রাখতে রেপো রেট ও রিভার্স রেট কমানো হয়েছিল। এরপর থেকে টানা বেশ কয়েক দফা রেপো রেট বদল না করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল আরবিআই। তবে দেশের বর্তমান মুদ্রাস্ফীতির হার ও ভূ-রাজনৈতিক পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে এবার রেপো রেট এক ধাক্কায় ৪০ বেসিস পয়েন্ট বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হল কেন্দ্রীয় ব্যাঙ্কের তরফে।

বিশ্বব্যাপী মুদ্রাস্ফীতি বাড়ছে এবং এর প্রভাব পড়ছে ভারতেও। আরবিআই চেয়েছিল যাতে দেশের মুদ্রাস্ফীতির হার ৬ শতাংশের মধ্যে থাকে। তবে কেন্দ্রীয় ব্যাঙ্ককে অস্বস্তিতে ফেলে মুদ্রাস্ফীতির হার ৬.৯৫ শতাংশে পৌঁছে গিয়েছে। ওয়াকিবহল মহলের অনুমান, সামনের মাসগুলিতে মুদ্রাস্ফীতির চাপ আরও বাড়বে ভারতীয় অর্থনীতির উপর। 

এদিন শক্তিকান্ত দাস বলেন, ‘সুদের হার বৃদ্ধির লক্ষ্য হল মধ্যমেয়াদী অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির সম্ভাবনাকে শক্তিশালী ও একত্রিত করা।’ এদিকে আরবিআই গভর্নর জানান, ক্যাশ রিজার্ভ রেশিও ৫০ বেসিস পয়েন্ট বাড়তে চলেছে ২১ মে থেকে। বর্ধিত ক্যাশ রিজার্ভ রেশিও হবে ৪.৫০ শতাংশ। তবে রিজার্ভ রেপো রেট অপরিবর্তি রাখা হয়েছে আরবিআই-এর তরফে। মার্চে দেশে খুচরা মুদ্রাস্ফীতি ১৭ মাসের সর্বোচ্চে পৌঁছেছে। খাদ্য ও উৎপাদিত পণ্যের মূল্যস্ফীতির কারণে আম জনতার উপর চাপ বেড়েছে। এই আবহে মুদ্রাস্ফীতি নিয়ন্ত্রণে আনতে এই পদক্ষেপ করেছে আরবিআই। এর জেরে ঋণগ্রাহকদের মাসিক কিস্তি বাড়তে পারে। তবে ফিক্সড ডিপোজিটে আমানতকারীরা লাভবান হতে পারেন।

 

বন্ধ করুন